Categories
Uncategorized

স্ত্রীর অনুরোধে লাইফ সাপোর্টে থাকা স্বামীর শুক্রাণু সংগ্রহ করল চিকিৎসকরা

স্বামী করোনাইভাইরাসে আক্রান্ত। একেবারে মৃত্যুপথযাত্রী। একের পর এক অঙ্গ বিকল হয়ে গিয়েছে। বেঁচে ফিরে আসার ক্ষীণ আশা। যে কোনও

সময় তার মৃত্যুর সংবাদ আসতে পারে। এদিকে তাঁর স্ত্রীর সন্তান লাভের ইচ্ছা। কিন্তু স্বামী তো মৃত্যুশয্যায়। সেই পরিস্থিতিতে স্বামীর শরীর থেকে সন্তান উৎপাদন উপযোগী নমুনা সংগ্রহের জন্য জরুরী ভিত্তিতে আদালতের কাছে আবেদন করেন স্ত্রী। এরপরই গুজরাট হাইকোর্ট ভাদোদারার

ওই হাসপাতালকে নির্দেশ দিয়েছে কৃত্রিম উপায় কাজে লাগিয়ে স্বামীর শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহের জন্য। খবর-হিন্দুস্তান টাইমস। মঙ্গলবার এই নির্দেশ দিয়েছে সেখানকার আদালত। জরুরী ভিত্তিতে এই নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে বলে আদালত জানিয়েছে। জরুরী ভিত্তিতে এই শুনানি শেষ করে জাস্টিস আশুতোষ জে শাস্ত্রী ভাদোদারার ওই হাসপাতালকে নির্দেশ

দিয়েছে আইভিএফ অথবা এআরটি পদ্ধতির মাধ্যমে দ্রুত নমুনা সংগ্রহের জন্য। চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনে উপযুক্ত জায়গায় এই নমুনাটিকে সংরক্ষণ করার ব্যাপারেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আদালত সূত্রে জানা গিয়েছে আবেদনকারী মহিলা তাঁর স্বামীর সন্তানকে ধারণ করতে চান। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আদালতের নির্দেশ ছাড়়া সেই অনুমতি দেয়নি। এরপরই আদালতে

যান ওই মহিলা। তিনি আদালতে জানিয়েছিলেন কোভিড আক্রান্ত তাঁর স্বামীর মাল্টি অর্গান ফেলিওর হয়ে গিয়েছে। লাইফ সাপোর্ট সিস্টেমে তিনি রয়েছেন। তাঁর বেঁচে ফিরে আসার ক্ষীণ সম্ভাবনা রয়েছে। এরপরই আদালত জরুরী ভিত্তিতে এই নির্দেশ দেয়। আদালতের নির্দেশ পেয়েই মঙ্গলবারই শুক্রাণু সংগ্রহ করেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। হাসপাতালের শীর্ষ আধিকারিক অনিল

নাম্বিয়ার বুধবার সাংবাদিকদের জানান, চিকিৎসকরা মঙ্গলবার রাতেই ওই ব্যক্তির শুক্রাণু সংগ্রহ করেন। তিনি আরও জানান, রোগীর পরিবার এই প্রক্রিয়ায় রাজি থাকলেও যাঁর শুক্রাণু সংগ্রহ করা হবে তাঁর সম্মতি নেওয়া প্রয়োজন ছিল। কিন্তু এ ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি সম্মতি দেওয়ার মতো অবস্থায় ছিলেন না। ফলে প্রক্রিয়া সম্ভব হয়নি। আদালতের সম্মতি পাওয়ার পর তা করা হয়। কিন্তু বৃহস্পতিবারই ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়।

এখন আইভিএফ প্রক্রিয়ায় আদালত সম্মতি দিলে তবেই তা এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে বলে জানিয়েছেন নাম্বিয়ার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *