Categories
Uncategorized

পালিয়ে যাওয়া সৈন্যদের ফিরিয়ে ফের যুদ্ধে পাঠানো হবে!

তালেবানের সঙ্গে লড়াইয়ে টিকতে না পেরে পার্শ্ববর্তী দেশ তাজিকিস্তানে পালিয়ে যাওয়া সৈন্যদের ফিরিয়ে ফের যু’দ্ধে পাঠানো হবে বলে

জানিয়েছে আফগান সরকার। দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা হামদুল্লাহ মহিব জানিয়েছেন, ইতোমধ্যে আফগানিস্তানের বিভিন্ন অঞ্চলের অবস্থানত্যাগী ২ হাজার ৩০০ সৈন্যকে ফের দায়িত্বে পাঠানো হয়েছে আফগানিস্তানের এক-তৃতীয়াংশ এলাকা এখন তালেবানের দখলে এবং

প্রতিদিনই তারা নতুন নতুন জেলা সরকারি বাহিনীর হাত থেকে ছিনিয়ে নিচ্ছে। বাদাখশানে তালেবান যো’দ্ধারা দ্রুত ওই এলাকার প্রধান শহর ফায়জাবাদের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। এর জেরে গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই তাজিক-সীমান্তবর্তী আফগান ঘাঁটিগুলো থেকে সৈন্য পালানোর ঘটনা ঘটছে। সবশেষ গত রোববার তালেবানের আক্রমণের

মুখে প্রায় হাজারখানেক আফগান সৈন্য তাজিকিস্তানে পালিয়ে যায়। মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে হামদুল্লাহ মহিব বলেছেন, তাজিকিস্তানে পালিয়ে যাওয়া সৈন্যরা ফিরে আসছে এবং তারা আবারো ফায়জাবাদের মানুষজনের সেবায় নিয়োজিত হবে। তবে এসব সৈন্যকে কোন প্রক্রিয়ায় ফেরত নেয়া হচ্ছে তা নিশ্চিত করেননি এ কর্মকর্তা। স্থানীয় এক সংসদ সদস্যের তথ্যমতে,

বাদাশখান প্রদেশের ২৮টি জেলার মধ্যে ২৬টি দখল করে নিয়েছে তালেবান এর মধ্যে তিনটি পেয়েছে একপ্রকার বিনাযুদ্ধেই। তালেবানের হা’ম’লার মুখে আরেক প্রতিবেশী দেশ উজবেকিস্তানেও বেশ কিছু আফগান সৈন্য আশ্রয় নিয়েছে বলে জানা গেছে। সম্প্রতি আফগানিস্তান থেকে পশ্চিমা বাহিনী প্রত্যাহারের ঘোষণার পর থেকেই সেখানে

তালেবানের হা’ম’লা বেড়ে গেছে। আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে দেশটি থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটোর সব সেনা বিদায় নেয়ার কথা রয়েছে। নির্ধারিত এই সময়ের মধ্যে সব বিদেশি সেনা আফগানিস্তান না ছাড়লে ভ’য়াব’হ পরিণতির হুঁ’শিয়া’রি দিয়েছে তালেবান। কিন্তু সশস্ত্র এই গোষ্ঠীর সঙ্গে সরকারি বাহিনীর লড়াই আরও তীব্র হলে আশপাশের দেশ অভিমুখে ফের আফগান শরণার্থীর ঢল নামতে

পারে বলে আশ’ঙ্কা করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে আফগানিস্তান সীমান্তের ক্র’সিংগুলোতে সতর্কতা জারি করেছে তাজিকিস্তান। Sharing is caring!এবার বাংলাদেশি ইমাম নিয়োগ দেবে দক্ষিণ কোরিয়ার খাপ্পাই মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টার। সম্প্রতি একজন ইমামের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে মসজিদ কর্তৃপক্ষ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইমাম আবশ্যক

বিজ্ঞপ্তিটি প্রকাশিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দেশ-বিদেশ থেকে নির্দিষ্ট নম্বরে অনেকেই ফোন করে যোগাযোগ করছেন। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, শিক্ষাগত যোগ্যতা হিসেবে কামিল অথবা দাওরা হাদিস বা মুফতি সমমান উল্লেখ রয়েছে। মাওলানা অথবা কোরআনে হাফেজ হলে অগ্রাধিকার পাবেন। বিশেষ যোগ্যতা হিসেবে আরবি, বাংলা, ইংরেজি ও

উর্দু ভাষায় দক্ষতা চাওয়া হয়েছে। শুদ্ধ কোরআন তিলাওয়াত হলে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। প্রাথমিকভাবে মাসিক বেতন বারো লাখ কোরিয়ান ওন (বাংলাদেশি ১ লাখ টাকা)। পরে বেতন বাড়ানো হবে। মসজিদের পক্ষ থেকে বাসস্থানের ব্যবস্থা করা হবে। আগ্রহীদের জীবন বৃত্তান্ত ও সব মূল সনদপত্রের স্ক্যান কপিসহ ইমেইলে (chyrafique@gmail.com অথবা abdurrahimballarpur@gmail.com)

১৫ জুলাইয়ের মধ্যে আবেদন করতে হবে। প্রাথমিক নির্বাচিতদের অনলাইনে সাক্ষাৎকার নেওয়া হবে। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাতটা থেকে আটটার মধ্যে নিম্নোক্ত মোবাইল নম্বরে ( ৮২০১০৫৯১৬৮৬৫৪ অথবা ৮২০১০৫৯৩৮৪৫৭৯) প্রার্থীদের যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। নিয়োগ বিষয়ে মসজিদ কমিটির সদস্য

মো. ইফতেখার বলেন, ইমাম হিসেবে যিনি নিয়োগ পাবেন, প্রথমে তিনি আসবেন। বছরখানেক পর পরিবার নিয়ে আসতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *