Categories
Uncategorized

সৌদির সহায়তায় দেশে আটটি ‘আইকনিক মসজিদ’ নির্মাণ হবেঃ প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সৌদি সহায়তায় দেশের আটটি বিভাগে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধাসহ আটটি ‘আইকনিক মসজিদ’ নির্মাণ

হবে। আজ বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) সকালে প্রধানমন্ত্রীর রাষ্ট্রীয় বাসভবন গণভবনে নবনিযুক্ত সৌদি রাষ্ট্রদূত ঈসা বিন ইউসেফ আল-দুহাইলান সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে এলে প্রধানমন্ত্রী মসজিদ নির্মাণের বিষয়ে আলোচনা করেন। বৈঠকের পর প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল

করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। খবর বাসস। প্রধানমন্ত্রী বলেন, সৌদি সহায়তায় উপজেলা পর্যায়ে ৫৬০টি মডেল মসজিদ-কাম-ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মিত হচ্ছে। প্রেস সচিব জানান, প্রধানমন্ত্রী সৌদি সহযোগিতায় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের উন্নয়নের কথাও স্মরণ করেন। তার সরকার কৃষি খাতে প্রাধান্য দিচ্ছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন,

বাংলাদেশ সৌদি আরবে কৃষি শ্রমিক পাঠাতে পারে। বাংলাদেশিদের হৃদয়ে সৌদি আরবের জন্য একটি বিশেষ স্থান রয়েছে। শেখ হাসিনা বলেন, অর্থনীতি, নিরাপত্তা ও জনশক্তির মতো ক্ষেত্রগুলোতে সৌদি আরব ও বাংলাদেশের মধ্যকার দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। আল-দুহাইলান উল্লেখ করেন যে, তাদের দেশে ১৫ লাখের বেশি বাংলাদেশি বিভিন্ন খাতে

কাজ করছেন। বাংলাদেশীরা কঠোর পরিশ্রমী এবং সৌদি অর্থনীতিতে বড় ধরনের অবদান রাখছেন। বাংলাদেশে বিদ্যমান বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশের কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, সৌদি উদ্যেক্তারা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী। শেখ হাসিনা আরও বলেন, তাদের সরকার ভ্রাতৃপ্রতীম দুটি দেশের মধ্যে ব্যবসা ও বাণিজ্য জোরদারের লক্ষ্যে

বাংলাদেশি উদ্যোক্তাদের সৌদি আরবে স্বাগত জানাচ্ছে। এ প্রসঙ্গে সৌদি রাষ্ট্রদূত বলেন, সৌদি আরবে বিনিয়োগের ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে এবং আমরা এ ব্যাপারে বাংলাদেশি উদ্যোক্তাদের পূর্ণ সহযোগিতা প্রদান করব। দু’দেশের মধ্যকার বিদ্যমান চমৎকার সম্পর্কের ব্যাপারে সন্তোষ প্রকাশ

করে আল-দুহাইলান এ সময় প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, রাষ্ট্রদূত হিসেবে তার মেয়াদকালে এই সম্পর্ককে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই হবে তার দায়িত্ব। সৌদি রাষ্ট্রদূত এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেন। বৈঠককালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া উপস্থিত ছিলেন। প্রেস সচিব আরও জানান,

পরে, বাংলাদেশে নিযুক্ত ভুটানের রাষ্ট্রদূত রিনচেন কুয়েন্টসিল একই স্থানে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

Categories
Uncategorized

সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘ’টনায় ৩ প্রবাসী বাংলাদেশি নি’হ’ত

সৌদি আরবের তায়েফ তুরাবায় কাজে যাওয়ার সময় দুটি গাড়ির মু;খোমুখি সং;ঘর্ষে সাথে সাথেই দুই প্রবাসীর মৃ;ত্যু হয়েছে। এই দুর্ঘটনায়

গুরুতর আ;হত অবস্থায় দুজনকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে আরও একজনের মৃ;ত্যু হয়। তাদের সবার বাড়ি সিলেটের কানাইঘাট ও জকিগঞ্জ উপজেলায়।নি;হ;তরা হলেন, মারা কানাইঘাট উপজেলার ৪নং সাতঁবাক ইউপির কুওরের মাটি গ্রামের আবদুল খালিকের ছেলে মাশুক

আহমদ (৩৫) ও নুর আহমদের ছেলে আব্দুশ শুকুর (৩২)। জানা যায়, বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) সকাল অনুমান ৭টায় সৌদি আরবের তায়েফ তুরাবায় এই মর্মান্তিক এ স;ড়ক দুর্ঘ;টনা ঘটে। স্থানীয় ইউপি সদস্য আবদুন নুর জানান, করোনাকালীন সময়ে আব্দুশ শুকুর বাড়িতে ছিলেন। পরিবারে অভাব-অনটনের কারণে মাত্র দেড় মাস

আগে তিনি সৌদি আরবে গমন করেন। এ ছাড়া একটি গাড়ির ড্রাইভার সিরাজ উদ্দিন (৪০) মা;রা যান। তার বাড়ি জকিগঞ্জ উপজেলা গঙ্গারজল এলাকায়। এ সড়ক দু;র্ঘ;টনায় অপর আরেকজন গুরুতর আহত অবস্থায় সৌদি আরবের তায়েফ তুরাবার একটি

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তার নাম জালাল আহমদ (৩৯) বাড়ি কানাইঘাট পৌরসভার বায়মপুর গ্রামে।

Categories
Uncategorized

পাবনায় ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন এক হিন্দু যুবক

প্রতিনিয়ত আমাদের চারিপাশে কত রকমের ঘটনা ঘটে চলেছে তার সব আমরা জানতে না পারলেও কিছু কিছু ঘটনা মিডিয়ার মাধ্যমে চলে

আসে আমাদের কাছে। পাবনা জেলার ঈশ্বরদী উপজেলার দাশুড়িয়া ইউনিয়নে হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেছেন উৎপল কুমার নামে এক যুবক। গত ২৪ নভেম্বর মঙ্গলবার বিকেলে তার নিজ গ্রাম ঈশ্বরদীর দাশুড়িয়া ইউনিয়নে মসজিদ গলির স;নাত;ন (হিন্দু) ধর্মের

একজন অনুসারী থেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার ঘোষনাটি আনুষ্ঠানিক ভাবে প্র;চার করেন। আদালতে হলফনামা অনুযায়ী তার পুর্ব নাম ছিল উৎপল কুমার,পিতার নাম মৃত মন্টু চন্দ্র সরকার ও মাতার নাম শ্রীমতি অলোকা। গ্রাম মসজিদ গলি মোড় দাশুড়িয়া, ঈশ্বরদী, পাবনা। বর্তমানে সে তার নাম রেখেছে মোঃ আজমির হোছাইন আলো। আজমির হোছাইন আলো

ওই হলফনামায় উল্লেখ করেন “আমি যেখানে বসবাস করি সেখানে বেশিরভাগ ইসলাম ধর্মের অনুসারি। ইসলাম ধর্ম’র প্রতিটা উৎসব পালন ও তাদের আচার আচরণ আমাকে মুগ্ধ করে দেয় এবং ইসলাম ধর্মের বই পুস্তক পরে আমার মহান আল্লাহ্ ও আল্লাহ্ এর রাসুল (সাঃ) এর প্রতি পূন্য বিশ্বাস জন্মায়। তাই আমি আগে থেকেই গোপনে ইসলাম ধর্মের আচার আচরণ ও

আনুষ্ঠানিকতা অনুসরন করে আসছি। হিন্দু ধর্মের রীতি নীতি থেকে ইসলাম ধর্ম আমার কাছে ভালো লাগায় আমি গত ১২ নভেম্বর ২০২০ তারিখে জনৈক একজন আলেমের কাছে গিয়ে ইসলামের কালেমা লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ (সাঃ) পাঠ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করি। এ বিষয়ে আলো সাংবাদিকদের বলেন “কেউ আমাকে জোর জবরদস্তি বা

প্রলুব্ধ করে নাই। আমি নিজ ইচ্ছাকৃত ভাবেই ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেছি। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সে আরো জানায় “আমি ইসলাম গ্রহন করেছি তাতে কে কি বললো এটাতে আমার কোন যায় আসে না,আমি চিন্তা ভাবনা করেই এসেছি। আমি মনে করি সচেতন মানুষ হিসেবে সকলের উচিত ইসলামের ছায়াতলে আসা। এ সময় তিনি স্থানীয় মুলাডুলি ইউনিয়ন

যুবলীগ এর সাধারন সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জামালকে ধন্যবাদ জানান, যিনি তাকে সার্বিক সহযোগিতা করেন।

Categories
Uncategorized

ইসলামটা আসলে কোনও ধর্ম নয়: তসলিমা নাসরিন

কিছু ডিসগাস্টিং ওয়াজ দেখলাম। এই ওয়াজের হুজুররাই নেপথ্যে বাংলাদেশ শাসন করছে। এরা চি’ৎকার করে রাজনীতির কথা বলছে, কী’

আইন আনতে হবে দেশে, কী’ভাবে চলবে দেশ, কোন রাজনীতিককে লাত্থি মে’রে বের করে দিতে হবে, মন্ত্রীদের কাকে ফায়ার করতে হবে, কাকে মে’রে ফেলতে হবে। ইস্কুলের সিলেবাস কী’ হবে। মে’য়েদের পোশাক কী’ হবে। রেডিও টেলিভিশানে কী’ শোনাতে হবে সব।ইস’লামটা

আসলে কোনও ধ’র্ম নয়। ইস’লামটা প্রথম থেকে শেষ অবধি রাজনীতি। ইস’লামের রাজনীতি করে একদা ইস’লামের নবী ক্ষ’মতার চূড়ায় উঠেছিলেন। তাঁর রাজনৈতিক দলের সদস্যরাও দেশে দেশে দ’খল করতে চায় ক্ষ’মতা।আল কায়দা,আইসিস ইত্যাদি জ’ঙ্গি গোষ্ঠীগুলো ইস’লাম নামের রাজনৈতিক দলের ক্যাডার বাহিনী।বি’রোধীদের মে’রে ফেলাই তাদের

রাজনীতির ধ’র্ম।ধ’র্ম বলে শুধু শুধু ইস’লামকে অ’পমান করা ঠিক নয়। ইস’লাম ধ’র্ম হতে যাবে কোন দুঃখে। তার কি আর খেয়ে দেয়ে কাজ নেই। কিছু ডিসগাস্টিং ওয়াজ দেখলাম। এই ওয়াজের হুজুররাই নেপথ্যে বাংলাদেশ শাসন করছে। এরা চি’ৎকার করে রাজনীতির কথা বলছে, কী’ আইন আনতে হবে দেশে, কী’ভাবে চলবে দেশ, কোন

রাজনীতিককে লাত্থি মে’রে বের করে দিতে হবে, মন্ত্রীদের কাকে ফায়ার করতে হবে, কাকে মে’রে ফেলতে হবে। ইস্কুলের সিলেবাস কী’ হবে। মে’য়েদের পোশাক কী’ হবে। রেডিও টেলিভিশানে কী’ শোনাতে হবে সব।ইস’লামটা আসলে কোনও ধ’র্ম নয়। ইস’লামটা প্রথম থেকে শেষ অবধি রাজনীতি। ইস’লামের রাজনীতি করে একদা ইস’লামের নবী

ক্ষ’মতার চূড়ায় উঠেছিলেন। তাঁর রাজনৈতিক দলের সদস্যরাও দেশে দেশে দ’খল করতে চায় ক্ষ’মতা।আল কায়দা,আইসিস ইত্যাদি জ’ঙ্গি গোষ্ঠীগুলো ইস’লাম নামের রাজনৈতিক দলের ক্যাডার বাহিনী।বি’রোধীদের মে’রে ফেলাই তাদের রাজনীতির ধ’র্ম।ধ’র্ম বলে শুধু শুধু

ইস’লামকে অ’পমান করা ঠিক নয়। ইস’লাম ধ’র্ম হতে যাবে কোন দুঃখে। তার কি আর খেয়ে দেয়ে কাজ নেই।

Categories
Uncategorized

সততার দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন রিকশাচালক

রিকশায় ভুল করে মোবাইল ফোনটি ফেলে গিয়েছিলেন এক যাত্রী। পরে ওই ফোন মালিককে ফেরত দিয়ে সততার দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন নয়ন

শেখ নামের এক হতদরিদ্র রিকশাচালক। বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) চাঁদপুর সদরের লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকালে নয়ন শেখের রিকশায় ওঠেন চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক

এ এইচ এম আহসান উল্লাহ। তিনি রিকশা থেকে নেমে ভাড়া দেয়ার সময় ভুলে হাতে থাকা মোবাইল ফোনটি রিকশার সিটে রেখে দেন এবং প্রেস ক্লাবের মিটিংয়ে চলে যান। ১০ মিনিট পর তিনি বুঝতে পারেন মোবাইল ফোনটি সঙ্গে নেই। সঙ্গে সঙ্গে তিনি খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। কিছুক্ষণ পর তিনি বুঝতে পারেন মোবাইল ফোনটি রিকশার সিটে ফেলে এসেছেন।

এরপরই রিকশাচালকের খোঁজ শুরু করেন। আহসান উল্লাহ মোবাইলে কল দিয়ে দেখেন রিং হচ্ছে কিন্তু অপরপ্রান্ত থেকে কেউ রিসিভ করছেন না। এভাবে অনেকবার কল করার পর অবশেষে দুপুরে অপর প্রান্ত থেকে রিকশাচালক নিজেই ফোন রিসিভ করেন। তিনি ঠিকানা জানিয়ে মোবাইল আনতে তার বাড়িতে যাওয়ার জন্য বলেন। বিকেল ৩টার দিকে

চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মিলন, সাধারণ সম্পাদক এ এইচ এম আহসান উল্লাহ এবং সাংস্কৃতিক সম্পাদক এ কে আজাদ রিকশাচালক নয়ন শেখের বাড়ি যান। তখন নয়ন শেখ হারিয়ে যাওয়া মোবাইল সেটটি তাদের হাতে তুলে দেন। এ সময় নয়ন শেখের সততায় উপস্থিত সবাই মুগ্ধ হন এবং তাকে বখশিশ দেয়া হয়। হতদরিদ্র রিকশাচালক নয়ন

শেখ বখশিশ পেয়ে খুশি হন। মোবাইল ফোনটি ফেরত দিতে পেরে অত্যন্ত খুশি বলেও জানান তিনি। এ বিষয়ে চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এ এইচ এম আহসান উল্লাহ বলেন, ‘আমরা শিক্ষিতরাই অনেক সময় লোভী হয়ে যাই। কিন্তু নয়ন শেখের পুঁথিগত শিক্ষার অভাব থাকলেও সুশিক্ষার আলোয় আলোকিত তিনি। একজন হতদরিদ্র রিকশাচালক হয়েও সততার দৃষ্টান্ত

স্থাপন করলেন। এটা অবশ্যই সবার জন্য শিক্ষণীয়। ঘটনাটি সমাজের জন্য সততার একটি মেসেজস্বরূপ।’

Categories
Uncategorized

‘বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আরেকবার ক’টূ’ক্তি করলে বুড়িগঙ্গায় ভা’সিয়ে দেব’

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নিয়ে বিতর্কিত বক্তৃতা দেয়া মাওলানা মামুনুল হককে হুঁশি;য়ারি দিয়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি

আল নাহিয়ান খান জয় বলেছেন, ‘আপনারা বুড়িগঙ্গার ধারে-কাছে আইসেন। সবকটাকে বুড়িগঙ্গায় ভাসিয়ে দেয়া হবে।’ বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আয়োজিত ‘উগ্র সাম্প্রদায়িক এবং স্বাধীনতাবিরোধী

অপশক্তি বিএনপি-জামাতের নাশকতা, জ্বালাও-পোড়াও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে’ এ কথা বলেন জয়। ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা এ দেশ পেয়েছি। জাতির পিতাকে নিয়ে দেশবিরোধী কুচক্রি মহল, যারা পাকিস্তানের এজেন্ডা বাস্তবায়নে কাজ করে, যারা ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করে, তারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে কথা

বলে। আমি নষ্টভ্রষ্ট মামুনুল হককে উদ্দেশ করে বলতে চাই, সারাদেশ পাঁচ মিনিটে অচল করে দেয়ার ক্ষমতা ছাত্রলীগের আছে। সাহস থাকলে ছাত্রলীগের সঙ্গে মোকাবিলা করেন। বঙ্গবন্ধু এদেশে ইসলামকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছিলেন। তারই সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়ার জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছেন।’ তিনি আরও বলেন,

‘মহান মুক্তিযুদ্ধে আমাদের ১৭ হাজার নেতাকর্মী শহীদ হয়েছিলেন, আমরা রক্ত দিতে জানি। সুতরাং ওই মাইকের সামনে বসে বড় বড় কথা না বলে মাঠে আসেন। এই মামুনুল হক জঙ্গিবাদ সঙ্গে নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। জঙ্গিবাদকে যারা সামনে নিয়ে এগিয়ে যায়, এখনই তাদের লাগাম টানতে হবে। তাদের যে লেজ হয়েছে সেটি কেটে দেয়ার সময় এসেছে। তারা জাতির পিতার ভাস্কর্য নিয়ে কথা বলে। মূর্তি আর ভাস্কর্যের পার্থক্য

তারা বোঝে না।’ ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, ‘এই অসাম্প্রদায়িক দেশে কোনো সাম্প্রদায়িক শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে দাঁড়াতে পারবে না। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা যে হাত দিয়ে সেবা করে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে, সেই হাত দিয়ে স্বাধীনতাবিরোধী শক্তিকে হঠানোর জন্য একইভাবে কাজ করবে।’সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, ‘যারা সাম্প্রদায়িকতার বীজ এ দেশে ছড়িয়ে দিতে চায়, তারা দেশদ্রোহীর শামিল বলে বিবেচিত হবে। তাদের ভুলে গেলে চলবে না, এদেশে দেশদ্রোহীদের ফাঁসির দড়িতে ঝুলানো হয়েছে। আপনারাও কিন্তু

সেই পথে ধাবিত হচ্ছেন। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে মামুনুল হকদের বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলবো। যারা ধর্মীয় অপব্যাখ্যা করে মানুষের মগজধোলাই করে, তাদের দাঁতভাঙা জবাব দিতে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলা হবে৷’ ছাত্রলীগ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘আজকে দেশের সমাজকে রক্ষণশীলতার চাদরে আবদ্ধ করার জন্য

ষড়যন্ত্র আমরা দেখতে পাচ্ছি। একাত্তরে যাদের আমরা পরাজিত করেছি, আজকে তাদের আস্ফাল দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে, মফস্বল শহরে দেখতে পাচ্ছি। আজকে তাদের উদ্দেশ্য করে শিক্ষার্থী হিসেবে বলতে চাই, বাংলা মায়ের কোলে আমরা যেমন শান্তিপ্রিয় শান্ত ছেলে হয়ে থাকতে জানি, ঠিক একরকমভাবে মৌলবাদ প্রতিরোধ আকাশ বজ্র হয়ে ঝরতে জানি।’ লেখক

ভট্টাচার্যের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহিম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান হৃদয়, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি মেহেদী হাসান। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মাহমুদুল হাসান তুষার, মাজহারুল ইসলাম শামীম, সৈয়দ আরিফ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক সাদ বিন কাদের চৌধুরী, নাজিম উদ্দিন, সাহিত্য সম্পাদক

আসিফ তালুকদার, উপ-সাংস্কৃতিক সম্পাদক তিলোত্তমা শিকদার, ফরিদা পারভীন প্রমুখ। সূত্রঃ জাগোনিউজ

Categories
Uncategorized

বিয়ে করতে লাগবে ইউপি চেয়ারম্যানের প্রত্যয়ন

চেয়ারম্যানের প্রত্যয়ন ছাড়া কেউ বিয়ে করতে পারবেন না….চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলায় বিয়ে করতে ইউপি চেয়ারম্যানের প্রত্যয়ন নেয়ার

দাবি উঠেছে। বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে আয়োজিত আলোচনা সভায় উপস্থিত সকলেই এ দাবি তুললে জীবননগর উপজেলা প্রশাসন বিষয়টি ভেবে দেখার কথা জানিয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) এনজিও সংস্থা ওয়েভ ফাউন্ডেশন ও বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে কাজ করা জীবননগর উপজেলা

লোক মোর্চার আয়োজনে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে করণীয় সংক্রান্ত মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। জীবননগর উপজেলা লোকমোর্চার সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে এবং উপজেলা লোকমোর্চার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল লতিফ অমলের সঞ্চালনায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে বেলা ১১ টার সময় অনুষ্ঠিত মত বিনিময় সভায় বক্তব্য দেন জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মুনিম লিংকন,

জীবননগর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকি, জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মো. মেহেদী আল মাসুম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শ্রী দিনেশ চন্দ্র, জীবননগর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মুন্সী মাহবুবর রহমান বাবু, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি জিএ জাহিদুল ইসলাম, উথলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্যদের সভাপতি সালাউদ্দীন

কাজল, সেনেরহুদা জান্নাতুল খাদরা দাখিল মাদরাসার সভাপতি আবু জাফর, সাংবাদিক কাজী সামসুর রহমান চঞ্চল, আকিমুল ইসলাম, আতিয়ার রহমান, উথলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমান, শাহিনুর রহমান, ওয়েভ ফাউন্ডেশনের কামরুজ্জামান যুদ্ধ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, জীবননগর উপজেলাকে বাল্যবিয়েমুক্ত করতে বাল্যবিয়ে দেয়ার কাজে সহযোগিতাকারী, কাজী এবং

অভিভাবকদেরকে আইনের আওতায় আনতে হবে। এছাড়া মতবিনিময় সভায় উপস্থিত সকলেই দাবি তোলেন বিয়ের আগে বয়স প্রমাণের জন্য সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছ থেকে প্রত্যয়নপত্র নিতে হবে। ইউপি চেয়ারম্যানের প্রত্যয়নপত্র ছাড়া কোনো কাজী বিয়ে পড়ালে ওই কাজির বি;রু;দ্ধে আইন;গত ব্যবস্থা নিতে হবে। মতবিনিময় সভায় উপজেলার ৩৪ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদরাসার পরিচালনা

পর্যদের সভাপতি এবং প্রধান শিক্ষক, লোকমোর্চার সদস্য, সাংবাদিক, সুধী বৃন্দসহ শতাধিক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

Categories
Uncategorized

সবাইকে কাঁ’দিয়ে মা’রা’ গেলেন ফুটবল লিজেন্ড ডিয়েগো ম্যারাডোনা

আর্জেন্টিনা ফুট’বল লি’জেন্ড ডি’য়ে’গো ম্যা’রা’ডোনা মা’রা’ গে’লেন। গত ৩০ অক্টোবর ৬০তম জন্ম”দিন পা’লন ক’রেন তিনি। কয়ে’ক

দিন পরই অ’সু’স্থ হয়ে হাস’পাতা’লে ভর্তি হন বিশ্ব’কাপ জ’য়ী অধি’নায়ক। করা হয় ম’স্তি’ষ্কে অ”স্ত্রো’প’চার। সুস্থ হয়ে বাসা’য় ফি’রেছি’লেন তিনি। কিন্তু হা’র্ট অ্যা’টা’কে না ফেরার দেশে চলে গে’লেন ম্যারা’ডোনা। ১৯৯৪ সালে আ’র্জে’ন্টি’নার সু’পার’স্টার

দি’য়ে’গো ম্যা’রা’ডো’নার ফুটবল কেরিয়ারে নেমে এ’সেছিল বি’শাল এক বি’প’র্যয়। তার শ’রী’রে ‘নি’ষি’দ্ধ ব’লব’র্ধক ধ’রা পড়ায় তাকে বিশ্ব’কা’পের আ’সর থেকে বিদা’য় নি’তে হ’য়েছিল খুব’ই ম’র্মা’ন্তি’ক প’রি’স্থিতির মধ্যে দি’য়ে ১৯৯৪ সালের ৩০শে জুন আ’মেরি’কায় বি’শ্বকাপে’র আ’স’রে ফুট’বলের নি’য়’ন্ত্রক

সং’স্থা ফিফা এক চ’রম না’ট’কী’য় ঘো’ষ’ণায় জানায় ম্যারা’ডো’নার মূ’ত্রে’র ন’মু’না প’রী’ক্ষায় বলবর্ধকের উ’পস্থি’তি প্রমা’ণিত হয়েছে। অ’তএব আ’র্জেন্টি’না জাতী’য় দলের খে’লো’য়াড় দি’য়ে’গো ম্যারা”ডোনা আর্জে’ন্টিনা- না’ইজে’রি’য়া ম্যাচে নি’ষি’দ্ধ

ব’লব’র্ধক ব্যবহারের নি’য়মবি’ধি লংঘন ক’রায় তা’কে খে’লা থেকে ব’হি’ষ্কার করার সি’দ্ধা’ন্ত নেও’য়া হয়েছে।

Categories
Uncategorized

কমেছে স্বর্ণের দাম ,নতুন দাম নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি

প্র‌তি ভরিতে ২ হাজার ৫০৮ টাকা ক‌মি‌য়ে স্ব‌র্ণের নতুন দাম নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)। মঙ্গলবার (২৪ ন‌ভেম্বর)

বাজুসের সভাপতি এনামুল হক খান ও সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বুধবার (২৫ ন‌ভেম্বর) থেকে স্বর্ণের এ নতুন দর কার্যকর হবে। বাজুসের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বৈশ্বিক স্থবিরতা, ডলার ও তেলের দরপতন,

আন্তর্জাতিক স্বর্ণবাজারে নজিরবিহীন উত্থান- পতনের পরও দেশীয় স্বর্ণ বাজারের মন্দাভাব ও ভোক্তা সাধারণের কথা চিন্তা করে প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও বাজুস সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২৫ নভেম্বর বুধবার থেকে বাংলাদেশের বাজারে স্বর্ণের দাম ভরিপ্রতি ২ হাজার ৫০৮ টাকা কমানো হলো, তবে রুপার দাম অপরিবর্তিত থাকবে। নতুন দাম অনুযায়ী, ২৫ ন‌ভেম্বর থেকে ভালো মানের,

অর্থাৎ ২২ ক্যারেটের প্রতিভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) স্বর্ণের দাম দুই হাজার ৫০৮ টাকা ক‌মি‌য়ে নির্ধারণ করা হয়েছে ৭৩ হাজার ৮৩৩ টাকা। ২১ ক্যারেটের স্বর্ণ ৭০ হাজার ৬৮ টাকা, ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণ ৬১ হাজার ৯৩৬ টাকায় ও সনাতন পদ্ধতির প্রতিভরি স্বর্ণ ৫১ হাজার ৬১৩ টাকা নির্ধারণ করা হ‌য়ে‌ছে। স্ব‌র্ণের দাম কম‌লেও রুপার পূর্বনির্ধা‌রিত দাম বহাল রয়েছে। ক্যাটাগরি অনুযায়ী ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি রূপার মূল্য

নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫১৬ টাকা। ২১ ক্যারেটের রূপার দাম ১৪৩৫ টাকা, ১৮ ক্যারেটের ১২২৫ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির রূপার দাম ৯৩৩ টাকা নির্ধারণ করা হ‌য়েছে। এ‌দি‌কে আজ‌ ২৪ ন‌ভেম্বর পর্যন্ত দে‌শের বাজা‌রে ভালো মানের, অর্থাৎ ২২ ক্যারেটের প্রতিভরি বি‌ক্রি হ‌য়ে‌ছে ৭৬ হাজার ৩৪১ টাকা। ২১ ক্যারেটের স্বর্ণ ৭৩ হাজার ১৯২ টাকা, ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণ ৬৪

হাজার ৪৪৪ টাকায় এবং সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি স্বর্ণ ৫৪ হাজার ১২১ টাকা। গত ১৫ অ‌ক্টোবর প্র‌তি ভ‌রি‌তে ২ হাজার ৩৩৩ টাকা বাড়িয়েছিল বাজুস। এর আ‌গে ২৪ সে‌প্টেম্বর প্র‌তি ভ‌রি‌তে দুই হাজার ৪৪৯ টাকা ক‌মায়। তারও আ‌গে ১৮ সে‌প্টেম্বর দাম বাড়ানো হয়। এরও আ‌গে ১৩ ও ২১ আগস্ট স্বর্ণের দাম কমিয়েছিল স্বর্ণ ব্যবসায়ী‌দের সংগঠন‌টি।

ভারতে স্বর্নের বাজার দর (২৪ নভেম্বর) মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর, সকালে ইন্ডিয়ার মাল্টি-কমোডিটি এক্সচেঞ্জে (MCX) সোনার ডিসেম্বর ফিউচার মূল্য ০.৯০ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে।ফলে সকাল সাড়ে ৯টা নাগাদ প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দর ৪৫০ টাকা হ্রাস পেয়ে দাঁড়িয়েছিল ৪৯ হাজার ৫১ টাকা (Today Gold Price)। একই ছবি ধরা পড়েছে রুপোর ক্ষেত্রেও।

সকালের বেচাকেনায় প্রতি কিলো রুপোর দাম ১.৫ শতাংশ বা ৭৫০ টাকা হ্রাস পেয়ে দাঁড়িয়েছে ৫৯ হাজার ৯৮০ টাকা।

Categories
Uncategorized

খাটের উপর পড়ে আছে নববধূ তামান্নার দে’হ

তামান্না বেগম, বয়স ১৯ বছর। মূল বাড়ি সিলেটের দক্ষিণ সুরমার ফুলদি গ্রামে। দুই মাস আগে কাপড়ের ব্যবসায়ী আল-মামুনের সাথে বিয়ে

হয়েছিলো তার। কিন্তু বিয়ের দুই মাসের মাথায় লা’শ হলেন নববধূ তামান্না। স্বজনরা জানিয়েছেন, তামান্নার শরীরে আ’ঘাতের পর আ’ঘাতের চিহ্ন রয়েছে। গ’লায় কালো দাগ। এতেই স্পষ্ট হয় স্বামী আল-মামুনই স্ত্রী তামান্নাকে খু’ন করে পা’লিয়ে গেছে। ঘটনার পর থেকে প’লাতক

রয়েছে আল-মামুন। তার মোবাইলফোনও বন্ধ। গতকাল বিকালে সিলেটের কোতোয়ালি থানা পুলিশ ভাড়া করা বাসা থেকে তামান্নার ম’রদেহ উ’দ্ধার করেছে। তামান্নার মূল বাড়ি সিলেটের দক্ষিণ সুরমার ফুলদি গ্রামে। বর্তমানে তামান্নার পরিবারের সদস্যরা সিলেটের গোলাপগঞ্জ
উপজে’লা সদরের এমসি একাডেমির পার্শ্ববর্তী এলাকায় বসবাস করেন। তার স্বামী আল-মামুনের মূল বাড়ি বরিশাল জে’লার হোগ’লার চরে।

সে সিলেট নগরীর বারুতখানা এলাকায় বসবাস করতো। ভোটার আইডিতে তার বর্তমান ঠিকানা হিসেবে লেখা রয়েছে বারুতখানা এলাকায়। সে সিলেট নগরীর জিন্দাবাজারের আল-মারজান কমপ্লেক্সের কাপড়ের ব্যবসায়ী। নি’হত তামান্নার পরিবারের সদস্যরা জানান, আল-মামুনের সঙ্গে তামান্না বেগমের পূর্বের কোনো পরিচয় ছিল না। পারিবারিক ভাবে তাদের বিয়ের কথাবার্তা হয়।

এবং গত ৩০শে সেপ্টেম্বর গোলাপগঞ্জের খান কমিউনিটি সেন্টারে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের আগেই নগরীর উত্তর কাজিটুলার বিহঙ্গ ৪/এ বাসার দু’তলা ভাড়া নেয় আল-মামুন। ভাড়া নেয়ার পরসে ওই বাসাতেই বিয়ের আয়োজন করে। এবং বিয়ের পর তামান্নাকে নিয়ে ওই বাসাতেই উঠে। গতকাল সোমবার সকালে তামান্না বেগম ও তার স্বামীর কোনো সাড়া-শব্দ না পেয়ে আশেপাশের মানুষজনের স’ন্দেহ হয়।

এ সময় তারা এসে দেখেন বাসার দরোজা বাইরে থেকে তালাবদ্ধ। দুপুরের পর তারা বি’ষয়টি জানান স্থানীয় কাউন্সিলর রাশেদ আহমদ সহ এলাকার মানুষকে। কাউন্সিলর পুলিশকে খবর দিলে কোতোয়ালি থানা পুলিশ এসে দরোজা ভে’ঙে ভেতরে ঢুকে। এ সময় তারা দেখেন শয়ন কক্ষের খাটের উপর পড়ে আছে তামান্নার দেহ। স্বামী আল-মামুনের কোনো খোঁজ নেই। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পুলিশ স্বামীর খোঁজ করলেও

পাননি। এমনকি তার মোবাইলফোনও বন্ধ। তার আত্মীয়স্বজনদেরও মোবাইলফোন বন্ধ পাওয়া যায়। তামান্নার স্বজনরা লা’শ দেখেই কা’ন্নায় ভে’ঙে পড়েন। স্বজনরা জানান, গত ১৫ দিন আগে স্বামীর সঙ্গে তামান্নার মতবি’রোধ চলছিল। কয়েক দিন আগে স্বামী আল- মামুন তামান্নাকে মা’রধর করেছে বলে তারা জেনেছেন। পরে বি’ষয়টি সমাধানও হয়ে যায়।

এরপর থেকে তাদের সংসার ভালো চলছিল। তারা জানান, ঘটকের মাধ্যমে খোঁজখবর নেয়ার পর আল-মামুনের সঙ্গে তামান্নার বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের আগে তার সম্পর্কে ভালো তথ্য পেলেও বিয়ের পর তার উচ্ছৃঙ্খল আচরণ ধরা পড়ে। নববধূর ভাই সৈয়দ আনোয়ার হোসেন রাজা জানিয়েছেন, ঘটনার আগে রোববার রাত ৯টায় তামান্না বেগমের সঙ্গে সর্বশেষ কথা বলেন তার মা।

তখন কথাবার্তা ছিল স্বাভাবিক। এ সময় তামান্না কোনো কিছু জানায়নি। তাদের মধ্যে কোনো বি’রোধ আছে বলে অনুমান করা যায়নি। তবে আল-মামুন সিলেটের স্থানীয় বাসিন্দা না হওয়ায় তাদের বিয়েতে আত্মীয়স্বজন অনেকেরই মত ছিল না। তামান্নার মা একা সিদ্ধান্ত নিয়ে এই বিয়ে দেন। তবে, বিয়ের পর আত্মীয়স্বজনরা স্বাভাবিক ভাবেই মেনে নিয়েছিলেন।

এদিকে কোতোয়ালি থানা পুলিশ লা’শ উ’দ্ধার করে ম’য়নাত’দন্তের জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের এডিসি (মিডিয়া) বিএম আশরাফ উল্লাহ তাহের সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, তামান্না বেগমের গ’লায় আ’ঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে শ্বা’সরো’ধ করে হ’ত্যা করা হয়েছে বলে

প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। লা’শ উ’দ্ধার করে ম’য়নাত’দন্তের জন্য এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।পুলিশ স্বামী আল-মামুনের সন্ধান করছে বলে জানান তিনি। এদিকে ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রাশেদ আহম জানিয়েছেন, পুলিশ এসে লা’শ উ’দ্ধার করে নিয়ে গেছে। এখনো স্বামীকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। এলাকার মানুষকে বলে

রাখা হয়েছে, স্বামী ফিরে এলে যেন খবর দেয়া হয়। স্বামী নি’খোঁজ থাকার কারণে ঘটনাটি ঘিরে র’হস্য দেখা দিয়েছে।