Categories
Uncategorized

মায়ের সঙ্গে কারাবাসে দুই শিশু, যা ঘটলো তাদের জীবনে

হ”ত্যা”র অ’ভি’যো’গে গ্রে’ফ’তা’র হয়ে কা’রা’গা’রে আছেন বাবা-মা। তবে কোনো দো’ষ না করেও জেলের চার দেয়ালে মায়ের সঙ্গে

বন্দিজীবন কাটাচ্ছে দুই শি’শু। ঘটনাসূত্রে জানা গেছে, গামের্ন্টস কর্মকর্তা হুমায়ুন কবিরকে হ”ত্যা”র অ’ভি’যো’গে গ্রে’ফ’তা’র করা হয় মিম ও আলাউদ্দিনের বাবা ও মাকে। শুক্রবার তারা হ”ত্যা”র দায় স্বীকার করে মানিকগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে

জবানবন্দি দেন। এদিকে গ্রেফতারের সময় দুই সন্তানকে মা-বাবা সঙ্গে করে নিয়ে আসেন। কারণ শি’শু দুটিকে রাখার মতো কোনো স্বজন তাদের ছিল না। আদালত মায়ের জিম্মায় দেন দুই শি’শু’কে। এরপর থেকে তারা মায়ের সঙ্গে একই ওয়ার্ডে রয়েছে। একই কা’রা’গা’রে রয়েছে তাদের বাবাও। কা’রা’গা’রে’র উঁচু ফটকের ভেতরে কাটছে তাদের দিন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দৌলতপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হাসমত আলী জানান, শি’শু দুটির নানা-নানী এবং দাদা জীবিত নেই। দাদি থাকলেও বুড়ো হয়েছে। তাদের এক চাচাকে ফোনে ডাকা হলেও তিনি শি’শু’দে’র নিতে আসেননি। মানিকগঞ্জ কা’রা’গা’রে’র জেল সুপার শহিদুল ইসলাম জানান, শিশু দুটি তার মায়ের সঙ্গে নারী কয়েদি ওয়ার্ডেই আছে। কারাগারে ডে-কেয়ার সেন্টার না থাকলেও খেলাধুলার ব্যবস্থা

আছে। চাইলে সেখানে তারা খেলতে পারবে। ব্যবস্থা আছে পড়াশুনা করারও। শি’শু’দে’র শরীরে শীতের পোশাক নেই জানিয়ে জেল সুপার বলেন আগামীকাল তিনি তাদের দুটি শীতের পোশাক কিনে দেবেন। উল্লেখ্য, জেল কোড অনুসারে কা’রা’গা’রে’র ভেতরে থাকা কোনো শি’শু’র বয়স ছয় পার হলে তাকে বাইরে থাকা স্বজনদের কাছে হ’স্তা’ন্ত’র করতে হয়। আর যাদের কোনো স্বজন থাকে না,

তাদের সরকারি শি’শু পরিবারে পাঠানো হয়। আর ৬-১৮ বছর বয়সী কোনো শি’শু’কে কা’রা’গা’রে রাখা হয় না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *