Categories
Uncategorized

উপহারসামগ্রী দিয়ে মেয়েদের প’টাতেন দিহান

বাবার অঢেল টাকা। গ্রামের বাড়িতে বিশাল সম্পত্তি। রাজধানী ঢাকায় নিজস্ব ফ্ল্যাট। আর ছিলো দামি একটি গাড়ি। সব মি’লিয়ে অল্প বয়সী

মেয়েদের প্র’লোভ’নের ফাঁ’দে ফেলা ছিলো দিহানের জন্য মা’মু’লি একটি বিষয়। তার এই প্রলোভনে পড়ে অনেক মেয়েরই স’র্বনা’শ হয়েছে। সবশেষে রাজধানীর কলাবাগানে ইংরেজি মাধ্যমের শিক্ষার্থী ঘটনায় একের পর এক চা’ঞ্চল্য’কর তথ্য বেরিয়ে আসে। বিভিন্ন গণমাধ্যম ও

দিহানের পরিচিতদের সূত্রে জানা গেছে, আনুশকার আগেও একাধিক মে’য়ের স’ঙ্গে প্রেমের সম্প’র্ক ছিলো দিহানের। বাবার অর্থবিত্ত, দামি গাড়ি উপহারসামগ্রী দিয়ে মেয়েদের প্রভাবিত করতো দিহান। তাই বাসা ফাঁকা থাকলেই বন্ধু-বান্ধবীদের নিয়ে আসতেন দিহান। তার বি’রু’দ্ধে এর আগেও বিভিন্ন মেয়েদের সঙ্গে অ’নৈ’তিক ক’র্মকা’ণ্ডে জ’ড়িত

থাকার অ’ভিযো’গ পাওয়া গেছে। কলাবাগানে দিহানের বাসার কেয়ারটেকার মোতালেব এমন তথ্য জানান। তবে তিনি বলেন, বাসা ফাঁকা থাকলে মাঝে মধ্যে দিহান বন্ধু-বান্ধবীদের নিয়ে বাসায় আসলেও জ’ঘ’ন্য ঘটনা ঘটতে পারে তা তিনি ধারণাও করতে পারেননি। আনুশকা নূর আমিন যেদিন শি’কা’র হয় সেদিন মোতালেবের পরিবর্তে কেয়ারটেকার দুলাল দায়িত্ব পালন করছিলেন। দিহানের বাবা সদ্য অবসরপ্রাপ্ত জেলা রেজিস্ট্রার আবদুর রউফ সরকার। তিন সন্তানের মধ্যে

দিহান সবার ছোট। পরিবারের একটু বেশি আ’দ’র পেতেন দি’হান। যে কারণেই দিন দিন তার বখাটেপনা বেড়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *