Categories
Uncategorized

৩০ টাকার লটারিতে কোটিপতি ভ্যানচালক রমজান আলি

মাত্র ৩০ টাকাই বদলে দিয়েছে ভ্যানচালকের জীবন। পশ্চিমবঙ্গের মালদহের মানিকচক থানার নূরপুর গ্রামের রমজান আলি (৫০) এখন

কোটিপতি। লটারির টিকিটও যে এভাবে ভাগ্য বদলে দিতে পারে তা স্বপ্নেও ভাবেননি রমজান আলি। নুন আনতে পান্তা ফুরানো সংসারে এখন হাসির ঝিলিক। জানা গেছে, অনেক বছর আগে আগ্রাসী গঙ্গার ভাঙনে ভিটেমাটি হারান রমজান। সংসার নিয়ে বাঁধের ধারে একটি ঝুপড়িতে

বাস করছেন তিনি। বর্তমানে স্থানীয় সড়কে ম্যাজিকভ্যান চালিয়ে পরিবারের খরচ সামলান রমজান। হঠাৎ রাতারাতি বদলে গেল সবকিছু। ম্যাজিকভ্যানের চালক থেকে এখন কোটিপতি রমজান আলি। লটারিতে প্রথম পুরস্কার জেতার পর রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে পড়েন এই দিনমজুর। এলাকার দুর্বৃত্তরা তার লটারির টিকিট কেড়ে নিতে পারে, এমন আশঙ্কাও ছিল। খবর পেয় বৃহস্পতিবার রাতেই তার বাড়িতে পুলিশ

প্রহরার ব্যবস্থা করেন মানিকচক থানার ওসি কুণালকান্তি দাস। এ ঘটনায় নূরপুর এলাকায় এখন শোরগোল পড়ে গেছে। ভারতের সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, রমজান আলি ম্যাজিকভ্যানের চালক। তিনি পরিবার নিয়ে নূরপুর গ্রামের রাস্তার ধারে সরকারি খাসজমিতে এক চিলতে চাটাই, টালির ঘরে বসবাস করেন। পরিবারে স্ত্রী, চার ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে।

রমজান আলি বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুরে গাড়ি ভাড়ার সুবাদে দেড়শো টাকা বকশিস পেয়েছিলাম। সেখান থেকে ৩০ টাকা দিয়ে একটি লটারি টিকিট কেটেছিলাম। বিকেলে সেই লটারি খেলা ছিল। তাতে আমার ভাগ্য বদলে দেবে ভাবতেই পারিনি। তিনি বলেন, নূরপুর স্ট্যান্ডে টিকিট কেটে ছিলাম। সেখানকার দোকানদারই শোরগোল শুরু করে দেয় আমি এক কোটি টাকার প্রথম পুরস্কার পেয়েছি। ভাগ্যের চাকার বদলে খুশি রমজান আলি। নিজের বাড়ি

তৈরি করার পাশাপাশি এলাকায় একটি স্কুল তৈরির জন্য ১০ লাখ টাকা দান করবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *