Categories
Uncategorized

প্রবাসীদের জন্য আউট বাউন্ড ফ্লাইট চালু করে দিলো সৌদি আরব

গতকাল থেকে সৌরি আরব তাদের আউট বাউন্ড ফ্লাইট চালু করে দিয়েছে, মানে যে সকল ব্যাক্তি বর্তমানে সৌদি আরবে আছেন তারা তাদের

দেশে ফিরে যেতে পারবেন। কিন্তু যারা সৌদি আরব যেতে ইচ্ছুক তাদের আর কিছু দিন অপেক্ষা করতে হবে(৪ জানুয়ারী হতে ৮ এর
মধ্যে ইনশাল্লাহ ,আমরা আশা করতে পারি তবে আগামি সপ্তাহে সৌদি আরব যাত্রী পুনরায় আগের মতো সৌদি যাইতে পারবেন।

গতকাল থেকে সৌরি আরব তাদের আউট বাউন্ড ফ্লাইট চালু করে দিয়েছে মানে যে সকল ব্যাক্তি বর্তমানে সৌদি আরবে আছেন তারা
তাদের দেশে ফিরে যেতে পারবেন কিন্তু যারা সৌদি আরব যেতে ইচ্ছুক তাদের আর কিছু দিন অপেক্ষা করতে হবে(৪
জানুয়ারী হতে ৮ এর মধ্যে ইনশাল্লাহ।

আমরা আশা করতে পারি তবে আগামি সপ্তাহে সৌদি আরব যাত্রী পুনরায় আগের মতো সৌদি যাইতে পারবেন।

Categories
Uncategorized

সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রবাসীদের জন্য সুখবর ফি ছাড়াই ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর নির্দেশ !

সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং প্রধানমন্ত্রী এবং দুবাইয়ের রুলার, হাইজেনইজ শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুম

বিশ্বব্যাপী অস্থায়ী বিমানবন্দর বন্ধ এবং প্রবেশের নিষেধাজ্ঞার কারণে , কোনও সরকারী ফি ছাড়াই পর্যটকদের ভিসা বাড়ানোর এক নির্দেশ জারি করেছেন। সিদ্ধান্তটি সংযুক্ত আরব আমিরাতে পর্যটক এবং তাদের পরিবারকে নতুন বছরের ছুটি কাটাতে সহায়তা করে। সংযুক্ত সংযুক্ত আরব

আমিরাতে অবস্থানকালে সমস্ত দর্শনার্থীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকারী সংস্থাগুলি আগত সময়ের জন্য পর্যটকদের জন্য পদ্ধতিগুলি সহজ করার জন্য এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে সহযোগিতা করার জন্য কাজ করবে আজ মঙ্গলবার সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্বাস্থ্য ও প্রতিরোধ মন্ত্রণালয় করোনা আপডেটে ১৫০৬ জন আক্রান্ত পাশাপাশি ১৪৭৫ জন সুস্থের খবর দিয়েছে।

দু’জনের মৃ; ত্যুর খবরও পাওয়া গেছে।দেশটিতে এখন পর্যন্ত মোট ১৫৩১৫৭ টি পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে এবং মোট টেস্টের সংখ্যা ২০.৫ মিলিয়নেরও বেশি হয়ে গেছে। দুটি করোনার ভ্যাকসিনের রোল আউট যখন সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ভাইরাসের বিরুদ্ধে যু;দ্ধে জয়ী করার দিকে এগিয়ে নিয়েছে, তখন চিকিৎসকরা জোর দিয়ে বলেছেন যে এই নতুন বছরের প্রাক্কালে অনুসরণ করার জন্য সমস্ত সুরক্ষা ব্যবস্থা গ্রহণ

করা আবশ্যক। আপনার সুরক্ষা কমিয়ে দেবেন না, তারা হুঁ; শিয়ারি দিয়েছিল, কারণ এখনও দেশটির মানুষ কারোনা আক্রান্তের ঝুঁকিতে রয়ে গেছে, এমনকি কিছু লোক ইতিমধ্যে জব করে নিয়েছে।যদিও এখন ভ্যাকসিনগুলি জনসাধারণের জন্য সহজলভ্য করা হয়েছে এবং ধীরে ধীরে বিধিনিষেধগুলি সহজ করা হচ্ছে, তবে সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ এবং

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখনও সাধারণ জনগণ এবং বাসিন্দাদের মাস্ক, স্যানিটাইজার, সামাজিক দূরত্ব এবং জনাকীর্ণ এড়ানোর ক্ষেত্রে সাবধানতা অবলম্বন করার পরামর্শ দেয় আবুধাবি পুলিশ বাসিন্দাদের করোনা বিস্তার রোধের জন্য সতর্কতামূলক ব্যবস্থা এবং অন্যান্য সমস্ত বিধিবিধান অনুসরণ করার আহ্বান জানিয়েছে। রেজোলিউশন অনুসারে, যে কেউ সমাবেশ, সভা এবং ব্যক্তিগত এবং

পাবলিক উদযাপনের জন্য আমন্ত্রণ জানায় বা পরিচালনা করে তার উপর একটি দশ হাজার জরিমানা জরিমানা করা হবে।

Categories
Uncategorized

মিশরের সুন্দরীদের সাথে বিয়ের ধুম পড়েছে প্রবাসী বাংলাদেশিদের

বাংলাদেশ দূতাবাসের পরিসংখ্যান অনুযায়ী মিশরে বসবাসকারী বাংলাদেশির সংখ্যা প্রায় দশ হাজার। এই ১০ হাজারের মধ্যে কেউ এসেছেন

জীবিকার খোজে। কেউবা পড়াশুনার জন্য। এদের মধ্যে অনেকেই বিভিন্ন ইন্ডাস্ট্রি এবং ব্যবসা বাণিজ্যে জড়িয়ে গেছেন। অনেকে আবার ঘর সংসারও শুরু করেছেন দেশটিতে। ইতোমধ্যে দেশটিতে প্রায় কয়েকশত বাঙালি মিসরীয় মে’য়েকে বিয়ে করেছেন। এ সংখ্যা প্রতিনিয়তই বাড়ছে।

এমনই একজন হচ্ছেন বরিশাল বাবুগঞ্জ থা’নার পূর্ব কেদারপুর গ্রামের আব্দুল লতিফ হাওলাদারের ছে’লে প্রবাসী বাংলাদেশী সজল হাওলাদার। কঠোর পরিশ্রমী সজল ২০১০ সালে মিশরে আসেন জীবিকার খোঁজে।আসার পর তিনি কায়রো শহরের আলমা’রজ, টেনথ রমাদান সিটিসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ শহরে বিভিন্ন ইন্ডাস্ট্রিতে প্রায় তিন বছর চাকরি করেছেনে।

তারপর কায়রো শহরে ঘুরতে এসে পৃথিবীর বিখ্যাত হোসেন ম’সজিদের পাশে মিসরের সাবেক রাজধানী আলেকজান্দ্রিয়ার মেয়ের নোহার সাথে তার পরিচয় হয়। সেই পরিচয় থেকে ধীরে ধীরে প্রে’ম, এবং তারও পর বিয়ে। পরবর্তীকালে সজল হাওলাদার সেই মিশরীয় রমনির হাত ধরে, তার সহযোগিতায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য আলেকজান্দ্রিয়া শহরে তিল তিল করে গড়ে তুলেছেন একটি বাংলা রেস্টুরেন্ট।

লোহিত সাগরের তীরবর্তী অঞ্চলে একটি সুন্দর এবং মনোরম পরিবেশে গড়ে ওঠা এই রেস্টুরেন্টে বাংলাদেশী সব ধরনের খাবার পাওয়া যায়।পুরো মিশরজুড়ে তাদের এই রেস্টুরেন্টটি এরই মধ্যে অনেক সুনাম কুড়িয়েছে। সেখানেই একদিন এই দম্পতির সঙ্গে কথা হয় এই প্রতিবেদকের। সজল ও তার স্ত্রী’ নোহার কাছে জানতে চেয়েছিলাম তাদের প্রে’ম ও বিয়ের কথা। নোহা বলেন, স’ম্পর্কটা আল্লাহ কখনো মানচিত্র দেখে নির্ধারণ করেন না।

কে বাঙালি, কে চায়নিজ- এসব কোন বিষয় নয়। আল্লাহ শুধু দেখেন আমাদরে নফস। অন্তরের মিলের কারণেই স’ম্পর্ক তৈরি হয়। নিজেদের স’ম্পর্কের কথা বলতে যেয়ে নোহা জানান, মিশর ও বাংলাদেশ দুটি ভিন্ন দেশ ভিন্ন সংস্কৃতি হলেও আমাদের মৌলিক মিলটি ছিল ধ’র্ম। আম’রা উভ’য়েই মু’সলিম। সেটাই আমাদের স’ম্পর্কের মূল ভিত্তি।তিনি বলেন, আগে আমি বাংলাদেশ স’ম্পর্কে তেমন কিছুই জানতাম না। আমি তাকে (সজলকে) তার পরিষ্কার মনের কারণে ভালোবেসেছি।

আর এখন তাকে আমি স্বামী হিসাবে খুব ভালোবাসি।এর মাঝে নোহা বাংলাদেশেও এসেছেন। বাংলাদেশকে তিনি অ’ভিহিত করেছেন একটি ন্যাচারাল এবং জাদুকরি দেশ হিসাব। তার কাছে ভালো লেগেছে বাংলাদেশের শিক্ষা পদ্ধতি। বিশেষ করে ছে’লেমে’য়েদের এক সাথে পাঠদানের বিষয়টি তাকে মুগ্ধ করেছে বলে জানান তিনি।বাংলাদেশী খাবারের মধ্যে নোহার প্রিয় হচ্ছে- পুই শাক, চিংড়ি মাছ ভর্তা, আলু ভর্তা, টমেটো ভর্তাসহ সব ধরনের ভর্তা। মিশরে অবস্থানরত

যে সকল বাংলাদেশী যুবক মিশরীয় নারীদের প্রতি আগ্রহী তাদের প্রতি একটি উপদেশ উচ্চারণ করেন নোহা। বলেন, এদেশে থাকা সমস্ত বাংলাদেশী পুরুষ এবং মিসরীয় নারীদেরকে আমি বলবো যদি তুমি আল্লাহকে ভয় করো, যদি গভীরভাবে প্রে’ম করতে পারো, তাহলে বিয়ে করো, আর যদি পরস্পরকে গভীরভাবে ভালবাসতে না পারো তাহলে বিয়ে করো না।কোন বাংলাদেশির যদি দেশেও বউ থাকে, আবার এখানেও বিয়ে করতে চায়, তাহলে এই জুলুমটা যেন কোন দেশের নারীর উপর না হয়। আমি দূতাবাসের কাছে বলব তারা যেন বাংলাদেশের

মানুষকে এখানে বিয়ে করার অনুমতি দেয় । শুধু বাংলাদেশ নয় পা’কিস্তান ও ভা’রতীয়দেরও যেন অনুমতি দেওয়া হয়।

Categories
Uncategorized

৫৯ পৌরসভায় প্রার্থী চূড়ান্ত করলো বিএনপি

তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠেয় আরও ৫৯ পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে বিএনপি। মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে

এ তথ্য জানানো হয়। রংপুর বিভাগের মনোনীত প্রার্থীরা হলেন— দিনাজপুরের হাকিমপুরে মো. সাখাওয়াত হোসেন শিল্পী, নীলফামারীর জলঢাকায় মো. ফহমিদ ফয়সাল চৌধুরী, কুড়িগ্রামের উলিপুরে হায়দার আলী মিঞা ও গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে মো. ফারুক আহম্মেদ।

রাজশাহী বিভাগের মনোনীত প্রার্থীরা হলেন— বগুড়ার ধুনটে মো. আলীমুদ্দিন হারুন মন্ডল, শিবগঞ্জে মো. মতিয়ার রহমান (মতিন), গাবতলীতে মো. সাইফুল ইসলাম, কাহালুতে মো. আব্দুল মান্নান ও নন্দীগ্রামে সুশান্ত কুমার সরকার; চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুরে তারিক আহমদ; নওগাঁর ধামইরহাটে মো. মাহবুবুর রহমান চৌধুরী ও নওগাঁ সদর

পৌরসভায় মো. নাজমুল হক (সানি); রাজশাহীর কেশরহাটে মো. খুশবর রহমান; নাটোরের সিংড়ায় মো. তায়জুল ইসলাম; এবং পাবনা সদর পৌরসভায় নুর মোহাম্মাদ মাছুম (বগা)। খুলনা বিভাগের প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন— চুয়াডাঙ্গার দশর্নায় মো. হাবিবুর রহমান, ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুতে মো. জিন্নাতুল হক, ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে এস কে এম সালাহউদ্দীন বুলবুল, যশোরের মনিরামপুরে শহীদ মো. ইকবাল

হোসেন, নড়াইলের সদর পৌরসভায় মো. জুলফিকার আলী ও কালিয়ায় এস এম ওহিদুজ্জামান, বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে ফরহাদ হোসেন, খুলনার পাইকগাছায় মো. মনিরুজ্জামান, সাতক্ষীরার কলারোয়ায় শেখ শরিফুজ্জামান এবং বরগুনার সদর পৌরসভায় অ্যাডভোকেট মোহাম্মাদ আবদুল হালিম ও পাথরঘাটায় মো. সাহাবউদ্দিন (সাকু)।

বরিশাল বিভাগের পৌরসভায় বিএনপির মনোনীতরা হলেন— ভোলার বোরহানউদ্দিনে মো. মনিরুজ্জামান ও দৌলতখানে মো. আনোয়ার হোসেন, বরিশালের গৌরনদীতে মোহাম্মদ জহির সাজ্জাদ ও মেহেন্দীগঞ্জে মো. জিয়াউদ্দিন সুজন, ঝালকাঠির নলছিটিতে মো. মজিবুর রহমান এবং পিরোজপুরের স্বরূপকাঠিতে মো. শফিকুল ইসলাম ফরিদ।

ঢাকা বিভাগের মনোনীত প্রার্থীরা হলেন— টাঙ্গাইল সদর পৌরসভায় মো. মাহমুদুল হক, মির্জাপুরে মো. শফিকুল ইসলাম, ভূয়াপুরে মো. জাহাঙ্গীর হোসেন ও সখীপুরে মো. নাসিরউদ্দিন; কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে মো. তোফাজ্জল হোসেন খাঁন; মুন্সীগঞ্জের সদর পৌরসভায় আলহাজ শহিদুল ইসলাম; রাজবাড়ীর পাংশায় মো. রইজউদ্দিন খান; শরীয়তপুরের নড়িয়ায় সৈয়দ রিন্টু; এবং শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে বি এম মোস্তাফিজ ও জাজিরায় মাজহারুল ইসলাম রনী।

ময়মনসিংহ বিভাগের মনোনীত প্রার্থীরা হলেন— জামালপুরের সরিষাবাড়িতে এ কে এম ফয়জুল কবীর তালুকদার শাহীন; শেরপুরের নকলায় মো. এনামুল হক রিপন ও নালিতাবাড়িতে মো. আনোয়ার হোসেন; ময়মনসিংহের গৌরীপুরে মো. আতাউর রহমান, ত্রিশালে রুবায়েত হোসেন শামীম ও ঈশ্বরগঞ্জে শরীফ মোহাম্মদ জুলফিকার আল টিপু; এবং নেত্রকোনার দুর্গাপুরে মোহা. জামালউদ্দিন।

সিলেট বিভাগের পৌরসভাগুলোতে বিএনপি মনোনীত প্রার্থীরা হলেন— সিলেটের গোলাপগঞ্জে গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী ও জকিগঞ্জে ইকবাল আহমদ তাপাদার এবং মৌলভীবাজারের সদর পৌরসভায় মো. অলিউর রহমান। চট্টগ্রাম বিভাগের সাত পৌরসভায় মনোনয়ন পেয়েছেন—

কুমিল্লার লাকসামে মো. বেলাল রহমান মজুমদার ও বরুড়ায় মো. জসিমউদ্দিন পাটোয়ারী, চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে মো. আব্দুল মান্নান খান, ফেনী সদর পৌরসভায় আলালউদ্দিন আলাল, নোয়াখালীর হাতিয়ায় মোহাম্মদ আবদুর রহিম ও চৌমুহনীতে মোহাম্মদ জহির উদ্দিন এবং লক্ষীপুরের রামগঞ্জে মো. তোফাজ্জল হোসেন চৌ. বাচ্ছু।

বিবৃতিতে জানানো হয়— চূড়ান্তভাবে মনোনীত চট্টগ্রাম, সিলেট ও রংপুর বিভাগের প্রার্থীদের ৩০ ডিসেম্বের সকাল ১১টায়, ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের প্রার্থীদের ৩০ ডিসেম্বের দুপুর ১২টায় এবং রাজশাহী, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের প্রার্থীদের ৩০ ডিসেম্বের দুপুর ২টায় মনোনয়নপত্র হস্তান্তর করা হবে।

গত ১৪ ডিসেম্বর নির্বাচন কমিশনের সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর তৃতীয় ধাপের পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন। তফসিল অনুযায়ী এই ধাপে ৬৪টি পৌরসভার নির্বাচন হবে আগামী ৩০ জানুয়ারি। এ ধাপে পৌরসভাগুলোতে নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহীদের মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ৩১ ডিসেম্বর। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হবে ৩ জানুয়ারি। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১০ জানুয়ারি।

এর আগে, নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা করা তফসিল অনুযায়ী আগামী ১৬ জানুয়ারি সারাদেশের ৬১টি পৌরসভায় দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে ২৯টি পৌরসভায় ইভিএমে এবং ৩২টি পৌরসভায় ব্যালটের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হবে। এর মধ্যে গতকাল সোমবার

(২৮ ডিসেম্বর) প্রথম ধাপে ২৩টি জেলার ২৪টি পৌরসভায় নির্বাচন হয়েছে। এর মধ্যে ভোটের দিন খুলনার চালনা পৌরসভায় বিএনপি মনোনীত প্রার্থীর মৃত্যু হওয়ায় সেখানকার ফলাফল স্থগিত রাখা হয়েছে। বাকি ২৩টি পৌরসভার মধ্যে ১৭টিতে নৌকা প্রতীক নিয়ে জিতেছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী। স্বতন্ত্র প্রার্থীও জয় পেয়েছে তিনটি

পৌরসভায়। রাজশাহীর পুঠিয়া ও হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভাতেই কেবল জয় পেয়েছেন ধানের শীষের প্রার্থী।

Categories
Uncategorized

ইভিএমে ভোট যেখানে দেন না কেন, পড়বে গিয়ে নৌকাতেই : মির্জা ফখরুল

দলীয় প্রতীককে স্থানীয় সরকার নির্বাচন ব্যবস্থা গোটা জাতিকে দু’ভাগে বিভক্ত করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল

ইসলাম আলমগীর। তিনি আরো বলেন, ‘এটা আওয়ামী লীগ সরকারের একটি অপকৌশল। যাতে স্থানীয় সরকার নির্বাচনেও তাদের দখলদারিত্ব বজায় থাকে এবং তারা সেটাই করছে। কিন্তু দেশের জনগণ এ নির্বাচন ব্যবস্থাকে পছন্দ করে না।

‘ মঙ্গলবার সকালে ঠাকুরগাঁও শহরের কালিবাড়িস্থ নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। সোমবার অনুষ্ঠিত প্রথম দফা পৌরসভা নির্বাচনের ব্যাপারে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বরাবরের মতো এবারো নির্বাচন কমিশন পৌর নির্বাচন নিয়ে মিথ্যাচার করেছে। এসব কোনো নির্বাচনই নয়। সব সাজানো নাটক।

সরকারের পরিকল্পনা মাফিক তারা কাজ করছে। দেশের মানুষ এখনো ইভিএম কী জিনিস তা ভালো করে চেনে না। অথচ তাদের বাধ্য করা হচ্ছে ইভিএমে ভোট দিতে। ইভিএমে ভোট যেখানেই দেন না কেন, পড়বে গিয়ে নৌকাতেই। সেভাবেই প্রোগ্রাম সেট করা থাকে। আসলে নির্বাচন কমিশনে যারা আছে তারা সবাই চোর।’

তিনি আরো বলেন, ‘সরকার নির্বাচনে জিতে ক্ষমতায় নেই। আমলাতন্ত্র আর পুলিশকে ব্যবহার করে জনগণের ওপর জুলুম নির্যাতন চালিয়ে ক্ষমতায় টিকে আছে। তাদের জুলুম নির্যাতন থেকে রক্ষা পেতে জনগণকে ঐকবদ্ধভাবে তাদের প্রতিহত করতে হবে।

এ সময় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আক্তারজ্জামান, ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মির্জা ফয়সল আমিন, সহ-সভাপতি আল-মামুন আলম, সহ-সভাপতি নুর শাহাদাৎ স্বজন, সদর সাধারণ সম্পাদক

আব্দুল হামিদ, জেলা যুবদল সাধারণ সম্পাদক মাহবুব হোসেন তুহিন, অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদিন উপস্থিত ছিলেন।

Categories
Uncategorized

বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশে ব্যাপক উত্তেজনা, ৩০-৩৫ নেতাকর্মী আটক

২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বরের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দুই বছর পূর্তি উপলক্ষে দিনটিকে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ আখ্যা দিয়ে একাদশ

জাতীয় নির্বাচন বাতিল ও পুনর্নির্বাচনের দাবিতে কেন্দ্রঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে সারা দেশে বিক্ষোভ সমাবেশ করছে বিএনপি। এরই ধারাবাহিকতায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে ৩০-৩৫ জন নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার (৩০

ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টা থেকেই বিএনপি ও এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা প্রেসক্লাবের সামনে এসে জড়ো হতে থাকে। কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরাও সকাল থেকেই সতর্ক অবস্থান নেয়। বেলা ১১টায় কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে কর্মসূচি শুরু হয়।

কর্মসূচি শুরু হওয়ার পর নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে মিছিল সহকারে বিএনপি ও অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা যখন প্রেসক্লাবের সামনে এসে উপস্থিত হচ্ছিলেন তখন পুলিশের সাথে হালকা উত্তেজনা তৈরি হয়। এসময় বিএনপির নেতাকর্মীরা কিছুটা ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়ে এবং জাতীয় প্রেসক্লাবের আশপাশের সড়কে তারা অবস্থান নেয়। বিএনপির কর্মসূচির কারণে প্রেসক্লাব ঘিরে আশপাশের সড়কগুলোতে সকাল থেকেই

তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়েছে। বিক্ষোভ কর্মসূচিতে বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিব উন-নবী খান সোহেলের সভাপতিত্বে যোগ দিয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভুইয়া

জুয়েল, ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ও কৃষকদলের সদস্য সচিব কৃষিবিদ হাসান জাফির তুহিন প্রমুখ।

Categories
Uncategorized

৩৪ কোটি ৮৯ লাখ টাকা আত্মসাৎ, সাঈদ খোকনসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

রাজধানীর ফুলবাড়িয়া সুপার মার্কেট-২ এ নকশাবহির্ভূত দোকান বরাদ্দে ৩৪ কোটি ৮৯ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ঢাকা দক্ষিণ সিটি

করপোরেশনের (ডিএসসিসি) সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনসহ সাতজনের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলাটি তদন্ত করে পিবিআইকে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) ঢাকা মহানগর হাকিম আশেক ইমাম ৩১ জানুয়ারির মধ্যে পিবিআইকে

তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। এর আগে মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) ঢাকা মহানগর হাকিম আশেক ইমামের আদালতে মার্কেটের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন এ মামলা করেন। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে আদেশের জন্য বুধবার দিন ধার্য করেন। আদালতের পেশকার মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রাজধানীর ফুলবাড়িয়া সুপার মার্কেট-২ এ নকশাবহির্ভূত দোকান বরাদ্দে ৩৪ কোটি ৮৯ লাখ টাকা আত্মসাতের

Categories
Uncategorized

৩টি তক্ষকের দাম সাড়ে ৩ কোটি

বরগুনার পাথরঘাটায় সাড়ে তিন কোটি টাকা মূল্যের তিনটি বিরল প্রজাতির ত’ক্ষকসহ মো: চুন্নু মিয়া (৫০) নামের এক ব্যক্তিকে আ’টক

করেছে পাথরঘাটা স্টেশনের কোস্টগার্ড। মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার চরদুয়ানী ইউনিয়নের দক্ষিণ চরদুয়ানী এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে তাকে আ’টক করা হয়। আটক চুন্নু মিয়া একই এলাকার আব্দুল লতিফ আকনের ছেলে।

কোস্টগার্ড পাথরঘাটা স্টেশনের লেফটেন্যান্ট মো: ফাহিম শাহরিয়ার জানান, ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি ব’ন্য প্রাণী পাচার করছে কিছু দু’ষ্কৃতিকারী, পরে অভিযান চালিয়ে পাথরঘাটার দক্ষিণ

চরদুয়ানী এলাকা থেকে তিনটি ত’ক্ষকসহ চুন্নু মিয়া নামের ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। তক্ষ’কগুলো বনবিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এই ত’ক্ষকগুলোর দাম প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা হতে পারে। বন বিভাগের পাথরঘাটা রেঞ্জ কর্মকর্তা মো: মনিরুল

হক ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আটক তক্ষ’কগুলো পাথরঘাটার সংরক্ষিত বনে অবমুক্ত করা হবে।

Categories
Uncategorized

ট্রেনের যাত্রীদের প্রা’ণ বাঁ’চানো সেই ছাত্র পেল পুরস্কার

হঠাৎ বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিয়ে নিশ্চিত ট্রেন দু’র্ঘটনার হাত থেকে শত শত যাত্রীকে রক্ষা করা জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজে’লার সেই স্কুলছাত্র

সাজিদকে পুরস্কৃত করা হয়েছে। বুধবার উপজে’লা পরিষদের পক্ষ থেকে নগদ অর্থ সাজিদ ও তার বাবা-মায়ের হাতে তুলে দেন পরিষদের চেয়ারম্যান মনিরুল শহীদ মুন্না। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজে’লা নির্বাহী অফিসার বরমান হোসেন, উপজে’লা প্রকৌশলী আব্দুল কাইয়ুম ও

প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নূর-এ-শেফা। গত রোববার উপজে’লার খাসবাগুরী গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে কি’শোর সাজিদ রেললাইনের পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় দেখতে পায় লাইন ভে’ঙে ফাঁক হয়ে গেছে। এ সময় পঞ্চগড় থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী দ্রুতযান ট্রেনটি আসতে দেখে বি’ষয়টি তার মাকে বললে ছেলেকে লাল কাপড় উড়াতে বলেন তিনি। এ সময় শরীরে থাকা লাল গেঞ্জিই বাঁশের মাথায় জড়িয়ে

উড়াতে থাকে সাজিদ। এ সময় চালক বি’ষয়টি দেখে ট্রেনটি থামায়। এভাবে ট্রেনের শত শত যাত্রীর প্রা’ণ রক্ষা করে সে।

Categories
Uncategorized

স্বামীর করোনা স্ত্রী বাপের বাড়ি চলে যাওয়ায় সুস্থ হওয়ার যা হল!

নিজের স্বা’মী অ’সুস্থ আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন ক’রো’ নায়, দিনদিন স্বা’মীর অবস্থা খা’রাপ হওয়ায় নিজের জীবন বাঁচাতে বউ চলে যায় মায়ের

বাড়ি।স্বা’মীকে একা রেখে দুঃসময়ে বউ পাশে না থেকে মায়ের বাড়ি চলে যাওয়ায় ক্রু’দ্ধ হলেন স্বা’মী। অনেক ক’ষ্ট বুকে নিয়ে বউয়ের কাছে বারবার ফোন করেও বউ ফিরে না আসায় , নিজেকেই একাই ক’রো’নার সাথে যু’দ্ধ করে সুস্থ ‘’হতে হয়েছে।এই সুস্থ হবার পর থেকে

যত বিপত্তি শুরু। সুস্থ হবার পরও, বউয়ের কাছে শ্বশুর বাড়িতে ফোন করেছিলেন কয়েকবার পরীক্ষা করলেন বি’পদমুক্ত আসলে আসে কিনা। ওদিকে বউয়েরও?শেষ কথা তোমা’র ক’রো না হয়েছে তোমা’র সাথে থেকে আমিও মর’তে পারবো না মর’লে তুমি একাই মর’ো।স্বা’মীর যখন বউ কে পরীক্ষা করা শেষ তখন ক’রো’না থেকে পুরোপুরি সুস্থ

হয়ে বউকে তালাক দিয়ে সব ঘ’টনা আবার বউকে খুলে বলে। তারপর বউ আবারো স্বা’মীর কাছে ছুটে আসতে চায়। স্বা’মীর একই কথা তুমি সু’খের সাথী দুঃখের সাথী নও তাই তোমাকে আমা’র বউ হিসেবে রাখব না আর গ্রহণ করব না। তুমি তোমা’র বাবার বাড়িতে থাকো।ঘ’টনাটি ঘটেছে ঝালকাঠি জে’লার রাজাপুর ইউনিয়নের। এই ঘ’টনার পরপর বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই তালাক দেওয়া স্বা’মীর পক্ষ নিচ্ছেন

আবার অনেকেই বলছেন না বৌকে বুঝিয়ে স্বা’মীকে বুঝিয়ে আবার সংসার করার কথা। এখন আপনাদের মন্তব্য জানার অ’পেক্ষায় রইলাম। নিজ দায়িত্বে মন্তব্য করুন আপনার মন্তব্যর জন্য আপনি সকল। তবে এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘ’টনা কাম্য নয়। পারবো না মর’লে তুমি একাই মর’ো।স্বা’মীর যখন বউ কে পরীক্ষা করা শেষ তখন ক’রো’না থেকে পুরোপুরি সুস্থ হয়ে

বউকে তালাক দিয়ে সব ঘ’টনা আবার বউকে খুলে বলে। তারপর বউ আবারো স্বা’মীর কাছে ছুটে আসতে চায়। স্বা’মীর একই কথা তুমি সু’খের সাথী দুঃখের সাথী নও তাই তোমাকে আমা’র বউ হিসেবে রাখব না আর গ্রহণ করব না। তুমি তোমা’র বাবার বাড়িতে থাকো।ঘ’টনাটি ঘটেছে ঝালকাঠি জে’লার রাজাপুর ইউনিয়নের। এই ঘ’টনার পরপর বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই তালাক দেওয়া স্বা’মীর পক্ষ নিচ্ছেন আবার অনেকেই বলছেন না বৌকে বুঝিয়ে স্বা’মীকে বুঝিয়ে আবার সংসার করার কথা। এখন আপনাদের মন্তব্য জানার অ’পেক্ষায় রইলাম।

নিজ দায়িত্বে মন্তব্য করুনআপনার মন্তব্যর জন্য আপনি সকল। তবে এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘ’টনা কাম্য নয়।