Categories
Uncategorized

তা’লাকের নো’টিশ পায়নি ইউনিয়ন প’রিষদ : ফেঁ’সে যাচ্ছেন তামিমা

বাংলাদেশের ক্রিকেটে ‘ব্যাড বয়’ খ্যাত নাসির হোসেন তামিমা তাম্মি নামের এক না’রীকে বিয়ে করে তুমুল বি’তর্কের জ’ন্ম দিয়েছেন।

অ’ভিযোগ উঠেছে তামিমা আগের স্বামীকে ডিভোর্স না দিয়েই নাসিরকে বিয়ে করেছেন। বিষয়টি নিয়ে আ’দালতে মা’মলাও করছেন তামিমার সাবেক স্বামী রাকিব হাসান। এ বিষয়ে বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সংবা’দ সম্মেলন করেছেন নাসির-তামিমা। সংবা’দ সম্মেলনে তামিমা যে কাগজ

দিয়েছেন তাতে দেখা যায় তিনি ২০১৬ সালের ২৩ ডিসেম্বর রাকিব হাসানকে ‘স্ত্রী কর্তৃক তালাক নো’টিশ’ দিয়েছেন। অন্যদিকে তার পাসপোর্টে দেখা যায় ২০১৮ সালে রাকিব হাসানকে স্বামী ‘উল্লেখ’ করে ‘পাসপোর্ট’ ইস্যু করেছেন তামিমা। একইদিন ঢাকা মে’ট্রোপলিটন ম্যা’জিস্ট্রেট মোহাম্ম’দ জসিমের আ’দালতে মা’মলা দা’য়ের করেন নাসিরের স্ত্রীর সাবেক

স্বামী মো. রাকিব হাসান। রাকিব নিজেই মা’মলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। রাকিবের পক্ষে আ’ইনজীবী ছিলেন ইশরাত হাসান। নাসির ও তামিমা সুলতানার বি’রুদ্ধে মা’মলার ডকেটে পাসপোর্টের একটি নথী সংযুক্ত করেছেন আ’ইনজীবী ইশরাত হাসান। যেটিতে তামিমার স্বামীর নাম উল্লেখ রয়েছে ‘রাকিব হাসান’। একই স’ঙ্গে ই’মার্জেন্সি কন্ট্রাকেও স্বামী রাকিব হাসানের নাম উল্লেখ রয়েছে। পাসপোর্টটি প্রদান করার

তারিখ হিসেবে উল্লেখ রয়েছে- ৪ মার্চ ২০১৮ সাল। যেটির মেয়াদো’ত্তীর্ণ ৩ মার্চ ২০২৩ সালের কথাও উল্লেখ রয়েছে। পাসপোর্টের ধরণ বলছে, এটি রি-ইস্যু করা। পাসপোর্টটির বর্তমান নম্বর বিআর দিয়ে শুরু হয়ে ৫৩ ডিজিট উল্লেখ করে শেষ হয়েছে। অন্যদিকে তার পু’রাতন পাসপোর্টটি বিএ দিয়ে শুরু হয়ে ১১ ডিজিট উল্লেখ করে শে’ষ হয়েছে। এই পাসপোর্ট ও তালাক নো’টিশের

স্থিরচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এরই মধ্যে ভাইরাল হয়েছে। ডিভোর্স পেপার সঠিক না-কি পাসপোর্ট সঠিক সেটা নিয়ে ধুম্রজাল সৃ’ষ্টি হয়েছে। এ বিষয়ে রাকিব হাসানের আ’ইনজীবী ইশারত হাসান গ’ণমাধ্যমকে বলেন, তামিমা সুলতানা আমার মক্কেল রাকিবের স্ত্রী হয়েও তাকে তালাক না দিয়ে ক্রিকেটার নাসিরকে বিয়ে করেছেন। যা আ’ইনসিদ্ধ নয়। এখানে রাকিব হাসান ক্ষ’তিগ্রস্ত হয়েছেন, তার স’ঙ্গে প্র’তারণা করা হয়েছে এবং তার মা’নহা’নি হয়েছে।

এ সংক্রা’ন্তে পাসপোর্টের কাপিসহ অন্যান্য নথী আমরা মা’মলার ডকেটে সংযুক্ত করেছি। এসব ডকুমেন্ট আ’দালত বি’বেচনায় নিয়ে পরীক্ষা নীরিক্ষা পূর্বক নাসির ও তামিমার বি’রুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নিবেন বলে আমরা আশাবাদী। ইতোমধ্যে মা’মলাটি ত’দন্তের জন্য পু’লিশ ব্যুরো অব ই’নভেস্টিগেশনকের নি’র্দেশ দিয়েছেন আ’দালত। মা’মলাটি ত’দন্ত করে আগামি ৩০ মার্চ প্রতিবেদন দাখিল

করতে বলা হয়েছে। অপরদিকে তা’লাকের কপি দেখিয়ে তামিমা জানান, তা’লাকের এই কপি রাকিবের গ্রামের বাড়ি নলছিটি উপজে’লার ভৈরবপাশা ইউনিয়ন প’রিষদেও পাঠানো হয়েছে। তবে এরকম কোনো নো’টিশ বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত পাননি বলে জানিয়েছেন ওই ইউনিয়ন প’রিষদের সচিব মাকসুদুল হক মাকসুদ। বৃহস্পতিবার তিনি এ সংক্রা’ন্ত রে’জিস্ট্রার দেখিয়ে বলেন, সাধারণ রে’জিস্টার্ড ডাকযোগে এ জাতীয় কাগজপত্র পাঠানো হয়।

রে’জিস্টার্ড ডাকযোগে পাঠানো হলে তা না আসার কোনো কারণ নেই। আমাদের রে’জিস্ট্রারে এ ধরনের নো’টিশ আসার কোনো প্র’মাণ লিপিব’দ্ধ নেই। তাছাড়া দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে যেরকম তো’লপাড় চলছে তা জানার পর আমরা পুনরায় যা’চাই করে দেখেছি কিন্তু কোনো ধ’রনের নো’টিশ আসার রে’কর্ড নেই। মা’মলার এজহারে উল্লেখ করা হয়, ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি তাম্মি ও রাকিবের বিয়ে হয়। তাদের ৮ বছরের একটি মে’য়েও রয়েছে। তাম্মি পেশায় একজন কেবিন ক্রু। চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি তাম্মি ও

ক্রিকেটার নাসির হোসেনের বিয়ের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছ’ড়িয়ে পড়লে তা রাকিবের নজরে আসে। পরে পত্র-পত্রিকায় তিনি ঘ’টনার বিষয়ে সম্পূর্ণ জেনেছেন। মা’মলায় অভি’যোগ করা হয়েছে, রাকিবের স’ঙ্গে বৈবাহিক সম্পর্ক চলমান অবস্থাতেই তাম্মি নাসিরকে বিয়ে করেছেন; যা ধর্মীয় এবং রাষ্ট্রীয় আ’ইন অনুযায়ী সম্পূর্ণ অ’বৈধ। নাসির তাম্মিকে প্রলু’ব্ধ করে নিজের কাছে নিয়ে গিয়েছেন। উল্লেখ্য, ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবসে বিয়ে করেন ক্রিকেটার নাসির হোসেন। গেল বুধবার

(১৭ ফেব্রুয়ারি) হলুদ সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়। পরে শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) তাদের বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। এমন প’রিস্থিতিতে অ’ভিযোগ উঠে স্বামীকে রাকিবকে তালাক না দিয়েই ক্রিকেটার নাসিরের স’ঙ্গে বিয়ে পিড়িতে বসেন স্ত্রী তামিমা শবনম। গত শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) রাতে রাইসা ই’সলাম বাবুনি নামক এক ফেসবুক ব্যবহারকারীর একটি পোস্ট ভাইরাল হয়। যেখানে তামিমার স্বামী রাকিবের পক্ষে দা’বি করা হয়েছে, এখনও তাদের মধ্যে বৈবাহিক সম্পর্ক রয়েছে। তাদের ঘরে রয়েছে ৮ বছর বয়সী একটি মে’য়ে স’ন্তানও। তা’লাক না

দিয়ে নতুন বিয়ে করায় তামিমার বি’রুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থা’নায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছিলেন রাকিব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *