Categories
Uncategorized

অস্ট্রেলিয়াকে কাঁদিয়ে সিরিজ জিতল বাংলাদেশ

এই প্রথমবার দ্বিপক্ষীয় পাঁচ ম্যাচের সিরিজ খেলতে এসেছে অজিরা। এসেই যেন বড় বিপদে পড়ে গেল ক্রিকেটের পরাশক্তি অস্ট্রেলিয়া।নতুন

খবর হচ্ছে,অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে সিরিজ জিতল বাংলাদেশ। এর আগে, মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এ ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি টিম টাইগার। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটের বিনিময়ে ১২৭ রান সংগ্রহ করতে পেরেছে তারা। জয়ের

জন্য অজিদের প্রয়োজন ১২৮ রান। অস্ট্রেলিয়া শেষ পর্যন্ত ওভার শেষেস উইকেটে ১১৭ রান সংগ্রহ করে ফলে বাংলাদেশ রানে জয় পায়।
মিরপুরে আজ সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই অসি বোলারদের তোপের মুখে টাইগাররা। ৩ রানের মধ্যে তারা হারিয়ে বসে দুই ওপেনার সৌম্য সরকার আর নাইম শেখকে।

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের শেষ বলে ও তৃতীয় ওভারের প্রথম বলেই দুই ওপেনারকে হারিয়েছে টাইগাররা। সিরিজে জয়ের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে ২.১ ওভারে মাত্র ৩ রানে দুই ওপেনারকে হারিয়ে চাপে বাংলাদেশ। উইকেট নিয়েছেন জশ হ্যাজলেউড ও অ্যাডাম জাম্পা। সৌম্য সরকার ফিরেছেন ২ রানে ও নাইম শেখ করেছেন ১ রান। দলীয় ৩ রানে দুই উইকেট হারানোর পর

ম্যাচের হাল ধরেছিলেন সাকিব আল হাসান ও অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তবে নিজের দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলে সাকিব আল হাসানকে সাজঘরে ফিরিয়েছেন অ্যাডাম জাম্পা। বলারের মাথার ওপর দিয়ে শট খেলতে গিয়ে অ্যাশটন অ্যাগারের হাতে ক্যাচ দেন সাকিব। ব্যক্তিগত ২৬ রানের ইনিংস-এ চারটি চার মেরেছেন তিনি। এরপর আফিফ

হোসেন ধ্রুবর সঙ্গে ২৩ বলে ২৯ আরেকটি জুটি গড়েন মাহমুদউল্লাহ। মাহমুদউল্লাহ খেলেছেন মাথা ঠাণ্ডা করে, অপরদিকে ব্যাট চালিয়ে খেলেছেন আফিফ। তবে আফিফ ভুল করে এক রান নিতে গিয়ে পড়েছেন রানআউটের কবলে। কভারে ঠেলে দিয়েই দৌড় দিয়েছিলেন তিনি, কিন্তু জায়গামতো পৌঁছানোর আগেই সরাসরি স্টাম্পে আঘাত করে তাকে ফেরান

অ্যালেক্স কারে। ১৩ বলে একটি করে চার-ছক্কায় আফিফের ১৯ রানের ইনিংস থামে এখানেই। এরপর শামীম হোসেন পাটোয়ারীও (৮ বলে ৩) হ্যাজলেউডকে ক্রস খেলতে গিয়ে মিডউইকেটে হয়েছেন ক্যাচ আউট। এরপর নুরুল হাসান সোহান যোগ দেন টাইগার ক্যাপ্টেনের সঙ্গে। তবে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি তিনিও। নিজের খেলা তৃতীয়

বলে লংঅনের ওপর দিয়ে বিশাল ছক্কা হাঁকিয়েছিলেন তিনি। তার ইনিংসটিও থেমেছে রানআউটে। এই আউটের দায় মাহমুদউল্লাহর। কভারে ঠেলে দিয়েই টাইগার অধিনায়ক রানের জন্য কল দেন, কিন্তু সোহান (৫ বলে ১১) পৌঁছার আগেই সরাসরি থ্রোতে উইকেট ভেঙে দেন হেনড্রিকস। মাহমুদউল্লাহ একটা প্রান্ত তবু ধরে ছিলেন। দেখেশুনে খেলে

হাফসেঞ্চুরিও তুলে নেন। শেষ পর্যন্ত ইনিংসের ২ বল বাকি থাকতে অভিষিক্ত পেসার এলিসের বলে বোল্ড হন ৫২ রানে। টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় টাইগাররা। বাংলাদেশ তাদের উইনিং কম্বিনেশনে পরিবর্তন আনেনি। আগের দুই ম্যাচের মতো তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতেও অপরিবর্তিত একাদশ নিয়েই খেলতে নামছে টাইগাররা। অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়া দলে তিনটি পরিবর্তন এনেছে।

বাদ পড়েছেন জশ ফিলিপে, মিচেল স্টার্ক আর অ্যান্ড্রু টাই। এসেছেন বেন ম্যাকডরমট, ড্যান ক্রিশ্চিয়ান। অভিষেক হচ্ছে নাথান এলিসের। সিরিজের প্রথম ম্যাচে ১৩১ রানের পুঁজি নিয়েও ২৩ রানের দাপুটে জয় পায় বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে ১২১ রানে গুটিয়ে দিয়ে ৮ বল হাতে রেখে ৫ উইকেটে জয় পায় টাইগাররা।

হাফসেঞ্চুরিও তুলে নেন। শেষ পর্যন্ত ইনিংসের ২ বল বাকি থাকতে অভিষিক্ত পেসার এলিসের বলে বোল্ড

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *