Categories
Uncategorized

এবার ভারতের পাশে দাঁড়াল হংকং-আয়ারল্যান্ড

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ যে ভারতের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে নাড়িয়ে দিয়েছে, সে কথা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। মানুষের প্রাণ বাঁচাতে এখন একাধিক

দেশের কাছে সহযোগিতা চাইতে হচ্ছে ভারতকে। যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, রাশিয়ার মতো দেশ তো বটেই, সীমান্ত সংঘাত ঘিরে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক তলানিতে এসে ঠেকা চীনের কাছ থেকে সাহায্য নেয়ার বিষয়েও আর আপত্তি নেই দিল্লির। তবে ভারত বিপদে বিভিন্ন দেশের

সহযোগিতা চাওয়ার পর থেকেই অনেক দেশই ইতোমধ্যেই তাদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে। নতুন করে এই তালিকায় যুক্ত হলো হংকং এবং আয়ারল্যান্ড। শুক্রবার ৩০০ অক্সিজেন কনসেনট্রেটর পাঠিয়েছে হংকং। ইন্ডিগো বিমানের ফ্লাইটে এগুলো ভারতে এসে পৌঁছেছে।
এছাড়া আয়ারল্যান্ডও অক্সিজেন দিয়ে সাহায্য করছে। তারা ৭০০ অক্সিজেন

কনসেনট্রেটর এবং ৩৬৫টি ভেন্টিলেটর পাঠিয়েছে। এর আগে মস্কো থেকে বৃহস্পতিবার সকালে ভারতের দিল্লি বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায় দুটি বিমান। এই দুই বিমানে অক্সিজেন কনসেনট্রেটর, ভেন্টিলেটরসহ বেশকিছু করোনা চিকিৎসা সরঞ্জাম ভারতকে দিয়েছে রাশিয়া। বৃহস্পতিবার ভারতে পৌঁছানো বিমান দুটিতে রয়েছে ২০টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর, ৭৫টি ভেন্টিলেটর, ১৫০টি বেডসাইড মনিটর ও ওষুধ। অপরদিকে

বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রও ভারতের পাশে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। করোনাভাইরাস মহামারির দ্বিতীয় ঢেউ সামলাতে ভারতে ১০০ মিলিয়ন (১০ কোটি) ডলারেরও বেশি মূল্যের মেডিক্যাল উপকরণ সহায়তা হিসেবে পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। গত বুধবার এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে হোয়াইট হাউস। বাইডেন প্রশাসনের পাঠানো সহায়তা

উপকরণগুলোর মধ্যে রয়েছে এক হাজার অক্সিজেন সিলিন্ডার, দেড় কোটি এন৯৫ মাস্ক, ১০ লাখ র্যাপিড ডায়াগনস্টিক টেস্ট (আরডিটি)। এছাড়া ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি অ্যাস্ট্রাজেনেকার কাছে যুক্তরাষ্ট্রের টিকা উপকরণের নিজস্ব অর্ডারও ভারতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। সেগুলো দিয়ে ভারতীয়রা অন্তত দুই কোটি ডোজ করোনা টিকা উৎপাদন করতে পারবে।

সম্প্রতি ব্রিটেন, ফ্রান্স, ভুটান থেকেও সহযোগিতা পাচ্ছে ভারত। গত কয়েকদিনে টানা সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়তে থাকায় বিভিন্ন রাজ্যের পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। অক্সিজেনের অভাব, হাসপাতালে বেডের অভাব, ওষুধের সঙ্কট সবমিলিয়ে যেন দিশেহারা অবস্থা।এই সংকটকালে ভারতে ৪০ মেট্রিক টন অক্সিজেন পাঠানো হবে বলে

জানিয়েছে ভুটান। অক্সিজেন পাঠানোর জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ পাঠানো হয়েছে। ভারতের আসাম রাজ্যের সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভুটান থেকে অক্সিজেন ভর্তি ট্যাঙ্কার যাবে। ভেন্টিলেটর ও অক্সিজেন কনসেনট্রেটর পাঠিয়েছে ব্রিটেনও। এছাড়া ভারতকে ভেন্টিলেটর, অক্সিজেন এবং আইসিইউ’র জন্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে ফ্রান্স। এদিকে, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ইসরায়েল এবং জার্মানিও ভারতকে সাহায্য করার আশ্বাস দিয়েছে। প্রাথমিক পর্যায়ে ব্রিটেন থেকে প্রয়োজনীয় ওষুধ ভারতে এসেছে। এছাড়া ১০০টি ভেন্টিলেটর ও ৯৫টি

অক্সিজেন কনসেনট্রেটরও পাঠিয়েছে তারা। এই মুহূর্তে ভারতকে ৮টি অক্সিজেন জেনারেটর দিয়ে সাহায্য করবে তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *