Categories
Uncategorized

ভোলায় বিপদসীমার ১৯ সে.মি ওপরে মেঘনার পানি, শুরু হয়েছে ঝড়ো বাতাস

ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ এর প্রভাবে ভোলায় মেঘনার পানি বিপদসীমার ১৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে ঝু্ঁকির মধ্যে পড়েছে বেড়িবাঁধ।

মঙ্গলবার (২৫ মে) সন্ধ্যা ৬টায় এই সংবাদ লেখা পর্যন্ত ভোলার চরফ্যাসনে থেমে থেমে বইছে ঝড়ো বাতাস, সেই সঙ্গে রয়েছে হালকা বৃষ্টি।
এদিকে আজ সকাল ১০টা থেকে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে তিন থেকে চার ফুট পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় চরফ্যাসন উপজেলার কয়েকটি নিচু এলাকা

ডুবে গেছে। এতে উপজেলার দক্ষিণ আইচা, নিলকমল, নজরুল নগর, কুকরী-মুকরি, ঢালচর ও চরপাতিলাসহ বেশ কয়েকটি এলাকার প্রায় ৩০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ঘণ্টায় বাতাসের গতিবেগ ১৪ কিলোমিটার বেগে প্রবাহিত হচ্ছে। পানির উচ্চতাও বেড়ে যাওয়ায় জনমনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

অন্যদিকে মনপুরার উত্তর সাকুচিয়া পয়েন্ট দিয়ে একটি পুরাতন বাঁধ ধসে গেছে। তবে বিকল্প বাঁধ থাকায় এতে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করেনি।
ঢালচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুল সালাম হাওলাদার জানান, সকাল ১০টার দিকে হঠাৎ করেই পানি বাড়তে শুরু করে। এতে করে ওই চরটিতে থাকা অন্তত ৭ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়ে। মানুষের বাড়িঘরে পানি উঠে ঘরের

আসবাবপত্রসহ খাবার-দাবার নষ্ট হয়ে গেছে। এছাড়া জোয়ারের পানিতে রাস্তাসহ চলাচলের পথ ডুবে গেছে। রাতে পানি আরো বৃদ্ধি পেতে পারে এমন আশঙ্কায় ঝুঁকিপূর্ণ বাসিন্দাদের কোস্ট ট্রাস্টের অফিস ও পুলিশ ফাঁড়ির ভবনে নিরাপদ আশ্রয়ে‌ নেয়া হবে বলেও জানান তিনি। কুকরি-মুকরি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল হাসেম মহাজন জানান,

সকাল থেকে তার ইউনিয়নের কুকরি-মুকরি ও চর পাতিলা ৪ থেকে ৫ ফুট পানিতে প্লাবিত হয়েছে। সেখানে প্রায় ৮ হাজার লোক পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এসব বাসিন্দাদের আশ্রয় কেন্দ্রে নেয়া হচ্ছে। নদীতে থাকা মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলার তীরবর্তী এলাকায় নিরাপদে চলে আসতে শুরু করেছে। উপকূলের বাসিন্দাদের সতর্ক করতে মাইকিং করছে কোস্টগার্ডসহ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলো। জেলা প্রশাসক তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরীর বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ চরগুলোতে আটকে পড়া বাসিন্দাদের উদ্ধারে ইতিমধ্যে কোস্টগার্ড ও জেলা প্রশাসনের দুটি ইউনিট ঢালচরের

উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে। ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ মোকাবেলায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সবধরণের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *