Categories
Uncategorized

সৌদি প্রবাসী ভাইয়েরা কেউই এখন দেশে যাবেন না, অনেক বড় সুযোগ আসছে

কেউই এখন দেশে যাবেন না,অনেক বড় সুযোগ আসছে.কেউই এখন দেশে যাবেন না,অনেক বড় সুযোগ আসছে.কেউই এখন দেশে যাবেন

না,অনেক বড় সুযোগ আসছে.কেউই এখন দেশে যাবেন না,অনেক বড় সুযোগ আসছে.

আরও পড়ুন…
শা’রী’রিক, মা’ন’সিক ও যৌ’’ন নি’পী’ড়’নের ‘অ’ভি’যোগ এনে, সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরেছেন, অনেক নারী কর্মী। আবার কেউ কেউ আ’কুতি জানিয়েও, ফিরতে পারছেন না নিজভূমে। এবার ভিডিও বার্তা পাঠিয়ে, দেশে ফেরার আ’কু’তি জানিয়েছেন, আরও এক নারী।

এ বিষয়ে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোসহ বিভিন্ন দপ্তরে ধ’র্না দিয়েও, স’হায়তা পাচ্ছেন না স্বজনরা।“আমাকে দেশে নেয়ার ব্যবস্থা করেন, এখানে থাকলে আমি বেশিদিন বাঁ’চবো না” এই আ’কু’তি সৌদি প্রবাসী অনিসা আক্তার লিয়ার। ভাগ্য পরিবর্তনের আশায় গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর মেসার্স ব্রাহ্মণবাড়িয়া ওভারসিজের মাধ্যমে মরুর দেশে পাড়ি জমান,

নারায়ণগঞ্জের সেনবাগের এই নারী।কিন্তু কয়েকদিন না যেতেই শি’কার হন নিয়োগ কর্তার শা’রী’রিক ও মা’ন’সিক নি’র্যা’ত’নের। গত ২৫ শে জানুয়ারি ভিডিও বার্তায় ভ’য়া’ব’হ সেই অভি’জ্ঞতার তুলে ধরেন অনিসা। এরপর আর যোগাযোগ করতে পারছেন না স্বজনরা। স্বামী দেলোয়ারের অভি’যো’গ, স্ত্রীকে দেশে ফেরাতে বললে, উল্টো টাকা দাবি করছে রিক্রুটিং এজেন্সি। অবশেষে শর’নাপন্ন হয়েছেন, জনশ’ক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ

ব্যুারোসহ বিভিন্ন দপ্তরে।তিনি বলেন, আমি তাঁদের সম্পূর্ন কথা রেকর্ডিং করেছি। তাঁরা আমার কাছে দেড় লক্ষ টাকা চেয়েছে। সরকারি আইনে আমার স্ত্রীকে আনলে তাঁকে ওখানে আরও ৬মাস এমন অ’মা’ন’বিক অ’ত্যা’চার স’হ্য করতে হবে বলেও জানিয়েছে তাঁরা। সব অ’ভিযো’গ অ’স্বীকা’র করে মেসার্স ব্রাহ্মণবাড়িয়া ওভারসিজের এই কর্মকর্তা বলছেন, অনিসা আক্তারকে ফেরাতে নেয়া হয়েছে উদ্যোগ।সত্যতা মিললে অ’ভিযু’ক্ত এজেন্সি পার পাবেন না বলে সাফ জানিয়েছেন, বিএমইটির মহাপরিচালক। তিনি বলেন, তাঁরা হাজির হয়ে ৩মাস সময় চেয়েছে।

বিষয়টি তাঁরা দেখছে এবং আমার বিশ্বাস তাঁরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবে। তাঁরা এটা না করলে আমরা আই’নানুগ ব্যবস্থা নিব।ব্র্যাকের প্রধান (মাইগ্রেশন) শরিফুল হাসান বলেন, আমরা চাইব যে এইভাবে আর কোন মেয়ে বা নারী কোন রিক্রুটিং এজেন্সির মাধুমে যেয়ে বি’পদে না পরে, সেটার জন্য নজরদারীটা যেন আরো ভালোভাবে করা হয়।এরআগে পঞ্চগড়ের সুমি,

মৌলভী বাজারের মরিয়ম ও হবিগঞ্জের হুসনা ভিডিও বার্তা পাঠিয়ে দেশে ফেরার আ’কু’তি জানান। পরে তাদের দেশে ফিরিয়ে আনা হয়।ব্যুারোসহ বিভিন্ন দপ্তরে।তিনি বলেন, আমি তাঁদের সম্পূর্ন কথা রেকর্ডিং করেছি। তাঁরা আমার কাছে দেড় লক্ষ টাকা চেয়েছে। সরকারি আইনে আমার স্ত্রীকে আনলে তাঁকে ওখানে আরও ৬মাস এমন

অ’মা’ন’বি’ক অ’ত্যা’চার স’হ্য করতে হবে বলেও জানিয়েছে তাঁরা। সব অ’ভিযো’গ অ’স্বী’কার করে মেসার্স ব্রাহ্মণবাড়িয়া ওভারসিজের এই কর্মকর্তা বলছেন, অনিসা আক্তারকে ফেরাতে নেয়া হয়েছে উদ্যোগ।সত্যতা মিললে অ’ভিযু’ক্ত এজেন্সি পার পাবেন না বলে সাফ জানিয়েছেন, বিএমইটির মহাপরিচালক। তিনি বলেন, তাঁরা হাজির হয়ে ৩মাস সময় চেয়েছে।

বিষয়টি তাঁরা দেখছে এবং আমার বিশ্বাস তাঁরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবে। তাঁরা এটা না করলে আমরা আই’নানুগ ব্যবস্থা নিব। ব্র্যাকের প্রধান (মাইগ্রেশন) শরিফুল হাসান বলেন, আমরা চাইব যে এইভাবে আর কোন মেয়ে বা নারী কোন রিক্রুটিং এজেন্সির মাধুমে যেয়ে বিপদে না পরে, সেটার জন্য নজরদারীটা যেন আরো ভালোভাবে করা হয়।এরআগে পঞ্চগড়ের সুমি, মৌলভী বাজারের

মরিয়ম ও হবিগঞ্জের হুসনা ভিডিও বার্তা পাঠিয়ে দেশে ফেরার আ’কু’তি জানান। পরে তাদের দেশে ফিরিয়ে আনা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *