Categories
Uncategorized

মালয়েশিয়ায় টাকার বিনিময়ে প্রবাসীদের সুবিধা প্রদানঃ ২৭ ইমিগ্রেশন অফিসারসহ আ’ট’ক ৪৬

দক্ষিন-পূর্ব এশিয়ার দেশ মালয়েশিয়ায় প্রবাসীদের অ;বৈধভাবে সহযোগিতা করায় ই;মিগ্রেশন কর্মকর্তা এবং দালাল সহ মোট ৪৬ জনকে

আ;ট;ক করেছে দেশটির দু;;র্নী;তি দ;মন ক;মিশন। মালয়েশিয়ার ই;মিগ্রেশন বিভাগ ও দু;;র্নীতি দ;;মন ক;মিশন (এমএসিসি) এর “স্টিং অপস সে;ল্ট” অ;ভিযানে দু;;র্নীতির মাধ্যমে অ;বৈধ প্রবাসীদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতার দা;য়ে ই;মিগ্রেশন বিভাগের কর্মকর্তাসহ এজেন্ট এবং

দা;লালসহ আ;;টক ৪৬ জন। গ্রে;;ফতারদের মধ্যে ২৭ জন ই অভিবাসন কর্মকর্তা ও বাকিরা হচ্ছে বিভিন্ন এজেন্ট ও প্রবাসীদের মধ্যাস্থতাকারী দা;লাল। তারা সম্মিলিত ভাবে একটি শ;ক্তিশালী সি;ন্ডিকেট তৈরি করে এই দু;;র্নীতি করে আসছিল।
১৭ নভেম্বর মঙ্গলবার মালয়েশিয়ার সংবাদ মাধ্যম ফ্রি মালয়েশিয়া টু ডের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য প্রকাশ করেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ই;মিগ্রেশন ও দু;;র্নীতি দ;;মন কমিশন এর যৌ;থ অ;ভিযান পরিচালনা করে দেশটির পুত্রাজায়া, সেলেঙ্গর, জোহর বাড়ু, সাবাহ এবং সারাওয়াক প্রদেশ থেকে তাদের সবাই কে আ;;টক করা হয়েছে। এই যৌ;থ অ;;ভিযানের নাম ছিল “অপস সে;ল্ট”।
এই সি;ন্ডিকেট এর দূ;;র্নীতির বিষয়ে বলা হয়েছে, মালয়েশিয়া যে সমস্ত

অভিবাসীরা অ;বৈধ হয়ে পড়েছেন বা বিভিন্ন কারনে দেশটিতে ব্ল্যা;ক লিষ্টেড হয়েছেন এই স;মস্যা থেকে বা;চাঁর জন্য এজেন্ট ও দালালের মাধ্যমে ই;মিগ্রেশন অফিসারকে হাত করে মোটা অংকের টাকা দিতেন। তারপর কোন অভিবাসী ই;মিগ্রেশন বিভাগে স্ব-শরীরে হাজির না হয়েই তাদের পাসপোর্ট এ আগমন ও

বহির্গমণ ইমিগ্রেশন সিল বা স্টিকার লাগিয়ে নিতেন। এতে যেন বুঝা যায় যে তারা কোন ব্ল্যা;;ক লিষ্টেড নেই। তারা সম্প্রতি মালয়েশিয়া ত্যাগ করে আবার মালয়েশিয়া প্রবেশ করেছেন। এই কাজের জন্য তারা প্রত্যেক অভিবাসীর কাছ থেকে ৬ হাজার রিংগিত নিতেন। এমএসিসির পরিচালক( ত;দ;ন্ত) নওরজলান

মোহাম্মদ রাজালী আ;টকের বিষয়টি নিশ্চিত করলেও এ বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে অ;স্বীকার করেছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *