Categories
Uncategorized

৩ বিয়ের ব্যাপারে পুলিশকে যা বলল হেফাজত নেতা মামুনুল হক

ঢাকার মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া মাদরাসা থেকে ১৮ এপ্রিল রোববার বেলা ১২টার দিকে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও

ঢাকা মহানগরের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মামুনুল হককে গ্রে’ফতার করেছে পুলিশ।। সেখান থেকে মামুনুলকে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনারের কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তেজগাঁও থানা কমপ্লেক্সে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তিন বিয়ের কথা

স্বীকার করছেন মামুনুল হক। তিনি জানিয়েছেন, প্রথম বিয়ের পর যে দুই নারীর কথা আলোচনায় এসেছে তারা দু’জনই তার স্ত্রী। এসব বিয়ে তিনি সামাজিকভাবে গোপন রেখেছেন। ডিসি হারুন আর রশিদ বলেন, মোহাম্মদপুর থানার মামলায় আজ মামনুলকে আদালতে হাজির করে সাত দিনের রি’মান্ড আবেদন করা হবে।’ আরো কয়েকটি মামলায় গ্রে’ফতার দেখিয়ে তার রি’মান্ড চাওয়া হবে বলে

জানিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ৩ এপ্রিল সোনারগাঁওয়ের রয়্যাল রিসোর্টে ধরা পড়ার পর থেকেই মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসায় অবস্থান করছিলেন মামুনুল হক। ঘটনার পর থেকেই পুলিশ তাকে নজরদারির মধ্যে রেখেছিল। এ ঘটনার পর হেফাজতের বেশ কয়েকজন নেতাকে গ্রেফতার করা হয়। হেফাজত নেতার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে।

মামুনুল হকের বি;রুদ্ধে ২০১৩ সালের একটি মাম;লায় গ্রে’ফতারি পরোয়ানা জারি রয়েছে বলে জানান ডিএমপি কমিশনার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *