Categories
Uncategorized

প্রধানমন্ত্রীকে অন্তর্বাস পাঠিয়ে লকডাউনের প্রতিবাদ!

কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে ফ্রান্সে চলমান লকডাউনের বিভিন্ন বিধি-নিষেধের প্রতি এক অভিনব প্রতাবাদ জানিয়েছেন দেশটির ক্ষুদ্র

ব্যবসায়ীরা। চলমান লকডাউনে ফুলবিক্রেতা, বই বিক্রেতা, হেয়ারড্রেসার এবং এমনকি রেকর্ড স্টোরকে ফ্রান্সের প্রয়োজনীয় ব্যবসা হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছে। তবে বাদ পড়েছে পোশাক খাত। তাই লকডাউনের মাঝেও পোশাকের গুরুত্ব বোঝাতে প্রধানমন্ত্রী জ্য ক্যাস্টেক্সের কাছে

অন্তর্বাস পাঠিয়ে লকডাউনের ঐ বিধি-নিষেধের প্রতিবাদ জানিয়েছেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। তাদের দাবি, লকডাউনের কারণে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন তারা। তাই সরকার যেসব ক্ষেত্রগুলোকে বিধি-নিষেধের আওতামুক্ত বলে ঘোষণা করেছে, তার মধ্যে অন্তর্বাস বিক্রি ব্যবসাকেও অন্তর্ভূক্ত করতে হবে। জানা যায়, ‘চিকি অ্যাকশন’ নামে একটি গ্রুপ অভিনব

পদ্ধতিতে এই প্রতিবাদ কর্মসূচির আয়োজন করেছে। গ্রুপটির নিজস্ব ফেসবুক পেজে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানোর আগে অন্তর্বাসের ছবি ও চিঠিগুলো পোস্ট করা হয়েছে। এক দোকানমালিক দুটি অন্তর্বাস পাঠিয়েছেন এবং যার মধ্যে লিখে দিয়েছেন, ‘আমি প্রয়োজনীয়।’
একটি চিঠিতে গ্রুপটি তাদের দাবির পক্ষে লিখেছে, ‘এই চিঠির

সঙ্গে আপনি একটি নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য পাবেন যা আপনার সরকার অপ্রয়োজনীয় বলে বিবেচনা করেছে: অন্তর্বাস। এটি কি স্বাস্থ্যবিধি এবং সুরক্ষার প্রশ্ন নয়?’ তারা আরও লিখেছেন, ‘ফুলবিক্রেতা, বই বিক্রেতা হেয়ারড্রেসার এবং এমনকি রেকর্ড স্টোরকে ফ্রান্সের প্রয়োজনীয় ব্যবসা

হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছে। তাহলে অন্তর্বাসের কী দোষ হলো? এগুলো মানুষের কি স্বাস্থ্যবিধি ও সুরক্ষার বিষয় নয়?’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *