Categories
Uncategorized

বিপর্যস্ত ভারতের পাশে গুগল, দিচ্ছে ১৩৫ কোটি রুপি

করোনার প্রকোপে বিধ্বস্ত ভারতের জন্য ১৩৫ কোটি রুপির আর্থিক সাহায্য ঘোষণা করেছে সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগল। তবে সরাসরি ভারত

সরকারের হাতে ওই টাকা তুলে দিচ্ছে না তারা। স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘গিভ ইন্ডিয়া’ এবং ইউনিসেফের মাধ্যমে চিকিৎসা সরঞ্জাম কিনতে, যে সমস্ত সংস্থা ঝুঁকিপূর্ণ রোগীদের নিয়ে কাজ করছে তাদের সাহায্যার্থে এবং মহামারি নিয়ে সচেতনতা তৈরিতে এই টাকা ব্যয় করা হবে। খবর

ভারতীয় গণমাধ্যমের। সোমবার (২৬ এপ্রিল) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা দেন গুগলের সিইও সুন্দর পিচাই।
তিনি টুইটারে লেখেন, ‘আমি ভারতের কোভিড পরিস্থিতির অবনতি হতে দেখে বিধ্বস্ত। গুগল ও গুগলের কর্মীদের পক্ষ থেকে গিভ ইন্ডিয়া ও ইউনিসেফকে চিকিৎসা সরঞ্জাম কিনতে, ঝুঁকিপূর্ণ রোগীদের নিয়ে কাজ

করা সংস্থাগুলোকে সাহায্য করতে এবং গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সাধারণ মানুষের সামনে তুলে ধরার জন্য ১৩৫ কোটি টাকার সাহায্য দেয়া হচ্ছে।’
এছাড়াও ভারত গুগলের দায়িত্বে থাকা সঞ্জয় গুপ্ত জানিয়েছেন, এই সঙ্কটের সময় ভারত সরকারের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করবেন তারা। গুগলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এই ১৩৫ কোটি রুপির মধ্যে সংস্থার সমাজসেবামূলক শাখা সংগঠন google.org-এর পক্ষ থেকে

২০ কোটি রুপি দেয়া হয়েছে। ‘গিভ ইন্ডিয়া’কে যে টাকা দেয়া হচ্ছে তা দিয়ে মহামারির কারণে যেসব পরিবার সমস্যায় পড়েছে তাদের হাতে নগদ টাকা তুলে দেয়া হবে। জরুরি পরিস্থিতিতে চিকিৎসা সরঞ্জাম কিনতে, অক্সিজেনেরে জোগান বাড়াতে এবং করোনা পরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় কিটের সংখ্যা বাড়াতে বাকি টাকা যাবে ইউনিসেফের খাতে।

এছাড়াও গুগলের ৯০০ জন কর্মী মিলে ৩ কোটি ৭০ লাখ রুপি সাহায্য করেছেন বলে জানা গেছে। টাকার অঙ্ক ঘোষণা না করলেও ভারতের জন্য আর্থিক সাহায্য বরাদ্দের কাজ চলছে বলে জানিয়েছেন মাইক্রোসফটের সিইও সত্য নাদেল্লাও। টুইটারে তিনি লেখেন, ‘ভারতে এই মুহূর্তে যা পরিস্থিতি, তাতে ভারাক্রান্ত বোধ করছি। ভারতের সাহায্যে

এগিয়ে আসায় যুক্তরাষ্ট্র সরকারের কাছে কৃতজ্ঞ। চিকিৎসা সরঞ্জাম ক্রয়, প্রযুক্তিগত সাহায্য, ত্রাণ এবং অক্সিজেন কনসেনট্রেটর ক্রয়ের জন্য আমরাও সাহায্য চালিয়ে যাব।’ ভারতে ইতোমধ্যেই ৩১৮টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। আগামী দিনে প্রতিষেধক তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় কাঁচামাল,

টেস্ট কিট, ভেন্টিলেটর, পিপিই কিট এবং ওষুধপত্রও পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

সূত্র: আনন্দবাজার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *