Categories
Uncategorized

নরমাল ডেলি’ভারিতে স’ন্তান জ’ন্মের পর রোগীকে জো’র করে সি’জার করলেন ডাক্তার

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে নরমালে স’ন্তান ডেলিভারি হওয়ার পর রাণী বেগম নামে এ প্র’সূতিকে জো’র করে সি’জার করার অ’ভিযোগ পাওয়া

গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে কালীগঞ্জ শহরের একটি প্রাইভেট হা’সপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে।এমন অ’ভিযোগে বুধবার সকালে প্র’সূতির স্বা’মী আল-আমিন কালীগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অ’ভিযোগ করেন। রাণী বেগম ঝিনাইদহ সদর উপজেলার কয়ারগাছি গ্রামের আল-আমিনের

স্ত্রী। লিখিত অ’ভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, ১৫ ডিসেম্বর রাতে রাণী বেগমের প্রসব বে’দনা শুরু হলে কালীগঞ্জ শহরের একটি প্রাইভেট হা’সপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভর্তি করা হয়। এ সময় উপস্থিত ডাক্তার রোকসানা পারভিন ইলোরা বলেন দ্রুত অ’পারেশন করতে হবে। না হলে প্র’সূতি ও স’ন্তানকে বাঁ’চানো যাবে না। এ সময় অ’পারেশনের জন্য ১২ হাজার টাকা চুক্তি হয়। কিছুক্ষণ পরেই রো’গীকে

অ’পারেশন থিয়েটারে নেয়া হয় কিন্তু সি’জারের আগেই নরমাল ডেলিভারির মাধ্যমে পুত্র স’ন্তানের জন্ম হয়। তারপরও জো’রপূর্বক ডাক্তার ও ম্যানেজার মাসুদ হোসেন সি’জার করতে যায়। প্রসূতি অ’পারেশনে বা’ধা দিলে ম্যনেজার রো’গীকে কয়েকটি চ’ড়-থা’প্পড় দিয়ে বলেন- তুই কি ডাক্তারের থেকে বেশি বুঝিস। বেশি কথা বললে চিরদিনের জন্য ঘু’ম পাড়িয়ে দেব। এরপর জো’রপূর্বক অ’জ্ঞান করে সি’জার করে।

প্রসূতির স্বা’মী আল আমিন বলেন, অপ্রয়োজনে আমার স্ত্রী’কে মা’রধ’র ও অ’পারেশন করা হয়েছে। আমার অ’সুস্থ স্ত্রী’কে অ’মানবিকভাবে মা’রধ’র ও হ’/ত্যার হু’মকির বি’চার দা’বি করছি। ওই প্রাইভেট হা’সপাতালে গিয়ে অ’ভিযুক্ত ডাক্তার ও ম্যানেজার মাসুদকে পাওয়া যা’য়নি। তবে হা’সপাতালের মালিক ফিরোজ হোসেন জানান, বাচ্চা নরমালেই ডেলিভারি হয়েছে। তবে রো’গীর অ’তিরিক্ত র’ক্তক্ষ’রণ হচ্ছিল। ফলে র’ক্ত ব’ন্ধ করতেই সি’জার করা হয়েছিল। কালীগঞ্জ থানার ওসি মাহফুজুর রহমান

জানান, অ’ভিযোগ পেয়েছি। ত’দন্ত করে দেখছি। ত’দন্তে দো’ষী প্রমাণিত হলে প্রয়োজনীয় ব্য’বস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *