Categories
Uncategorized

সৌদি আরবের প্রখ্যাত সেই নারী অধিকার কর্মীর কা’রাদণ্ড

আন্তর্জাতিক অঙ্গনের চাপকে পাশ কাটিয়ে উপসাগরীয় দেশ সৌদি আরবের প্রখ্যাত নারী অধিকার কর্মী লুজাইন আল-হাথলুলকে পাঁচ বছর

আট মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) সৌদির সন্ত্রাসবাদ আদালত এ রায় দেন।এ রায়ের নিন্দা জানিয়ে তাকে মুক্তি দিতে জোর আহ্বান জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মহল। সোমবারের রায়ে আদালত জানান, হাথলুল সৌদির রাজনৈতিক ব্যবস্থায় রদবদল,

জনসাধারণের শৃঙ্খলার ক্ষতি, বিদেশি এজেন্ডা বাস্তবায়নে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। তবে রায়ের বিরুদ্ধে আগামী ৩০ দিনের জন্য আপিলের সময় পাবেন এই নারী অধিকার কর্মী। ৩১ বছর বয়সী হাথলুল-কে ২০১৮ সাল থেকে কা;রা;;গারে বন্দি করে রাখা হয়েছে। এ জন্য দুই বছর ১০ মাসের সাজা মওকুফ করেছেন আদালত। ওই সময় আরো বেশ কয়েকজন সৌদি নারী অধিকার কর্মীকেও

একই অভিযোগে কারাগারে পাঠানো হয়। দীর্ঘদিন কারাবাসে থাকা হাথলুলকে মুক্তি দিতে নানা সময় আহ্বান জানিয়েছে আসছে মার্কিন কংগ্রেস এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের আইনপ্রণেতারা। বেশ কয়েকটি মানবাধিকার সংগঠন অভিযোগ তুলেছে যে, হাতলুলকে কারাগারে নানাভাবে যৌন হয়রানি করা হচ্ছে। একই অভিযোগ তুলে তাকে মুক্তি দিতে সৌদি সরকাররের কাছে বার বার অনুরোধ জানিয়েও কোনো প্রতিকার পায়নি তার পরিবার। মূলত সৌদির রাজপরিবারের শাসন

ব্যবস্থা এবং প্রভাবশালী যুবরাজ সালমানের বিরুদ্ধে কথা বলায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে কারাগারে পাঠানো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *