Categories
Uncategorized

প্রাইভেটকার ধাওয়া করে দুই কোটি টাকার স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গার বন্ডবিল গেইট এলাকা থেকে আড়াই কেজি স্বর্ণালঙ্কাসহ তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। উদ্ধারকৃত স্বর্ণালংকারের দাম

প্রায় দুই কোটি টাকা। বুধবার দুপুর সাড়ে তিনটার দিকে কুষ্টিয়া-আলমডাঙ্গা সড়কের বন্ডবিল গেট এলাকায় একটি প্রাইভেটকার থেকে এ সব স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধরর করা হয়। আটকরা হলেন প্রাইভেটকারের মালিক কাম চালক চুয়াডাঙ্গার দর্শনা শ্যামপুরের নুর ইসলামের ছেলে মো. বাপ্পী,

চুয়াডাঙ্গা সদরের বনানীপাড়ার রিপন হোসেনের ছেলে সম্রাট হোসেন ও মাদারীপুর জেলার জালালপুরের বাবু হাওলাদারের ছেলে সুমন হাওলাদার।
পুলিশ জানায়, বুধবার দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার এসআই মেফাউল হাসান দর্শনা থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা একটি প্রাইভেটকারকে রেকি করতে থাকে।

একপর্যায়ে সদর থানা পুলিশ প্রাইভেটকারটি থামাতে গেলে চালক গাড়ি না থামিয়ে দ্রুত গতিতে পুলিশকে ওভারটেক করে। এ সময় চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি আবু জিহাদের নেতৃত্বে এসআই মেফাউল হাসান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে প্রাইভেটকারটিকে চ্যালেঞ্জ করে। পরে আলমডাঙ্গা বন্ডবিল নামকস্থানে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশের সহযোগিতায় চেকপোস্ট

বসিয়ে প্রাইভেটকারটি আটক করা হয়। আটকের পর প্রাইভেটকারটি তল্লাশি করে সিটের নিচ থেকে তুলা ও স্কচ টেপ দিয়ে মোড়ানো বিশেষ কায়দায় রাখা স্বর্ণালঙ্কারের ৬টি ব্যান্ডেল উদ্ধার করে পুলিশ। ওই ব্যান্ডেলের মধ্যে বিভিন্ন ধরনের সোনার গহনা উদ্ধার করা হয়। এ সময় গাড়িচালক কাম মালিকসহ তিনজন স্বর্ণ চোরাচালান সিন্ডিকেটের সদস্য আটক করে পুলিশ।

একই সঙ্গে তাদের কাছ থেকে ব্যবহৃত মোবাইল ফোন ও নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়। চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু তারেক জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সন্দেহভাজন প্রাইভেট করাটি ধাওয়া করা হয়। পরে গাড়িটি আলমডাঙ্গা থানা এলাকার বন্ডবিল গেইট এলাকায় পুলিশের তল্লাশী চৌকিতে গতিরোধ করে তল্লাশী করা হয়। সেখান থেকে আড়াই কেজি ওজনের স্বর্ণালংকার উদ্ধার করা হয়।

উদ্ধারকৃত স্বর্ণালংকারের বাজারমূল্য দুই কোটি টাকা। আটক পাচারকারীরা আন্তজেলা স্বর্ণ চোরাচালান চক্রের সদস্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *