Categories
Uncategorized

বসুন্ধরার এমডি সায়েম সোবহানের বিষয়ে যে সিন্ধান্ত নিলো আদালত

গুলশানের একটি ফ্ল্যাট থেকে তরুণীর ম;রদে;হ উদ্ধা;রের ঘ;টনায় বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীরের

বিদে;শে যাত্রায় নিষে;ধাজ্ঞা দিয়েছে আদালত। মঙ্গলবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক শহিদুল ইসলাম এই আদেশ দেন। এর আগে তার বিদেশ যাতায়াতের ওপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আদালতে আবেদন করেন মাম;লাটির তদন্ত কর্মকর্তা গুলশান থানার পরিদর্শক মোল্লা

আবুল হাসান। আবেদনে সাড়া দিয়ে বিচারক আগামী ৩০ মের মধ্যে তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেয়ার আদেশ দিয়েছেন। আদালতে গুলশান থানার সাধারণ নিবন্ধন শাখার কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন যা হয়েছিলঃ গুলশা;নের একটি ফ্ল্যাট থেকে সোমবার সন্ধ্যায় এক তরুণীর ঝু;লন্ত মর;দে;হ উদ্ধার করা হয়। এরপর

মেয়েটিকে আ;ত্মহ;ত্যায় প্ররো;চনা দেয়া;র রাতে গুলশান থানায় মা;মলা ক;রেন তার বোন। এতে আসা;মি করা হয় বসুন্ধরা এমডিকে।
পুলিশের গুলশান জোনের উপকমিশনার (ডিসি) সুদীপ কুমার চক্রবর্তী এসব তথ্য সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন। ওই তরুণীর গ্রামের বাড়ি কুমিল্লায়। ডিসি সুদীপ কুমার চক্রবর্তী সাংবাদিকদের জানান, সোমবার সন্ধ্যার দিকে গুলশান

২ নম্বরের ১২০ নম্বর সড়কের ফ্ল্যাট থেকে ওই তরুণীর ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত ম;র;দেহ উদ্ধা;র করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে আলা;মত সংগ্রহ করার পা;শাপাশি ;ম;র;হ ময়না;তদন্তে;র জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ম;র্গে পাঠায়। মাম’লার বরাত দিয়ে ডিসি বলেন, মে;য়েটির সঙ্গে ওই ব্য;বসা প্রতিষ্ঠানের এমডির সম্পর্ক দুই বছরের। এমডি এক বছর মেয়েটিকে বনানীর ফ্ল্যাটে রাখেন। পরে মনোমালিন্য হলে

মেয়েটি কুমিল্লায় চলে যায়। তবে মার্চে ঢাকায় এসে গুলশানের ওই ফ্ল্যাটে থাকা শুরু করেন।তিনি বলেন, ২৩ এপ্রিল একটি ইফতার পার্টি হয় ওই বাসায়। সে পার্টির ছবি ফেসবুকে আপলোড করা হলে মেয়েটির সঙ্গে ওই এমডির মনোমা;লিন্য হয়। পরে মেয়েটি তার বোনকে ফোন করে জানান, যে কোনো মুহূর্তে তার যে কোনো ঘ;টনা ঘটতে পারে। এই ফোনের পর কুমিল্লা থেকে সোমবার বিকেলে

ঢাকায় আসেন ওই তরুণীর বোন। তবে গুলশানের ফ্ল্যাটটির দরজা ভেতর থেকে ব;ন্ধ পান তিনি। ডিসি সুদীপ বলেন, সাক্ষ্যপ্রমাণ হাতে এলে ওই এমডির বি;রু;দ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। গুরুত্ব বিবেচেনায় গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মা;মলার তদন্ত করছেন জানিয়ে ডিসি বলেন, ঘটনা;স্থল থেকে সিসিটিভির ফুটে;জ সংগ্রহ করা হয়েছে। ফুটেজ বি;শ্লেষণ করার মা;ধ্যমে মা;মলার ত;দন্তে গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি আসবে। এক প্রশ্নের জবাবে ডিসি সুদীপ বলেন, চুক্তিপত্র অনুযায়ী ওই ফ্ল্যাটের

মাসি;ক ভাড়া এক লাখ টাকা। অগ্রিম দেয়া হয়েছে দুই লাখ টাকা। এরই মধ্যে দুই মাসের ভাড়া পরি;শো;ধ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *