Categories
Uncategorized

ধর্ষণ যখন অনিবার্য, তখন শুয়ে থেকে তা উপভোগ করাই উচিত

ধ;;র্ষ;ণ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ালেন ভারতের কর্নাটকের এক প্রবীণ কংগ্রেস নেতা। বৃহস্পতিবার কর্নাটক বিধানসভায় ওই

মন্তব্য করেছেন তিনি। কর্নাটক বিধানসভার শীতকালীন অধিবেশনে বৃহস্পতিবার উপস্থিত ছিলেন কংগ্রেস নেতা কে আর রমেশ কুমার। তিনি বিধানসভার সাবেক স্পিকারও বটে। বৃহস্পতিবার তিনি বলেছেন, ‘ধ;;র্ষ;ণ যখন অনিবার্য, তখন শুয়ে থেকে তা উপভোগ করা উচিত।’

তার এই মন্তব্যের পর হাসিতে ফেটে পড়েন বিধানসভার সদস্যরা। কর্নাটক বিধানসভার বর্তমান স্পিকার বিশ্বেশ্বর হেগড়ে কাগেরিও রমেশের কথায় হাসতে শুরু করেন। বিধানসভায় কৃষকদের বিষয় নিয়ে আলোচনার জন্য সময় চাইছিলেন কংগ্রেস নেতারা। তখন স্পিকার বিশ্বেশ্বর জানান, সকলের জন্য সময় বরাদ্দ করলে হাউসের

কাজ কী করে হবে। বিশ্বেশ্বর বলেছেন, ‘আপনারা যা ঠিক করবেন তাতেই আমি হ্যাঁ বলব। আমি ব্যবস্থার পরিবর্তন বা নিয়ন্ত্রণ করতে তো পারব না। তাই পরিস্থিতিকে উপভোগ করতে হবে। হাউসের কার্যক্রম নিয়েই আমার চিন্তা।’ স্পিকারের এই কথার পরই কংগ্রেস নেতা রমেশ ধ;;র্ষ;ণের সাথে বিষয়টির তুলনা করে ওই বিতর্কিত মন্তব্য করেন।

যদিও এই মন্তব্যের পর বিতর্ক ছড়াতেই ক্ষমা চেয়েছেন ওই কংগ্রেস বিধায়ক। নিজের টুইটার হ্যান্ডলে তিনি লিখেছেন, ‘ধ;;র্ষ;ণ নিয়ে যে মন্তব্য আমি বিধানসভায় করেছি তার জন্য আমি সকলের কাছে ক্ষমা চাইছি। ঘৃ;ণ্য অপরাধকে আলোকিত করা আমার উদ্দেশ্য ছিল না। শব্দ চয়নের ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে আমি আরো সতর্ক থাকব।’

উল্লেখ্য, কর্নাটকে নারীদের বিরুদ্ধে অপরাধের সংখ্যা যথেষ্ট বেশি। কর্নাটক রাজ্য পুলিশের দেয়া তথ্য অনুসারে, ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে ২০২১ সালের মে মাসের মধ্যে ১ হাজার ১৬৮টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে সে রাজ্যে। যার মধ্যে অধিকাংশই গণধর্ষণের ঘটনা। কর্নাটকের চামুন্ডি পাহাড়ে ধ;;র্ষ;ণের ঘটনার পর সে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

বক্তব্য নিয়ে হুলস্থূল পড়েছিল। তিনি বলেছিলেন, কোনো নারীর পুরুষ বন্ধুদের সাথে নির্জন স্থানে যাওয়া উচিত নয়।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *