Categories
Uncategorized

শাহজালালে বিমানের সিটের নিচে ৩৯ সোনার বার

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান বাংলাদেশ এয়ালাইন্সের একটি উড়োজাহাজের আসনের নিচ থেকে ৩৯টি সোনার বার উদ্ধার

করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর। বুধবার সকালে বিমানটি দুবাই থেকে বিমানবন্দরে অবতরণের পর তল্লাশি চালিয়ে এসব সোনার বার উদ্ধার করা হয়। শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের সহকারী পরিচালক তানভীর আহমেদ জানান, দুবাই থেকে আসা বিজি ০৪৮ ফ্লাইটি

সকাল সাড়ে ৭টার দিকে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। এ ফ্লাইটে সোনা পাচার করা হচ্ছে বলে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ আব্দুর রউফের কাছে গোপন বার্তা ছিল। ওই তথ্যের ভিত্তিতে যাত্রীরা নেমে যাওয়ার পর বিমানটিতে তল্লাশি চালানো হয়। এ সময় বিমানের ৩-এ আসনের নিচে ৩৯টি সোনার বার পাওয়া যায়, যার মোট ওজন সাড়ে ৪ কেজি।
তিনি আরো

জানান, উদ্ধার সোনার বারের মূল্য ২ কোটি ৭১ লাখ ৪৪ হাজার টাকা। তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করা যায়নি।

Categories
Uncategorized

ইমোতে পরিচয়, দুই সন্তান রেখে প্রেমিকের বাড়িতে মালয়েশিয়া প্রবাসীর স্ত্রী

বগুড়া শেরপুরের দুই সন্তান রেখে জহুরা আক্তার জুঁই নামের এক প্রবাসীর স্ত্রী স্বামীর দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে গিয়ে অ’নশ’ন করছে। আজ

বুধবার (৩১ মার্চ) সকালে মহিপুর বুড়িতলা এলাকায় আহসান হাবীবের বাড়িতে এ অ’নশ’ন করছে। আহসান হাবীব মহিপুর বুড়িতলা আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে, সে পেশায় একজন যমুনা গ্যাস কোম্পানি লিমিটেডের স্টোর কিপার। জানা যায়, গত ৬ বছর পূর্বে পৌর শহরের শান্তিনগর

এলাকার জালাল শেখ এর মেয়ে ও মালয়েশিয়া প্রবাসী মনিরের স্ত্রী জহুরা আক্তার জুই সহ এক ছেলে এক মেয়ে রেখে মালয়েশিয়া যায় মনির। গত এক বছর পূর্বে মহিপুর বুড়িতলা এলাকার আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে আহসান হাবীবের সাথে ইমোতে পরিচয় হয়। এরপর থেকে তাদের মাঝে প্রে’মের সম্প’র্ক গড়ে উঠে। স্বামী বিদেশ থাকায় এক পর্যায়ে আহসান

হাবিব বিয়ের প্রলোভন দিয়ে শা’রী’রিক সম্প’র্ক করে। গত ৯ মার্চ শান্তিনগর জুঁইয়ের বাড়িতে গিয়ে আবার শা’রী’রিক সম্পর্ক করলে এ ঘটনা জানাজানি হয়। পর’কী’য়ার বিষয়টি প্রবাসী স্বামী মনির জানতে পেরে মালয়েশিয়া থেকে তার স্ত্রীকে তা’লা’ক দেয়। পরে জহুর আক্তার জুই আহসান হাবিব কে বিয়ে করতে চা’প সৃ’ষ্টি করে। আহসান হাবিব বিয়ে করতে অ’স্বীকার করায় আজ বুধবার সকালে স্বামীর দাবিতে প্রেমিকের

বাড়িতে গিয়ে অ’নশ’ন করে। এতে বাড়িঘর তালা দিয়ে আহসান হাবিব ও তার পরিবার পা’লিয়ে যায়।এ বিষয়ে জহুরা আক্তার জানান, আমাকে স্বামীর দাবি না দিলে আমি এখানে আ’মর’ণ অনশন করব। এ বিষয়ে আহসান হাবীবের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার সাথে যোগাযোগ করা যায়নি।

এ ব্যাপারে শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত আবুল কালাম আজাদ জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই।

Categories
Uncategorized

আবুধাবি যেতে কোয়ারেন্টাইন লাগবে না ১২ দেশের যাত্রীদের

সংস্কৃতি ও পর্যটন দফতর – আবুধাবি (ডিসিটি আবু ধাবি) ‘সবুজ তালিকা’ দেশগুলোর আপডেট তালিকা প্রকাশ করেছে। আবুধাবিতে

অবতরণের পরে এই দেশগুলো থেকে আগত যাত্রীদের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন ব্যবস্থা থেকে ছাড় দেওয়া হবে এবং কেবল বিমানবন্দরেই পিসিআর পরীক্ষা করাতে হবে। বিভাগ জানিয়েছে, ‘সবুজ তালিকার’ অন্তর্ভুক্ত দেশ বা অঞ্চলগুলোর কোভিড -১৯ অবস্থার উপর আন্তর্জাতিক

উন্নয়নের ভিত্তিতে নিয়মিত আপডেট করা হবে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাসিন্দারের মঙ্গল নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্য ও সুরক্ষার কঠোর মানদণ্ডের সাথে তালিকায় অন্তর্ভুক্ত।

নাগরিকত্বের পরিবর্তে যাত্রীরা আগত দেশগুলোতে এই তালিকাটি কেবল প্রযোজ্য।

মার্চ ২২, ২০২১ এ আপডেট হয়েছে ‘সবুজ তালিকা’:

– অস্ট্রেলিয়া

– ভুটান

– ব্রুনেই

– চীন

– গ্রিনল্যান্ড

– হংকং এসএআর)

– আইসল্যান্ড

– মরিশাস

– মরক্কো

– নিউজিল্যান্ড

– সৌদি আরব

– সিঙ্গাপুর

‘গ্রিন লিস্ট’ সম্পর্কিত আরও তথ্য www.visitabudhabi.com এ পাওয়া যাবে।

ডিসিটি আবু ধাবি তালিকা এবং সামগ্রিক ভ্রমণের স্থিতির আপডেটও অবিরাম চলতে থাকবে ।

এদিকে দেশজুড়ে

করোনাবিধি কঠোর করছে দেশটি। সম্প্রতি দেশটিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়াও এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

Categories
Uncategorized

স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার তারিখ ঘোষণা

স্কুল-কলেজ আগামী ২৩ মে খুলে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। চলমান মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে গত বছরের ১৭

মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। আগামী ৩০ মার্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার কথা ছিল। তবে তা আর হচ্ছে না। বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে গণহত্যা দিবসের আলোচনা সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জানান। এ সময় করোনা সংক্রমন বেড়ে যাওয়ায়,

শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যের কথা বিবেচনায় নিয়েই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান দীপু মনি। এর আগে, বুধবার (২৪ মার্চ) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, শবে বরাতের সরকারি ছুটি ২৯ মার্চের পরিবর্তে ৩০ মার্চ নির্ধারণ করার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এদিন খুলছে না।

বিষয়টি নিয়ে দু-একদিনের মধ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) মহাপরিচালকের সঙ্গে আলোচনা করা হবে। ৩০ মার্চ ছুটি ঘোষণা করে মাউশিকে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে বলা হবে। ছুটি বাড়ানোর বিষয়ে সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার বিষয়টি বিবেচনা করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। দ্রুত সময়ের মধ্যে এ বিষয়ে ঘোষণা দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি। এর আগে গত ২৭

ফেব্রুয়ারি শিক্ষামন্ত্রী ড. দীপু মনি আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠক শেষে জানিয়েছিলেন, আগামী ৩০ মার্চ দেশের সব স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়া হবে।
সেদিন তিনি বলেন, দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান ২৪ মে থেকে শুরু হবে এবং হল খুলবে ১৭ মে। এর আগে সব ধরনের পাঠদান ও পরীক্ষা বন্ধ থাকবে। ১৭ মে এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব আবাসিক শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মচারীদের

করোনা টিকা দেওয়া হবে। এছাড়া বিসিএস পরীক্ষার আবেদন ও পরীক্ষার তারিখ বিশ্ববিদ্যালয় খোলার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে নির্ধারণ করা হবে।
গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়। গত ২২ জানুয়ারি করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে গাইডলাইন প্রকাশ করে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর।
এ গাইডলাইন অনুসরণ করে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার

প্রস্তুতি নিতে বলা হয়। স্কুল-কলেজগুলোতে ৩৯ পাতার গাইডলাইন পাঠিয়ে বলা হয়, ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে স্কুলগুলো প্রস্তুত করে রাখতে, যাতে যে কোনো মুহূর্তে সেগুলো খুলে দেয়া যেতে পারে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে গোটা বিশ্বকে নানা চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হচ্ছে। প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের এই প্রতিকূল স্রোতের মুখোমুখি বাংলাদেশও। অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জের মতো বাংলাদেশের জন্য আরেকটি বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে

দাঁড়িয়েছে শিক্ষা খাত। প্রায় ১২ মাস ধরে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। কিছু ক্ষেত্রে অনলাইনে কার্যক্রম চলমান।

Categories
Uncategorized

বি’ছানায় স’হবাসের চেয়ে পুরুষদের কাছ থেকে মেয়েরা এটি বেশি আশা করে থাকে!

প্রেম-ভালোবাসার ক্ষেত্রে পুরু’ষদের কাছে শা’রীরিক সম্প’র্ক খুবই গু’রুত্ব পূর্ণ একটি বি’ষয়। কিন্তু এমন কিছু বি’ষয় আছে যা না’রীদের

কাছে সেই গো’পন সু’খে’র চাইতেও অনেক বেশি গু’রুত্ব পূর্ণ। কেবল মিল’নে সু’খ নয়, নিজেদের একান্ত সম্প’র্কে পছন্দের পুরু’ষের কাছ থেকে এই বি’ষয়গুলোও আশা করেন না’রীরা।কি করলে আপনার স’ঙ্গিনী খুশি হবেন, তারই কিছু সহজপাঠ এখানে দেয়া হলো। ব্য’ক্তি

বিশেষে এই চা’হিদা’র রক’মফের হলেও দেখা গিয়েছে কমবেশি এই ব্যবহারই কামনা করেন অধিকাংশ না’রী। ১. যার মধ্যে প্রথমেই রয়েছে আলতো চু’ম্বন। জো’র করে নয়, দু’পক্ষের স’ম্মতিতেই এই চুম্ব’ন হওয়া বাঞ্ছনী’য়। ২. স্প’র্শ। পোশাকি ভাষায় যাকে বলে গুড টাচ।
৩. গ’ভীর আ’লি*ঙ্গন। যাতে থাকবে সারাজীবন পাশে থাকার ই’ঙ্গিত।

এই বি’ষয়গু’লি না’রীদের কাছে শা’রীরিক সম্প’র্কের থেকেও অনেক বেশি গু’রুত্ব পূর্ণ। ৪. গো’পন মি’লনের পর গ’ভীর আলি’ঙ্গনে পর’স্পরকে জড়িয়ে ঘুমানো’টাও অধিকাংশ না’রীই পছন্দ করেন। ৫. এ’কান্ত মুহূ’র্তে আবেগ’ঘন প্র’শংসা না’রীদের খুবই প্রিয়। ৬. পাশাপাশি হাত ধ’রে হাঁটা, উপহার, বিশেষ মুহূ’র্তে

‘ভালোবাসি’ বলা, মজার খু’নসুটি, ম’জার কোন ইঙ্গি’ত ইত্যাদি ব্যাপারগুলো না’রীদের কাছে খুবই গু’রুত্ব পূর্ণ।

Categories
Uncategorized

৪র্থ-৫ম শ্রেনীর ছাত্র-ছাত্রীর ভালোবাসার বিয়ে!

সামাজিক ব’ন্ধন বিবাহের ক্ষেত্রে রাষ্ট্রীয় নিয়ন নীতির তোয়াক্কা না করে বা’ল্য বিবাহ পড়ানোর অ’ভিযোগ উঠেছে। সা’ম্প্রতিককালে হাইমচর

উপজে’লার অ’সাধু কতিপয় কাজিরা ইউনিয়ন পরিষদের সাথে যো’গসাজশ রেখেবিবাহের কথা গো’পন করে কোন রকম জ’ন্ম সনদ বের করে সামাজে বা’ল্য বিবাহ প্রথা চালু রাখছেন।এমনই এক ঘ’টনায় অ’নুসন্ধান করে জা’না যায়, হাইমচরের ৪ নং নীলকমল ইউনিয়নের ৯নং

ওয়ার্ডের চকিদার কান্দিরমোঃ শফিক মিজি ৫ম শ্রেনীর ছাত্র আঃ রহমানের সাথে বাবা মায়ের অ’নুপস্থিতিতে পাশের বাড়ির দুদু মিয়ার কন্যা ৪র্থ শ্রেনীর ছা’ত্রী সারমিন আক্তার জ’রিনার মধ্যে বা’ল্য বিবাহের রেজিঃ নথিভূ’ক্ত করা হয়েছে।যার পৃষ্ঠা নং-১, বাংলাদেশ ফরম নং ১৬০১(ফরম‘ঘ”)। রা’ষ্ট্রীয় আ’ইন অ’মান্য করে ঘৃ’ন্য এই কা’জটি করেন

নীলকমল ইউনিয়ননের দায়িত্ব প্রা’প্ত কাজি ও নি’কাহ রেজিষ্টার মোঃ ইউসুফ মিয়া।ঘ’টনার বিবরণে আরো জা’না যায়,নীলকমল ইউনিয়নের বাংলাবাজারের মোঃ সফিক মিজির ছে’লে আঃ রহমান ৩৮ নং চরকোড়ালিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সমপানী পরীক্ষায় অংশগ্রহনকারী এবং একই বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর ছা’ত্রী জ’রিনার

কাজি ডেকে আঃ রহমানের সাথে বিবাহ দেন।হাইমচরে অসাধু ওই কাজি এই তারিখ পরিবর্তন করে বিবাহ রেজিষ্টারের আঃ রহমান বয়স ২২ বছর এবং কনের বয়স ১৮ বছর করে নিকাহ রেজিষ্টার ভূক্ত করেন।জো’রপূর্বক’ভাবে অ’ভিভাবক পরিচয় দিয়ে সানু পেদা, বাংলাবাজারের শাহআলম ও জয়নাল দাড়িয়ে থেকে বি’বাহের কাজ

সম্পূন্ন করে । বিবাহের কাবিন নামায় স্বাক্ষর করেন সেলিম মিয়া ও মোঃ নজরুল ইস’লাম।জ’রিনা ও রহমানের বাল্য বিবাহের বরের উকিল নিয়োগ করা হয় মোঃ শেরাজল হাওলাদার ও কনের উকিল বাবা নিয়োগ করেন মোঃ হযরত আলী। আমা’র নাবালক ছে’লেকে

কারা বি’বাহ দিয়েছে, তা আমি জানি না। যারা আমা’র ছে’লেকে বা’ল্য বিবাহ দিয়েছে তাদের বি’চার দা’বি করছি।

Categories
Uncategorized

একসময় ছিলেন নাপিত, এখন তিনি ১৭ হাজার কোটি টাকার মালিক!

রমেশ বাবু। বিশ্বের সেরা ধনী নাপিত। ভারতে ধনীদের তালিকায় তার অবস্থান ৬৮ তম। দরিদ্র রমেশ প্রতিভা ও সঠিক সিদ্ধান্তের জোরে দরিদ্র

থেকে অসম্ভব সচ্ছল জীবন পার করছেন। বর্তমানে দুই বিলিয়ন ইউএস ডলারের মালিক তিনি। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৭ হাজার কোটি টাকা। তার ৩৭৮ দামি গাড়ি রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ১২০টি বিলাসবহুল গাড়ি। সেই রমেশ বাবুর জিরো থেকে হিরো হওয়ার সাফল্যের গল্প আজ

পাঠকদের সামনে তুলে ধরব। ১৯৭৪ সালে ভারতের বেঙ্গালুরে এক সেলুন ব্যবসায়ীর ঘরে জন্মগ্রহণ করেন রমেশ বাবু। সাত বছর বয়সে বাবাকে হারিয়ে আর্থিক অভাবে পড়েন ছোট্ট রমেশ। বয়স কম থাকায় বাবার সেলুন ব্যবসায় হাত ধরার সক্ষমতা ছিল না তার। বাবার সেলুনের দোকানটি মাসিক পাঁচ টাকায় এক চাচার কাছে ভাড়া দেন তার মা।

কিন্তু আর্থিক সংকট তাদের পিছু ছাড়ল না। এক পর্যায়ে বাধ্য হয়েই নন্দিনী নামের একজনের বাড়িতে কাজে যান রমেশের মা। দরিদ্র রমেশ ক্যারিয়ারের শুরুতে পত্রিকা ও দুধ বিক্রির মাধ্যমে প্রতি মাসে ১০০ রুপি আয় করতেন। পাশাপাশি চালিয়ে যান লেখাপড়াও। রমেশ যখন ইন্টারমিডিয়েট পর্যায়ে উঠেন, তখন চূড়ান্ত পরীক্ষায় অকৃতকার্য হন। তবে হাল ছাড়েননি। পরে ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারে ডিপ্লোমা করেন। মনে

ছিল, বড় কিছু করে পরিবারের অভাব দূর করার। কিন্তু রমেশ ১৮ বছর বয়সেই বাবার সেলুন ব্যবসার দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেন। শিক্ষিত রমেশ অল্প সময়ে ভালো ব্যবহার ও তরুণদের হেয়ার স্টাইলিস্ট হিসেবে পরিণত হন। সকাল ৬ টা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত ব্যস্ত থাকতেন তিনি। টানা চার বছরের পরিশ্রমে মোটা অংকের টাকা জমা হয়। তাই ১৯৯৩ সালে শখের

বশে ব্যাংক লোনের মাধ্যমে মারুতি ওমনি নামের একটি মাইক্রোবাস কেনেন। যেখানেই তার সফলতার বীজ লুকিয়ে ছিল। রমেশ বাবু বলেন, নিজের ব্যবহারের জন্য মাইক্রোবাসটি কিনেছিলাম। পাশাপাশি সেলুন ব্যবসাও পরিচালনা করতাম। কিন্তু ব্যাংক লোনের টাকা ঠিকমতো পরিশোধ করতে হিমশিম খাচ্ছিলাম। এক পর্যায়ে দুই মাসের লোনের টাকা জমা পড়ে যায়। তখন নন্দিনী নামের ভদ্রমহিলা গাড়িটি ভাড়া দেয়ার পরামর্শ

দেন। এতে রেন্ট-এ কারের ব্যবসার ধারণা আবিষ্কার করি। এরপর মাইক্রোবাসটি ভাড়া দেয়া শুরু করি। মাঝে মাঝে নিজেও যাত্রীদের সেবা দেই। সঙ্গে নিজের সেলুন ব্যবসাটিও চালু রাখি। সেলুন ব্যবসার পরিচিতি থেকে রেন্ট-এ কারের ব্যবসা জমজমাট হয়। ধীরে ধীরে একের পর এক ব্যবসায় গাড়ি সংযুক্ত করি। আমার রেন্ট-এ কারের ব্যবসায় মি ব্যাক, লিমুজিন, বেন্ট্রি, মার্সিডিজ,

বিএমডাব্লিউ-এর মতো গাড়ি রয়েছে। ২০১১ সালে রোল রয়েলস গাড়ি যুক্ত করি। বর্তমানে রেন্ট-এ কার কোম্পানি থেকে ৫০ হাজার রুপির বিনিময়ে একদিনের জন্য রোল রয়েলস ভাড়া দেই। বাকিগুলোর নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থে ভাড়া দিচ্ছি। এছাড়া ট্যুর অ্যান্ড ট্রাভেলসের ব্যবসা প্রতিষ্ঠা করি তিনি আরো বলেন, আমি এতো টাকার মালিক হওয়া সত্ত্বেও সেলুন ব্যবসা চালু রেখেছি। মাত্র ১৫০ রুপিতে এখনো আমার কাছে চুল কাটতে পারবেন। কিন্তু সব সময় হয়তো পাবেন না। কারণ, আমি শখের বশে চুল কাটছি। রমেশ বলেন, লক্ষ্য স্থীর

থাকলে জীবনে সাফল্য পাওয়া সহজ। স্থীর লক্ষ্য করে কঠোর সাধনা করলেই সাফল্য হাতের মুঠোয় চলে আসে।

Categories
Uncategorized

বিয়ের নামে ফাঁ’দ, একাধিক পুরুষকে নিঃস্ব করেছেন নীলা!

বিয়ের নামে ‘প্রতারণার ফাঁদ’, অষ্টম স্বামীর সংবাদ সম্মেলন…সুলতানা পারভীন। ডাক নাম নীলা। আবার কখনো বৃষ্টি। বয়স ৩৭’র কোঠায়।

পৈত্রিক বাড়ি মাদারীপুর। বসবাস খুলনা মহানগরীর সোনাডাঙ্গা আবাসিক এলাকায়। তার বি’রুদ্ধে বিয়ের নামে ফাঁ’দে ফে’লে একাধিক পুরুষকে নিঃস্বকরার অ’ভিযোগ উঠেছে। রয়েছে চেক জালিয়াতিসহ প্র’তারণার নানা অ’ভিযোগও। এ সংক্রান্ত একাধিক মা’মলার আ’সামিও তিনি।

একাধিক অ’ভিযোগ ও অনুসন্ধানে জানা গেছে, সুলতানা পারভীন নীলা এ পর্যন্ত ৮-এর অধিক বিয়ে করেছেন। বিয়ের কিছুদিন পর সেই স্বামীকে ছেড়ে দেয়া এবং তার কাছ থেকে দেনমোহরের টাকাসহ নানা কৌশলে বাড়ি-গাড়ি হাতিয়ে নেয়াই তার ব্যবসা। তার মূল টার্গেট সম্পদশালী, ব্যবসায়ী, উচ্চপদস্থ চাকরিজীবী ও প্রবাসী পুরুষ।

প্রথমে টার্গেট নিশ্চিত করেন। ধীরে ধীরে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে নিজ দেহের সৌন্দর্য ও কথার মারপ্যাচে আ’টকে ফে’লেন।
অনুসন্ধানে জানা যায়, ১৯৯৯ সালে সুলতানা পারভীনের প্রথম বিয়ে হয় মাদারীপুর জে’লার হরিকুমারিয়া গ্রামের আব্দুল হাকিম শিকদারের জাপান প্রবাসী ছেলে শাহাবউদ্দিন সিকদারের সঙ্গে। নীলার বয়স ছিল তখন ১৫ বছরেরও কম। কিছুদিন যেতে না যেতেই স্বামীর ঘর থেকে

নগদ অর্থ ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে বেরিয়ে যান তিনি। তার উচ্ছৃঙ্খল জীবনযাপন ও মালামাল চু’রির ঘটনায় শাহাবুদ্দিন শিকদার মাদারীপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। যদিও ২০০১ সালে তার সঙ্গে বিচ্ছেদ ঘটে নীলার। নীলার দ্বিতীয় বিয়ে হয় ২০০৫ সালের ৬ই মে খুলনা মহানগরীর শেরেবাংলা রোডস্থ মো. মকবুল হোসেনের ছেলে এসএম মুনির হোসেনের সঙ্গে। তখন প্র’তারণার

আশ্রয় নিয়ে নিজেকে ‘কুমারী’ দাবি করে এক লাখ টাকার কাবিননামায় বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন তিনি। কিন্তু বিয়ের কিছুদিনের মধ্যে নীলার উচ্ছৃঙ্খল জীবনযাপন এবং ও উ’গ্র আচরণের শি’কার হন স্বামী মুনির। একপর্যায়ে স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ অর্থ নিয়ে ওই বাড়ি থেকেও বেরিয়ে যান নীলা। এ ঘটনায় একই বছরের ১০ই ডিসেম্বর মুনির হোসেন তাকে তা’লা’ক দেন।

যদিও পরবর্তীতে তার কাছ থেকে অর্থ আদায় করতে সুলতানা পারভীন নীলা ২০০৬ সালে মনির হোসেনের বি’রুদ্ধে নারী ও শি’শু নি’র্যাতন এবং পারিবারিক আ’দালতে মা’মলা দা’য়ের করেন। ওই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই সুলতানা পারভীন আবারো নিজেকে ‘কুমারী’ দাবি করে ২০০৮ সালের এপ্রিল মাসে নগরীর খালিশপুর ওয়ারলেস ক্রস রোডের ঠিকাদার মইনুল আরেফিন বনিকে বিয়ে করেন।

তবে শর্ত থাকে বিয়ের পর নীলা তার আত্মীয়ের মাধ্যমে বনিকে ইতালি নিয়ে যাবে। শর্ত মোতাবেক বিয়ের পর তার কাছ থেকে মোটা অঙ্কের অর্থ হাতিয়ে নিয়ে কিছুদিন যেতে না যেতেই নীলার প্র’তারণা প্রকাশ পেতে থাকে। একপর্যায়ে তাদের মধ্যেও বিচ্ছেদ ঘটে। এ ঘটনায় স্বামী শেখ মইনুল আরেফিন বনি প্র’তারণার অ’ভিযোগে খুলনার মুখ্য মহানগর হাকিম আ’দালতে নীলার বি’রুদ্ধে মা’মলা দা’য়ের করেন। মা’মলাটি

বর্তমানে ত’দন্তাধীন রয়েছে। তবে বনি’র বি’রুদ্ধেও খুলনার বিভিন্ন আ’দালতে একাধিক মা’মলা দা’য়ের করেন নীলা। সূত্র আরো জানায়, বনি’র সঙ্গে মা’মলা চলমান থাকা অবস্থায় নীলা ২০১১ সালে নারায়ণগঞ্জের ইফতিখার নামে একজনকে বিয়ে করেন। সেখানেও দাম্পত্য জীবন স্থায়ী হয়নি তার। একপর্যায়ে ইফতেখার আমেরিকা চলে যান। অ’ভিযোগ আরো উঠে এসেছে,

২০১২ সালে নীলা বিয়ে করেন বাগেরহাটের বাসিন্দা কামাল হোসেনকে, ২০১৭ সালে ইতালি প্রবাসী মাদারীপুরের মোহাম্ম’দ আজিমকে, ২০১৮ সালে খুলনার ডুমুরিয়া উপজে’লার মোহাম্ম’দ রহমানকে এবং সর্বশেষ ২০১৯ সালে খুলনা মহানগরীর নাজিরঘাট এলাকার মৃ’ত আব্দুল জলিলের

ছেলে মো. আব্দুল বাকী’র সঙ্গে তার বিবাহ হয়।তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, নীলার এক সাবেক স্বামী মো. আব্দুল বাকী ঢাকার আ’দালতে তার বি’রুদ্ধে চেক ও টাকা-পয়সা চু’রির অ’ভিযোগে একটি মা’মলা দা’য়ের করেন। মা’মলাটি বর্তমানে পিবিআই ঢাকা মেট্রো দক্ষিণ কার্যালয়ে ত’দন্তাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে। এ ছাড়াও সিরাজগঞ্জে অবস্থানকালীন ঢাকার একটি

ফ্ল্যাট তার নামে লিখে না দেয়ায় ‘ম’ আদ্যক্ষরযুক্ত আরো এক স্বামীকে নারী নি’র্যাতন মা’মলায় ফাঁ’সানো এবং জীবন নাশের হু’মকি দেন নীলা। ওই ঘটনায় তার বি’রুদ্ধে ২০১৯ সালের ২রা মে সিরাজগঞ্জ সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়। নীলা চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে খুলনা মহানগরীর খালিশপুরে তার পূর্বপরিচয়ের সূত্র ধরে আফরীন আহমেদ নামে এক আত্মীয়ের বাসায় কিছুদিন অবস্থান করেন। সেই সুযোগে আত্মীয়ের বাসা থেকে একটি চেকের পাতা চু’রি করে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে ১০ লাখ টাকা তুলে

আ’ত্মসাৎ করেন। ওই ঘটনায় তার বি’রুদ্ধে জালিয়াতি ও চু’রির অ’ভিযোগে মা’মলা দা’য়ের করা হয়। এই মা’মলাটি বর্তমানে পিবিআই খুলনা কার্যালয়ে ত’দন্তাধীন রয়েছে। এ ব্যাপারে সুলতানা পারভীন নীলা বলেন, এ পর্যন্ত তার ৫টি বিয়ে হয়েছে। ছোটবেলাতেই তাকে বিয়ে দেয়া হয়। তবে মৃ’ত্যুসহ নানা কারণে তিনি একাধিক স্বামী পরিত্যক্তা হন। স্বামীদের করা তার বি’রুদ্ধে অ’ভিযোগের বি’ষয়ে বলেন, তারা যেমন অ’ভিযোগ করেছে, তেমনি তাদের বি’রুদ্ধেও তিনি মা’মলা দা’য়ের করেছেন। এ ছাড়া তিনি কোনো চেক চু’রি করেননি বা কাউকে বিয়ের

নামে ফাঁ’দে ফে’লে অর্থ-সম্পদ হাতিয়ে নেননি। উল্টো সবাই একজোট হয়ে তার পেছনে লেগেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

Categories
Uncategorized

নিজেকে আবেদনময়ী করতে গিয়ে প্রা’ণ হারা’লেন মডেল!

কথায় আছে, আমি শিখেছি সময় ব্যবস্থাপনা, প্রস্তুতি আমার অগ্রাধিকার। নিজেকে বেশি আবেদনময়ী করে তুলতে নিতম্ব বড় করার পরিকল্পনা

করেছিলেন মার্কিন মডেল জোসলিন ক্যানো। সেই অনুযায়ী প্লাস্টিক সার্জারি করান তিনি। কিন্তু ভুল অ’স্ত্রো’পচা’রের কারণে মৃ’ত্যু হয় ৩০ বছর বয়সী এই মডেলের। কোমরকে আরো সুদৃশ্য করতে গিয়ে প্রাণ হারালেন মেক্সিকান মডেল জসলিন ক্যানো । ৭ ডিসেম্বর মা’রা যান তিনি।

যদিও জোসলিনার পরিবার তার মৃ’ত্যুর বিষয়টি নিয়ে কোন কথা বলেননি। তবে লিরা মারসার নামে এক মডেল ও অভিনেত্রী নিজের টুইটার হ্যা’ন্ডেলে জোসলিনার মৃ’ত্যুর বিষয়টি প্রকাশ করেন। তিনি টুইট করেন, ভুল অ’স্ত্রো’পচা’রের কারণে কলাম্বিয়ায় মডেল জোসলিন ক্যানো মা’রা গেছেন। জোসলিন দেখতে খুবই সুশ্রী ও লাবন্যময়ী ছিলেন।

তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা। ১৯৯০ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার আনাহেইমে জন্মগ্রহণ করেন জোসলিন। তবে বেড়ে উঠেছেন ক্যালিফোর্নিয়ার লেক এলসিনোরে। মাত্র ১৭ বছর বয়েসে স্থানীয় ম্যাগাজিনে প্রথম মডেল হন তিনি। এরপর অনেক বিখ্যাত ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদে জায়গা পেয়েছেন তিনি। অভিনয় করেছেন বেশ কিছু মিউজিক ভিডিওতে। ২০০৮ সালে

মডেল ও ফ্যাশন ডিজাইনার হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন জসলিন ক্যানো। ইনস্টাগ্রামসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুমুল জনপ্রিয় ছিলেন তিনি। উল্লেখ্য, নিজেকে আকর্ষণীয় করে তুলতে চাইতেন জসলিন। তাই কোমরে অপা’রেশন করিয়েছিলেন শরীরের নিচের

অংশটুকু কার্দেশিয়ানের মতো আবেদনময়ী করতে। কিন্তু নিজের সেই সৌন্দর্য বর্ধনই কাল হয়ে দাঁড়ালো এই মডেলের জন্য।

Categories
Uncategorized

নরেন্দ্র মোদিকে আমরা সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেব : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সফরের বিরোধিতা নিয়ে আমাদের দুশ্চিন্তা নেই। আমরা

তাকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেব। শনিবার (২০ মার্চ) রাজধানীর ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষের ঢাকা সফর নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এক প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, ভারতের প্রধানমন্ত্রী আসছেন, এটা আমাদের

জন্য আনন্দের। কেউ কেউ বিরোধিতা করছেন, আমাদের দেশ গণতান্ত্রিক দেশ, এখানে নানা মতের লোক রয়েছেন। এ নিয়ে আমাদের দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই।ড. মোমেন বলেন, মোদীর সফর নিয়ে মৌলবাদীদের বিরোধিতা নিয়ে আমরা চিন্তা করছি না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানেন, কীভাবে মৌলবাদীদের

নিয়ন্ত্রণে রাখতে হয়। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী আসছেন বঙ্গবন্ধুর প্রতি সম্মান জানাতে ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে। অথচ মোদি যখন প্রথমবার ক্ষমতায় আসেন, তখন বিএনপি অন্যরকম ‘নয়েস’

তৈরির চেষ্টা করেছিল। আমরা অনুরোধ করবো, এই সফর নিয়ে কেউ যেন কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা তৈরি না করেন।