Categories
Uncategorized

জন্মদিনের উপহার দিতে মাঝরাতে প্রেমিকার ঘরে ঢুকে চোর অভিযোগে ধোলাই খেলেন প্রেমিক!

ফেনীর সোনাগাজীতে মাঝরাতে প্রেমিকাকে জন্মদিনের উপহার দিতে প্রেমিকার বাড়িতে ঢুকে চুরির অভিযোগে ধরা পড়ে ধোলাই খেলেন এক

প্রেমিক। প্রেমিকার পরিবার প্রেমিক হামিদুর রহমান আজাদকে রাতে আটক করে রশি দিয়ে বেঁধে ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘চোর’ উল্লেখ করে ছড়িয়ে দেয়। রোববার (২৯ আগস্ট) রাতে উপজেলার বগাদানা ইউনিয়নের তাকিয়া বাজার সংলগ্ন পাইকপাড়া গ্রামের

তাকিয়া আশ্রাফ আলী কবিরাজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় দুই পরিবারের পক্ষ থেকে পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার প্রেক্ষিতে প্রেমিক হামিদুর রহমান আজাদ ও প্রেমিকার ভাই দীন মোহাম্মদকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের দুইজনকে সোমবার (৩০ আগস্ট) দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ

করা হয়েছে। স্থানীয় সূত্র জানায়, উপজেলার বগাদানা ইউনিয়নের আবদুল হাইয়ের কন্যা ও এক পুত্রকে প্রায় পাঁচ বছরর আগে থেকে প্রাইভেট পড়াতেন হামিদুর রহমান আজাদ। সে সূত্রে, গত দুই বছর থেকে আবদুল হাইয়ের স্কুল পড়ুয়া কন্যার (নবম শ্রেণি) সাথে আজাদের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেমিকার যোগসাজশে ২৯ আগস্ট রাত দুইটায় ওই

ছাত্রীকে জন্মদিনের উপহার দিতে ঘরের ভেতরে ঢুকেন প্রেমিক আজাদ। প্রেমিকার পিতা আবদুল হাই ও তার ভাই দীন মোহাম্মদ টের পেয়ে আজাদকে আটক করে বেধড়ক পিটিয়ে ঘরের সামনে বৈদ্যুতিক খুঁটির সাথে বেঁধে রাখে। এরপর ছবি তুলে দীন মোহাম্মদের ফেসবুক আইডিতে খুঁটিতে বাঁধা আজাদের ছবি পোস্ট করেন। ফেসবুকে দেয়া

পোস্টে তিনি উল্লেখ করেন ‘তাকিয়া বাজারে আশ্রাফ আলী কবিরাজ বাড়িতে ধরা খেয়েছে স্বর্ণ চোর। রাত তিনটায় দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকেছে, পুলিশ প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ।’ খবর পেয়ে পুলিশ প্রেমিক আজাদকে উদ্ধার করে। এরপর সোনাগাজী হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়। মেয়ের বাবা আবদুল হাই অভিযোগ করেন,

দীর্ঘ দুই বছর যাবত আজাদ তার স্কুল পড়ুয়া কন্যাকে প্রেম ও বিয়ের প্রস্তাবে উত্যক্ত করে আসছে। তিনি ও তার মেয়ে বিয়ে ও প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আজাদ রোববার রাতে সুকৌশলে ঘরে ঢুকে তার কন্যাকে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। তিনি ও তার ছেলে মিলে আজাদকে আটক করে রশি দিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সাথে বেঁধে রাখেন।

তার ছেলের সাথে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে তার ছেলের লাঠির আঘাতে আজাদের মাথা ফেটে যায়। তিনি আজাদকে একমাত্র আসামি করে তার স্কুল পড়ুয়া কন্যাকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন। অপর দিকে আজাদের পিতা বেলাল হোসেন অভিযোগ করেন, আবদুল হাইয়ের কন্যাকে প্রাইভেট পড়ানোর সূত্র ধরে তার ছেলের সাথে ওই স্কুল ছাত্রীর

প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। রোববার মেয়েটির জন্মদিন ছিল। মেয়েটি বিষয়টি তার ছেলেকে জানালে সে দুই প্যাকেট লজেন্স ও একটি কলম উপহার নিয়ে তাঁর বাড়িতে যায়। রাতে সেখানে খাওয়াদাওয়াও করে। কিন্তু, গভীর রাতে তার ছেলেকে নির্মমভাবে বৈদ্যুতিক খুঁটির সাথে বেঁধে শারীরিক নির্যাতন চালিয়ে আহত করে আব্দুল হাইয়ের পরিবার।

দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে কথিত স্বর্ণ চুরির অভিযোগ এনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবিও ছড়িয়ে দেয়। তাই তিনি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দীন মোহাম্মদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। সোনাগাজী মডেল থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে হামিদুর রহমান আজাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে স্কুল

ছাত্রীর বাবা। আর খুঁটির সাথে বেঁধে ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগে দীন মোহাম্মদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেছে ছেলের বাবা। তাদের দুইজনকে গ্রেফতার করা
হয়েছে।

/এস এন

Categories
Uncategorized

১৬ বছরের সা’জাপ্রাপ্ত আসামি গ্রে’ফ’তার হলেন ২৫ বছর পর

অবাক করার মত এখ ঘটনা ঘটেছে কুড়িগ্রামে ১৬ বছরের সা;জা;প্রা;প্ত আসা;মি ২৫ বছর পলা;তক থা;কার অবশেষে পুলিশের হাতে

গ্রে;ফতার হয়েছেন। রোববার ভোরে কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পেছন থেকে তাকে গ্রে;ফতা;র করা হয়।গ্রে;ফ;তারকৃ;ত আসা;মি হলেন কুড়িগ্রাম সদরের ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নের কাজী আনোয়ারুল হকের ছেলে কাজী আজানুল হক।

পুলিশ সূত্র জানায়, ১৯৯৪ সালে ঠাকুরগাঁও জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার লাহিড়ী হাট খাদ্যগুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসিএলএসডি) হিসেবে কর্মরত থাকাকালে তার বিরুদ্ধে বালিয়াডাঙ্গী থানায় চাল ও গম আত্মসাৎ এর অভিযোগে মামলা করা হয়। ওই মামলায় তার ১৬ বছর সাজা হয়। আসামি মামলা হওয়ার পর থেকে পলাতক থেকে

আত্মগোপনে ছিলেন। অবশেষে তিনি ২৫ বছর পর পুলিশের হাতে গ্রেফতার হন। কুড়িগ্রাম সদর থানার ওসি খান মো. শাহরিয়ার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গ্রেফতারকৃত আসামি কাজী আজানুল হক আদালতে পাঠানো হয়েছে।

Categories
Uncategorized

ওসির ভাব নিয়ে মামলা তদন্ত করেন এসআইয়ের স্বামী, সেই লাভলীকে বদলি

কক্সবাজারের সেই পিবিআই কর্মকর্তা বিতর্কিত এস আই লাভলী কে বদলি করা হয়েছে এর আগে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ ওঠে এবং তার

দ্বিতীয় স্বামী পুলিশের লোক না হয়েও ওসির মত তদন্ত করে স্ত্রীর মামলা এতে ক্ষুব্ধ প্রশাসনের কর্মকর্তারা এবং এলাকাবাসী। তবে নিজেদের এমন অভিযোগের ব্যাপারে তারা সত্যকে অস্বীকার করেছে যদিও পরবর্তীতে খোঁজখবর নিয়ে সত্যতা পাওয়ায় বদলি করে দেয়া হয়েছে তাকে

অবশেষে দীর্ঘ একযুগের বেশি সময় পর কক্সবাজার থেকে বদলি করা হয়েছে সর্বশেষ পিবিআইয়ে কর্মরত বিতর্কিত এসআই লাভলী ফেরদৌসিকে। পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে স্বামীকে ব্যবহার করে বহু বিতর্কিত কর্মকাণ্ড প্রকাশের পর তাকে কক্সবাজার থেকে ফেনীতে বদলি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পিবিআই কক্সবাজারের

এসপি সরোয়ার আলম। পাশাপাশি এসআই লাভলীর বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগ তদন্তে একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।
কিন্তু দারোগা স্ত্রীর বদলি ঠেকানো বা চট্টগ্রাম জেলা কিংবা মেট্রোতে নিতে ইতোমধ্যে ঢাকায় গিয়ে জোর তদবির করছেন লাভলীর অপকর্মের মূল হাতিয়ার স্বামী শাহজাহান। সূত্রমতে, কক্সবাজারে বিভিন্ন বিভাগে

দায়িত্ব পালনকালে এসআই লাভলীর বিরুদ্ধে অর্থ লেনদেন, মামলা তদন্তে স্বামীকে সঙ্গে নেওয়া, টাকা আত্মসাৎ, জমি দখল, ই’য়া’বা ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ, তদবির বাণিজ্য, স্বামী কর্তৃক তদন্তে প্রভাব বিস্তার করে মিথ্যা তদন্ত রিপোর্ট দেওয়াসহ নানা অভিযোগে সর্বশেষ কর্মস্থল পিবিআই থেকে তাকে বদলি করা হয়েছে। মামলা তদন্তের

রিপোর্ট দেওয়ার বিষয় নিয়ে অর্থ লেনদেনের একটি অডিও সম্প্রতি ফাঁস হওয়ার পর মামলা তদন্তে স্বামীর সম্পৃক্ততা উঠে আসে। এ বিষয়ে গত ২৩ আগস্ট ‘ওসির ভাব নিয়ে’ মামলা তদন্ত করেন এসআইয়ের স্বামী! শিরোনামে যুগান্তর অনলাইনে একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ হলে কর্তৃপক্ষ তাকে বদলির সিদ্ধান্ত নেয় বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্র। দীর্ঘ একযুগ

ঘুরে-ফিরে কক্সবাজারে অবস্থান নেওয়া এসআই লাভলীর বদলি হয়েছে জেনে তার কর্মকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত অনেকে সন্তোষ প্রকাশ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে পিবিআইয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, লাভলীর বিরুদ্ধে বারবার অভিযোগ আসায় আমরা নিজেরাও বিব্রত। তাকে যতটা মামলা তদন্ত করতে

দেওয়া হয়েছে প্রায় সবটিতে নানা ধরনের অভিযোগ আসায় গেল ছয় মাসে লাভলীকে একটি মামলাও তদন্ত করতে দেওয়া হয়নি। সম্প্রতি অনেক ভুক্তভোগী পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ দিয়েছেন। এসব অভিযোগ তদন্ত করা হচ্ছে। একই সঙ্গে তার বিরুদ্ধে তদন্ত করার জন্য ঢাকা থেকে একটি টিম কক্সবাজারে আসবে বলেও জানান এই কর্মকর্তা।

বদলির বিষয়ে জানতে এসআই লাভলীকে কল করা হয়। তিনি ফোন রিসিভ না করায় বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি। পিবিআই কক্সবাজারের এসপি সরোয়ার আলম বলেন, এসআই লাভলীকে বদলির পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে উঠা সব অভিযোগই তদন্ত করা হচ্ছে। আপাতত এর বাইরে কিছু বলা যাবে না। সম্প্রতি গণমাধ্যম একটি খবর বেশ ভালোভাবে আলোচিত হয় সেটি হচ্ছে

এসআই স্ত্রীর স্বামী মামলা তদন্ত করেন ওসির মত করে পুলিশ কর্মকর্তা না হয়েও নিজের স্ত্রীর ক্ষমতাবলে তিনি বিভিন্ন সময়ে জমি দখলসহ বিভিন্ন ধরনের নেতিবাচক কর্মকান্ড করে আসছেন দীর্ঘদিন থেকেই এবং স্ত্রীর মামলা তদন্ত করতে যান স্বামী

Categories
Uncategorized

এই সেই পাইলট

ভারতের নাগপুরে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের যে ফ্লাইটটি জরুরি অবতরণ করেছে, সেটির পাইলট পেশাগত দক্ষতা ও নৈপুণ্যের জন্য

আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেয়েছিলেন। সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, এ কারণেই হয়ত মাঝ আকাশে হার্ট অ্যাটাকের পরও প্লেনটি নামাতে সক্ষম হয়েছেন তিনি। শুক্রবার সকালে বোয়িং-৭৩৭-৮০০-এর (বিজি-২২) ফ্লাইটটি ১২৪ জন যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে ওমান থেকে উড্ডয়ন করে।

এরইমধ্যে পাইলটের হার্ট অ্যাটাকের পর নাগপুরে এসে জরুরি অবতরণ করে প্লেনটি। তবে এতে আরোহী কারও কোনো ক্ষতি হয়নি। পাইলট নওশাদ আতাউল কাইয়ুমকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরমধ্যে তার এনজিওগ্রামও হয়েছে। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ও বাংলাদেশ বিমান সূত্র জানিয়েছে, এই সেই পাইলট নওশাদ,

যিনি প্রায় পাঁচ বছর আগে একটি ফ্লাইট দক্ষতার সঙ্গে নিরাপদে জরুরি অবতরণ করতে পারায় পেশাগত দক্ষতা ও নৈপুণ্যের জন্য আন্তর্জাতিক পাইলট অ্যাসোসিয়েশনের স্বীকৃতি পেয়েছিলেন। ২০১৬ সালের ২২ ডিসেম্বর এ ঘটনা। এ দিন ভোররাতে মাস্কাট বিমানবন্দর থেকে বাংলাদেশ বিমানের একটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ প্লেনে ১৪৯ যাত্রী ও সাত ক্রু নিয়ে চট্টগ্রামের

উদ্দেশে যাত্রা করেন ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল। বিজি-১২২ ফ্লাইটটি উড্ডয়ন করার পর মাস্কাট বিমানবন্দরের কন্ট্রোল টাওয়ার থেকে ক্যাপ্টেন নওশাদকে জানানো হয়, রানওয়েতে টায়ারের কিছু অংশ পাওয়া গেছে, যা সম্ভবত তার প্লেনের হতে পারে। ওই তথ্যের পর অধিকতর নিরাপত্তার স্বার্থে ক্যাপ্টেন নওশাদ তার ফ্লাইটটি চট্টগ্রামের

পরিবর্তে ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের সিদ্ধান্ত নেন। এ সময় তার অনুরোধে ঢাকায় জরুরি অবতরণের জন্য সব ধরনের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। অবতরণের আগে ক্যাপ্টেন ফ্লাইটটি নিয়ে রানওয়ের উপরে দুই বার লো-লেভেলে ফ্লাই করেন। তখন দেখা যায়, আসলেই প্লেনটির

পেছনের দুই নম্বর টায়ারটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কিন্তু ক্যাপ্টেন নওশাদ অসামান্য দক্ষতার সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত টায়ার ও ল্যান্ডিং গিয়ারসহ নিরাপদে ফ্লাইটটি অবতরণ করাতে সক্ষম হন। সবাই সুস্থ ও নিরাপদে প্লেন থেকে নেমে আসেন। এমন দক্ষতার কারণে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল

কাইয়ুমকে পেশাগত দক্ষতা ও নৈপুণ্যের প্রশংসা করে স্বীকৃতি দেয় আন্তর্জাতিক পাইলট অ্যাসোসিয়েশন।

Categories
Uncategorized

জাতীয় পার্টিকে নিয়ে দেশের মানুষ স্বপ্ন দেখছে: জিএম কাদের

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের এমপি বলেছেন, জাতীয় পার্টি এখন অত্যন্ত সম্ভাবনাময় রাজনৈতিক শক্তি। জাতীয়

পার্টিকে নিয়ে দেশের মানুষ স্বপ্ন দেখছে। এক বুক প্রত্যাশা নিয়ে জাতীয় পার্টির দিকে তাকিয়ে আছেন দেশের কোটি কোটি মানুষ। আজ শুক্রবার (২৭ আগস্ট) বিকেলে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয় মিলনায়তনে পার্টির বিভাগীয় অতিরিক্ত মহাসচিবদের সঙ্গে

আনুষ্ঠানিক সভায় তিনি এসব কথা বলেন। জিএম কাদের বলেন, দীর্ঘদিন রাষ্ট্রক্ষমতায় থেকে আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যন্ত কোন্দলে জর্জরিত। আর বিএনপি নেতৃত্বহীনতা আর কোন্দলের কারণে ইতোমধ্যেই দুর্বল হয়ে পড়েছে। সাধারণ মানুষের মূল্যায়ণে রাষ্ট্র পরিচালনায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির চেয়ে জাতীয় পার্টি অনেক বেশি সফল ছিল।

সাধারণ মানুষের আস্থা ও বিশ্বাসের প্রতি সম্মান দেখিয়ে জাতীয় পার্টিকে আরও শক্তিশালী করতে হবে। সাধারণ মানুষের প্রত্যাশা পূরণে জাতীয় পার্টি কখনোই আপস করবে না। তিনি বলেন, স্থানীয় সরকারের প্রতিটি নির্বাচনে অংশ নেবে জাতীয় পার্টি। প্রতিটি নির্বাচনে জাতীয় পার্টি বিজয়ী হতেই মাঠে লড়বে। কেউ দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে অবস্থান নিলে,

তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। তৃণমূলের প্রতিটি নির্বাচনের মাধ্যমে ঘরে ঘরে জাতীয় পার্টির দাওয়াত পৌঁছে দেওয়া হবে। জাপা চেয়ারম্যান বলেন, প্রায় ৪০টি নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের মধ্যে মাত্র তিনটি দল মাঠে আছে। বাকিরা নেতা বা সাইনবোর্ড সর্বস্ব রাজনৈতিক দলে পরিণত হয়েছে। আলোচনায় অংশ নেন জাতীয় পার্টির

প্রেসিডিয়াম সদস্য ও অতিরিক্ত মহাসচিব সাহিদুর রহমান টেপা, এটিইউ তাজ রহমান, ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, অ্যাডভোকেট মো. রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, মেজর (অব.) রানা মো. সোহেল ও লিয়াকত হোসেন খোকা।

Categories
Uncategorized

অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে তরুণীসহ তাঁতীলীগ নেত্রী আটক

ভোলার লালমোহনে আবাসিক বাসায় তরুণী রেখে থেরাপি ব্যবসার আড়ালে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে এক তরুণীসহ তাঁতী লীগ

নেত্রীকে আটক করা হয়েছে।লালমোহনের ফরাজগঞ্জ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের তালতলা গ্রামে মোছা. শাহিনুর বেগম নামে ওই নেত্রী দীর্ঘদিন থেরাপি ব্যবসার আড়ালে নিজের বাড়িতে এমন অসামাজিক কার্যকলাপ চালিয়ে আসছেন বলে স্থানীয়দের অভিযোগ।শাহিনুরের বাসায় তার

ভিজিটিং কার্ড পাওয়া গেছে। যাতে শাহিনুরের পরিচয় ভোলা জেলা তাঁতী লীগের প্রতিষ্ঠাতা যুগ্ম আহবায়ক হিসেবে উল্লেখ রয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় অভিযোগ পেয়ে লালমোহন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. জাহিদুল ইসলাম থানা পুলিশসহ ওই বাসায় অভিযান চালান। এ সময় বাসায় এক তরুণীকে পাওয়া যায়। এছাড়া ঘরের আশপাশে

ব্যবহৃত কনডম পাওয়া যায়। লালমোহনের ফরাজগঞ্জ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড চৌকিদার বাড়ির পাশে নবনির্মিত একটি ভবনে দীর্ঘদিন ধরে এমন কর্মকাণ্ড চলছে বলে স্থানীয়দের অভিযোগ। স্থানীয় নারী-পুরুষসহ একাধিক প্রতিবেশী জানান, শাহিনুরের স্বামী শাহে আলম ঢাকায় ভ্যানগাড়ি চালান। তা সত্ত্বেও বাড়িতে শাহিনুর একতলা ছাদ দিয়ে পাকা ভবন নির্মাণ করেছেন।

বাসায় নতুন ফ্রিজ, সোফাসহ দামি আসবাবপত্রও রয়েছে। তারা জানান, ওই ভবনে থেরাপি ব্যবসার আড়ালে তার মূল কর্মকাণ্ড বিভিন্ন অপরিচিত মেয়েদের এনে অবৈধ কর্মকাণ্ড পরিচালনা করা। তার বাড়িতে প্রতিদিনই মোটরসাইকেল নিয়ে অপরিচিত লোকদের আনাগোনা চোখে পড়ে আশপাশের লোকজনের। এ নিয়ে পার্শ্ববর্তী লোকজন

শাহিনুরকে কিছু বললে তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শাহিনুরের আপন ভাসুর ওই ওয়ার্ডের ইউপি চৌকিদার। তিনি শাহিনুরের এসব কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করলে তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দিয়ে জেল পর্যন্ত খাটিয়েছে। এছাড়া এলাকার আরও কয়েকজন প্রতিবাদ করলে তাদেরও হয়রানি করে।

যে কারণে শাহিনুরের কর্মকাণ্ড নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা তৈরি হয়। শাহিনুরের বাসায় পাওয়া তরুণীর নাম মিতু। তার বাবা-মা ঢাকায় থাকেন বলে সে জানায়। তাদের আটক করে আনার সময় শাহিনুরের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে এলাকাবাসী মিছিলও করেন। তবে শাহিনুর ও মিতুকে আটক করে থানায় নিয়ে এলেও

পরে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. জাহিদুল ইসলাম জানান, সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ বা প্রমাণ না পাওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্টে সাজা দেওয়া যায়নি।লালমোহন থানার ওসি মাকসুদুর রহমান মুরাদ বলেন, এখনো শাহিনুর ও

মিতু থানা হেফাজতে রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে কী ধরনের আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া যায় তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Categories
Uncategorized

রিমান্ডে ‘জামাই আদর’, মুখ খোলেনি ডিবি পুলিশরা

ফেনীতে সোনার বার ডাকাতির ঘটনায় দায়ের করা মামলায় রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলেও এখন পর্যন্ত মুখ খোলননি জেলা গোয়েন্দা

পুলিশের (ডিবি) বরখাস্তকৃত ওসি সাইফুল ইসলামসহ ৬ পুলিশ সদস্য। পাশাপাশি ঘটনার ২০ দিন পার হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত বাকি ৫টি বার উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। শুক্রবার (২৭ আগস্ট) সোনার বার উদ্ধার, লুট ও ডাকাতির ঘটনায় তৃতীয় বারের মত রিমান্ড শেষে ফেনির সিনিয়র

জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জাকির হোসেনের আদালতে আসামিদের তোলা হয়। আদালত তাদেরকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। এদিকে এই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহ আলম জানান, ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদেও মুখ খোলেননি বরখাস্তকৃত ওসি সাইফুলসহ বাকিরা। তাই তৃতীয় দফা রিমান্ড শেষে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

তবে পুলিশের একটি সূত্র জানায়, আটক আসামিরা রিমান্ডে ছিলেন জামাই আদরে। তাই এবারও কোনো তথ্য মেলেনি। একই সঙ্গে পাঁচটি বারও উদ্ধার হবে না।এর আগে মঙ্গলবার ফেনী কারাগার থেকে রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পিবিআই কার্যালয়ে নেওয়া হয় সাইফুল ইসলামকে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআইয়ের পরিদর্শক মো. শাহ আলম জানিয়েছেন, পাঁচটি স্বর্ণের বার উদ্ধার, ডাকাতি ও লুটের বিষয়ে মামলার প্রধান আসামি ডিবির ওসি সাইফুল ইসলামকে রিমান্ডে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এসব বিষয়ে রিমান্ডে তিনি ক্লিয়ার কোনো তথ্য দেননি।

চলমান রিমান্ডে ক্লিয়ারভাবে কোনো তথ্য না দিলে তদন্তের স্বার্থে তার আবারও রিমান্ড আবেদন করা হবে।

Categories
Uncategorized

নিখোঁজ যুবককে উদ্ধারে নেমে ডুবুরির মৃত্যু

দিনাজপুরের কাহারোলে নিখোঁজ যুবকের মরদেহ উদ্ধার করতে এসে নদীতে ডুবে আব্দুল মতিন (৪২) নামের ফায়ার সার্ভিসের এক ডুবুরির

মৃত্যু হয়েছে।শনিবার (২৮ আগস্ট) সকালে উপজেলার ভদ্রবাজার এলাকায় ঢেপা নদীতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তিনি রংপুর ফায়ার সার্ভিসে কর্মরত ছিলেন। ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সূত্র জানায়, উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের সুলতানপুর ভেন্ডাবাড়ী এলাকার বিনয় দেব শর্মার ছেলে সুজন

দেব শর্মা শুক্রবার দুপুরে ঢেপা নদীতে বিগ্রহকে প্রণাম করতে নেমে নিখোঁজ হন। স্থানীয়রা অনেক খোঁজাখুঁজির পরও না পেয়ে ফায়ারসার্ভিসকে খবর দেন। শনিবার সকালে রংপুর থেকে ফায়ার সার্ভিসের একটি ডুবুরি দল এসে উদ্ধার কাজ শুরু করে। আব্দুল মতিন নদীতে ডুব দিলে তার কোমরের রশি কোনো কিছুর সঙ্গে

আটকে যায়। এতে করে দীর্ঘ সময় তিনি পানির নিচে আটকে ছিলেন। পরে অন্য ডুবুরিরা টের পেয়ে নদীতে নেমে তাকে উদ্ধার করেন। পরে তাকে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণ করেন। দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মর্তুজা রহমান বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

Categories
Uncategorized

মোবাইলে বিয়ে, সৌদি প্রবাসীর ২৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে তা’লাক, নববধূ কারাগারে

প্রবাসীদের স্ত্রী স্বামীর টাকা হাতিয়ে নিয়ে প্রেমিকের সাথে পালিয়ে যাওয়ার মত ঘটনা সমাজে অহরহ ঘটছে । প্রতারনার শিকার হচ্ছেন প্রবসাী

স্বামীরা এমনি এক প্রতরণার শিকার হয়েছেন সৌদি প্রবাসী মোঃ খেকন। জানা গেছে, লক্ষ্মীপুরে বিয়ের নামে প্র;তা;রণার মামলায় নুরজাহান স্মৃতি নামের এক নববধূকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। বুধবার (২৫ আগস্ট) আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে আদালত

জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। স্মৃতি সদর উপজেলার পশ্চিম লক্ষ্মীপুর এলাকার মৃ;ত নুরনবী;র মেয়ে। ভুক্তভোগী ব্যক্তির নাম মো. খোকন। তিনি সৌদিপ্রবাসী। তার বাড়ি কমলনগর উপজেলার হাজিরহাট ইউনিয়নের চরজাঙ্গালিয়া গ্রামে। ভুক্তভোগী প্রবাসী, মামলার এজাহার ও পুলিশ সূত্র জানায়, সৌদি

প্রবাসী মো. খোকনের সঙ্গে মোবাইলে ১০ লাখ টাকা দেনমোহরে নুরজাহান স্মৃতির বিয়ে হয়। দেনমোহরের নিশ্চয়তার জন্য প্রবাসীর বড় ভাইয়ের ব্যাংক হিসাবের একটি চেক সুরক্ষা হিসেবে রেখে দেয় মেয়ের পরিবার। স্মৃতি স্বামীর গ্রামের বাড়িতে থাকতে অপারগতা প্রকাশ করেন। পরে স্বামীকে বিভিন্নভাবে বুঝিয়ে জেলা শহরের উপকণ্ঠে জমি কিনতে

১০ লাখ টাকা নেয় ওই নববধূ। এভাবে বিভিন্ন অজুহাতে খোকনের কাছ থেকে ২৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন তিনি। জুন মাসে সৌদি থেকে দেশে আসেন খোকন। ১৯ জুন সদর উপজেলার পশ্চিম লক্ষ্মীপুর এলাকায় মেয়ের বাড়িতে এসে আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে হয়। ওইদিন জোরপূর্বক স্মৃতির পরিবার খোকনের কাছ থেকে ৩০০ টাকার রেজিস্ট্রিকৃত স্ট্যাম্পে অঙ্গীকারনামা নেন।

এতে স্মৃতিকে শারীরিক, মানসিক ও ফোনে কথা বলতে বাধা না দেয়া এবং খারাপ আচরণ না করাসহ কয়েকটি শর্ত জুড়ে দেয়া হয়। এর আগে ২০২০ সালের ১৩ নভেম্বর মোবাইলে সৌদি থেকে ওই তরুণীকে বিয়ে করেন খোকন। আনুষ্ঠানিক বিয়ের পর স্মৃতিকে খোকন তার বাড়িতে তুলে নিতে চাইলে কালক্ষেপণ শুরু করে মেয়ের পরিবার।

এরমধ্যে হঠাৎ করে ১৮ জুলাই স্মৃতি লক্ষ্মীপুর আদালতে উপস্থিত হয়ে খোকনকে তালাক দেন। এ ঘটনায় গত ২১ আগস্ট বাদী হয়ে কমলনগর থানায় নুরজাহান স্মৃতিসহ সাতজনের নামে প্রতারণা মামলা দায়ের করেন খোকনের বড় ভাই আবুল খায়ের মানিক। অন্য আসামিরা হলেন-সালেহ আহম্মদ, মো. ইব্রাহিম, জেসমিন আক্তার, মো. রিংকু, আলী

হায়দার চৌধুরী প্রিয় ও ঘটক মো. শাহজাহান। এরমধ্যে ঘটক শাহজাহান ছাড়া অন্য ছয় আসামি বুধবার আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। আদালতের বিচারক ওই নববধূকে কারাগারে পাঠিয়ে অন্য আসামিদের জামিন মঞ্জুর করেন। ভুক্তভোগী খোকন বলেন, স্মৃতিকে পছন্দ হওয়ায় তার সব শর্তে রাজি হয়েছি।

সে বিভিন্ন অজুহাতে আমার কাছ থেকে ২৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। বিয়ের নামে সেসহ তার পরিবার পরিকল্পিতভাবে প্রতারণা করেছে। আমি তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। এ ব্যাপারে কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোসলেহ উদ্দিন বলেন, বিয়ের নামে স্মৃতি ও তার পরিবার প্রবাসীর সঙ্গে প্রতারণা করেছে। এ ঘটনায়

পাঁচজনকে আদালত জামিন দিলেও স্মৃতিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। স্মৃতি এখন কারাগারে আছেন।

Categories
Uncategorized

বিশ্ববিদ্যালয় খোলার সাথে সরকার হটানোর ষড়যন্ত্র চলছে : কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, শিগগিরই বিশ্ববিদ্যালয় খুলছে। বিশ্ববিদ্যালয়

খুললে অনেক অপশক্তি এবার মাঠে নামবে, চ্যালেঞ্জ করবে। তারা প্রস্তুতি নিচ্ছে, বিশ্ববিদ্যালয়কে ঘিরেই তারা অস্থিতিশীলতা তৈরি করবে। শেখ হাসিনার সরকারকে হটানোর জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। শুক্রবার (২৭ আগস্ট) গুলিস্তানের বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ঢাকা

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ আয়োজিত আলোচনায় সভায় এসব কথা বলেন তিনি। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, এখনও বাংলার আকাশে ষড়যন্ত্রের গন্ধ। সতর্ক থাকতে হবে। সামনের দিনে আরো চ্যালেঞ্জ আছে। দক্ষিণ এশিয়ার একটি দেশে ক্ষমতার পরিবর্তনের পর একটি গোষ্ঠী উচ্ছ্বসিত। এখানে তাদের

মতলবটা কী? শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি চলছে। ফলে অনেক অস্থিরতা সৃষ্টি হতে পারে। এবার মাঠে নামবে, বিশ্ববিদ্যায়কে ঘিরেই তারা বিশৃঙ্খলা তৈরি করবে। বিশ্ববিদ্যালয় খোলার প্রস্তুতির সঙ্গে সঙ্গে তারা অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরির প্রস্তুতি নিচ্ছে। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এসময় চন্দ্রিমা উদ্যানে সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা

জিয়াউর রহমানের কবর নেই, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার এমন মন্তব্যের কথা উল্লেখ করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী জিয়াউর রহমানের লাশ নিয়ে ঐতিহাসিক সত্যের উদঘাটন করেছেন। এসময় বিএনপি নেতাদের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে আও্যামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক

বলেন, চন্দ্রিমা উদ্যানে দাফন করা বাক্সে জিয়াউর রহমানের লাশ ছিলো পারলে সেটা প্রমাণ করুন। মিথ্যা দিয়ে সত্য ইতিহাস চাপিয়ে রাখা যাবে না মন্তব্য করেন নানক। আলোচনা সভায় আলচক হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান, আও্যামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাশের সভাপতিত্বে সভার শুরুতে ১৫ আগস্ট নিহতদের স্মরণে এক মিনিত নিরবতা পালন করা হয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ডাকসুর সাবেক এজিএস ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন।

জিয়াউর রহমানের কবর নেই, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার এমন মন্তব্যের কথা