Categories
Uncategorized

দেড় কিলোমিটার সাঁতরে শি’শুর জীবন বাঁ’চাল পু’লিশ

টানা বৃষ্টিতে ভা’রতের গুজরাটের ভদোদরার বেশ কিছু অঞ্চল ডুবে গেছে। ঘরছাড়া হয়েছে বহু পরিবার। উ’দ্ধারে নেমেছে স্থানীয় প্রশাসন। তবে

এরই মধ্যে পু’লিশের একজন সাব ইন্সপেক্টর গলা পর্যন্ত পানিতে ডুবে দেড় কিলোমিটার সাঁতরে এক শি’শু’কে উ’দ্ধার করার ছবি ভা’ই’রাল হয়েছে।সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ওই ছবিতে দেখা যাচ্ছে, প্রায় পাঁচ ফুট গভীর পানিতে নেমে এক শি’শুকে মা’থায়

গামলায় করে নিয়ে আসছেন সাব-ইন্সপেক্টর গোবিন্দ চাবড়া। প্রায় দেড় কিলোমিটার এভাবেই সাঁতরে যান তিনি। শি’শুটির সঙ্গে তার মাকেও উদ্ধা’র করেন গোবিন্দ।উ’দ্ধারকারী পু’লি’শকর্মী জানান, ভদোদরার দেবীপুরার পরিস্থিতি সামাল দিতে বৃহস্পতিবার সেখানে পৌঁছায় পু’লিশের বিশেষ বাহিনী। সেখানে পৌঁছেই তারা জানতে পারেন,

দেড় বছরের শি’শু ও তার মা ব’ন্যার পানিতে বাড়িতে আ’ট’কে গেছেন। মাকে উ’দ্ধার করা সম্ভব হলেও অ’ত ছোট শি’শুকে উ’দ্ধার করা সহ’জ ছিল না। শি’শুটির মায়ের কাছে একটি প্লাস্টিকের গামলা চেয়ে নেন তিনি। তার পর শি’শুটিকে বসান সেই গামলায়। গামলা মা’থায় নিয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসেন গোবিন্দ।

বেশ কিছুক্ষণ সাঁতরে শি’শুটিকে পৌঁছে দেন নিরাপদ স্থানে। গোবিন্দের কর্তব্যপরায়ণতা ও উপস্থিত বুদ্ধির প্রশংসায় পঞ্চ’মুখ দেবীপুরবাসী।গোবিন্দ বলেন, ওই পরিমাণ পানির মধ্যে শি’শুটিকে হাতে করে বের করা সম্ভব হত না। তাই গামলা জোগাড় করি।দেবীপুরার বাসিন্দাদের উঁচু স্থানে পৌঁছে দেওয়ার কাজ করছে প্রশা’সন। এক পু’লিশকর্মী

জানান, রাস্তার বিভিন্ন অংশে পোলের সঙ্গে বেঁধে দেওয়া হচ্ছে মোটা দড়ি। সেই দড়ি ধরেই চলছে উ’দ্ধারকাজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *