Categories
Uncategorized

ভাস্কর্য নিয়ে স্ট্যাটাস, আরেক ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাস্কর্য নিয়ে স্ট্যাটাস দেয়ার পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের ছাত্রবৃত্তি বি’ষয়ক

সম্পাদক খালেদ খান রবিনকে স্থায়ী ব’হিষ্কার করেছে সংগঠনটি। শনিবার সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বি’ষয়টি জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী

সং’সদের এক জরুরি সি’দ্ধান্ত মোতাবেক জানানো যাচ্ছে যে, সংগঠনের নীতি-আদর্শ ও শৃঙ্খলা পরিপন্থি কার্যকলাপে জড়িত থাকায় খালেদ খান রবিনকে (ছাত্রবৃত্তি বি’ষয়ক সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা) বাংলাদেশ ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ী ব’হিষ্কার করা হলো। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজের প্রোফাইল খালেদ লিখেছেন, বঙ্গবন্ধুর প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা রেখে, বঙ্গবন্ধুকে

ভালোবেসে, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণের বি’রোধীতা করছি। ‘একটা কথা স্পষ্ট হওয়া উচিত যে, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণের বি’রোধিতা করা আর বঙ্গবন্ধুর বি’রোধিতা করা এক বি’ষয় না। আর এই একটি কথার জন্য যদি ছাত্রলীগের জন্য দেয়া আমার হাজার দিনের শ্রম এক নিমিষেই শেষ হয়ে যায়, তাহলে… আলহাম’দুলিল্লাহ।’ ভাস্কর্য ইস্যুতে কুরআনের পক্ষে যুক্তি দিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস: স্থায়ীভাবে বহিষ্কার ছাত্রলীগ নেতা
ভাস্কর্য ইস্যুতে কুরআনের পক্ষে যুক্তি দিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার জেরে কবির হোসাইন

নামে ছাত্রলীগের এক নেতাকে স্থায়ী ব’হিষ্কার করা হয়েছে। বহিস্কৃত কবির হোসাইন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কবি জসীম উদদীন হল শাখার ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। কবির হোসাইনকে স্থায়ীভাবে ব’হিষ্কারে বি’ষয়টি নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে তোলপাড় শুরু হয়েছে। ভাস্কর্য ইস্যুতে কুরআন-সুন্নাহের পক্ষে কথা বলায় কবির হোসাইনকে ব’হিষ্কার করায় ছাত্রলীগের ব্যাপক সমালোচনা করছেন অনলাইন এক্টিভিস্টরা। অনেকেই আবার শুভ কামনা জানিয়েছেন কবির হোসাইনকে।

কেউ কেউ লিখেছেন কোন অ’পরাধের কারণে কাউকে বহিস্কার করতে হলে তাকে প্রথমে সাময়িক ব’হিষ্কার করা হয় কিন্তু সত্য কথা বলায় অ’পরাধী বানিয়ে আপনাকে স্থায়ী ব’হিষ্কার করা হয়েছে, আপনি সত্যের জন্য দুনিয়ার সামান্য পদ হারালেও পরকালে আপনার জন্য ভালো কিছু অপেক্ষা করছে। অনেকেই লিখেছেন দেশের আপামর জনতার ভালোবাসা আপনার সাথে কবির হোসাইন।

শনিবার রাত ১০টায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সং’সদের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ ব’হিষ্কারাদেশ দেয়া হয় বলে জানা গেছে। ব’হিষ্কারাদেশে বলা হয়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সং’সদের এক জরুরি সি’দ্ধান্ত মোতাবেক জানানো যাচ্ছে যে, সংগঠনের নীতি আদর্শ ও শৃঙ্খলা পরিপন্থী কার্যকলাপে জ’ড়িত থাকায় কবির হোসাইন, (যুগ্ম-

সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কবি জসীম উদ্দীন হল শাখা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়) কে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ী ব’হিষ্কার করা হলো। জানা গেছে, কবির হোসাইন সম্প্রতি তার ফেসবুক আইডিতে ভাস্কর্য ইস্যুতে নিরপেক্ষ যুক্তি দিয়ে কুরআনের পক্ষে অবস্থান নিয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন। সেখানে এক জায়গাতে তিনি উল্লেখ করেন, “মামুনুল হক যদি কুরআনের ভু’ল ব্যাখ্যা করে, তার কণ্ঠনালী কে’টে দাও, যদি কুরআন ভাস্কর্যের বি’রুদ্ধে কথা বলে, আল্লাহ এটাকে হারাম করে, তবে কোন বাপের বেটা এটাকে হালাল করার সাহস রাখে?

কুরআনের বি’রোধিতা যেই করবে তার বি’রুদ্ধে দাঁড়াতে ১ সেকেন্ডও অপেক্ষা করবে না ঈমানদাররা! হোক সে মামুমুল হক, মুজিব, জিয়া! হোক সে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, বামাতি বা জামাতি!” এই পোস্টের উপর ভিত্তি করেই মূ’লত কবির হোসাইনকে সংগঠন থেকে স্থায়ী ব’হিষ্কার করা হয়। এ বি’ষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি এবং জসীম উদ্দীন হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ আরিফ হোসেন বলেন, কবির হোসাইন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে অবমাননা করে ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে সংগঠনের নীতি ও আদর্শ বি’রোধী কর্মকাণ্ডে

জড়িয়েছে৷ এ কারণে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সং’সদ তাকে সংগঠন থেকে স্থায়ী ব’হিষ্কার করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *