Categories
Uncategorized

ইসলাম শিক্ষায় প্রথম হলেন হিন্দু শিক্ষার্থী!

ইসলামিক স্টাডিজ নিয়ে কাশ্মীরের কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কমন এন্ট্রান্স টেস্টে প্রথম স্থান দখল করলেন এক হিন্দু শিক্ষার্থী। রাজস্থানের

আলওয়ারের বাসিন্দা শুভম যাদব এ কৃতিত্ব অর্জন করেছেন। তিনি অমুসলিম ও কাশ্মীরের বাইরে কোনও ছাত্র হিসেবে প্রথম বার এই কৃতিত্ব অর্জন করেছেন। বর্তমানে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি নিয়ে পড়াশোনা করছেন শুভম। ইসলাম ধর্মের গভীরে গিয়ে তাকে জানার জন্যই

তিনি এই বিষয়টি বেছে নিয়েছেন বলে দাবি মেধাবী এই ছাত্রের। ভবিষ্যতে আমলা হিসেবে দেশসেবা করতে চান শুভম। ইসলামিক স্টাডিজ নিয়ে পড়াশোনা করলে ভবিষ্যতে সিভিল সার্ভিস পরীক্ষাতেও তার সুবিধে হবে বলে মনে করেন শুভম। শুভম বলেন, ইসলাম নিয়ে অনেক ভ্রান্ত ধারণা রয়েছে। আমার মনে হয়, এই ধর্মটিকেই সব থেকে বেশি ভুল বোঝে মানুষ। বিশ্বের অনেক রাষ্ট্রনেতাই এই ধর্ম নিয়ে নিজেদের

মতামত জানিয়েছেন। আর তা থেকেই এই বিষয়ের উপরে স্নাতকোত্তর করার কথা আমার মাথায় আসে। ব্যক্তিগতভাবে বলতে পারি, ধর্মীয় মেরুকরণের এই পরিবেশে আমি দুই ধর্মের মধ্যে সেতুবন্ধনের কাজ করতে চাই৷ শুভমের বাবা পেশায় ব্যবসায়ী, মা গৃহিণী। শুভম জানিয়েছেন, ইসলামিক স্টাডিজ নিয়ে পড়তে তার বাবাও তাকে উৎসাহ দিয়েছেন। তবে প্রায় ২ বছর পড়াশোনার জন্য কাশ্মীরে গিয়ে থাকতে হবে ভেবে

কিছুটা উদ্বিগ্ন শুভমের বাবা-মা। দেশের মধ্যে যে ১৪টি কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে, তার অধীনে থাকা কাশ্মীরের কলেজগুলোতেই ইসলামিক স্টাডিজ পড়ানো হয়। শুভম অবশ্য জানাচ্ছেন, তিনি এর আগে কাশ্মীরে গিয়েছেন। সেখানকার মানুষও যথেষ্ট বন্ধুত্বপূর্ণ। ফলে কাশ্মীরে থেকে পড়াশোনা করতে অসুবিধে হবে না বলেই আশাবাদী ওই ছাত্র। ২০১৭ সালে পেহলু খান নামে এক গবাদি পশুর ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়

রাজস্থানের আলওয়ারে। সেই আলওয়ারের ছাত্র শুভম সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তা ছড়িয়ে দিতে ইসলামকে জানতে চায়।

সূত্র: নিউজ১৮

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *