Categories
Uncategorized

কক্সবাজারে সমুদ্র সৈকত তৈরি হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর বালি ভাস্কর্য

সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারে নির্মিত হচ্ছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বালি ভাস্কর্য। এই প্রথম সৈকতের বালিয়াড়িতে বঙ্গবন্ধুর

সর্ববৃহৎ কোনো ভাস্কর্য। কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর ও অবমাননার প্রতিবাদে এবং জাতির পিতার জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের সহায়তায় এই ভাস্কর্য নির্মাণ করছে ব্র্যান্ডিং কক্সবাজার। কক্সবাজারের বালিয়াড়িতে আঙুল উঁচিয়ে আছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তার

পাশে লেখা আছে ‘এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’। সৈকতের লাবণী পয়েন্টে দিনরাত এক করে বঙ্গবন্ধু’র ভাস্কর্য নির্মাণে কাজ করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউটের ১০ জন শিক্ষার্থী। যা বিশ্বের প্রথম ও সর্ববৃহৎ বঙ্গবন্ধু’র বালি ভাস্কর্য। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য অপসারণের ধৃষ্টতা আর যাতে কেউ না দেখায় তার প্রতিবাদেই এই ভাস্কর্য নির্মাণ করা হয়েছে বলে জানালেন আয়োজকরা। ব্র্যান্ডিং কক্সবাজারে সমন্বয়ক

ইশতিয়াক আহমেদ জয় বলেন, ‘ধর্মান্ধ এবং উগ্রবাদীদেরকে একটি বার্তা পৌঁছে দিতে চাই, তারা যেন বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য গুঁড়িয়ে দেওয়া কিংবা অপসারণের মতো ধৃষ্টতা না দেখায়।’ সোমবার (১৪ ডিসেম্বর) বিকেলে ভাস্কর্য নির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করে জেলা প্রশাসক জানান, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের প্রতিবাদে অভিনব উদ্যোগ এটি।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামাল হোসেন বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। আমাদের জাতির পিতার ভাস্কর্য বাংলাদেশে থাকবে। আমাদের জাতির পিতার অস্তিত্ব পৃথিবী যতদিন আছে ততদিন থাকবে।’ প্রায় ৮ লাখ টাকা ব্যয়ে বঙ্গবন্ধুর এই বালু ভাস্কর্য নির্মাণ করছে ব্র্যান্ডিং কক্সবাজার।

আগামী ১৬ ডিসেম্বর মানববন্ধন, নীরবতা পালনের মধ্য দিয়ে দর্শনার্থীদের জন্য ভাস্কর্য ২টি উন্মুক্ত করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *