Categories
Uncategorized

মেকআপ করা চেহারা দেখানোর জন্যই তারা মাস্ক পরেনি: পরীমনি

সদ্য শেষ হওয়া বাংলা’দেশ চলচ্চিত্র শি’ল্পী সমি’তির নির্বা’চনে ইলি’য়াস কাঞ্চন-নিপুণ প্যা’নেল থেকে কা’র্যকরী পরিষদ সদ’স্যপদে প্রার্থী

ছিলেন আলো”চিত নায়িকা পরী’মনি। ব্যা’লট পে’পারে নাম থাক’লেও ভোট দিতে যাননি পরী’মনি। প্রচার-প্রচারণা না করা’য় নির্বা’চনে পরা’জিত হন পরীমনি। ৭৯ ভোট পেয়ে পরা’জিত হন পরী’মনি। তবে নির্বা’চনে প্র’চার-প্রচা’রণা না করা ও ভোট না দেওয়ায় জেতা বা হারা

নিয়ে ভাবছেন না পরীমনি। এদিকে ভো’টের মা’ঠের পরি’স্থিতি দেখে হতাশ হয়েছেন পরীম’নি। করো’না সংক্রম’ণের মা’ঝে কেউ স্বাস্থ্য’বিধি মানছেন না, পরছেন না মা’স্ক। নির্বাচনে হার নিয়ে পরীমনি বলেন, আমার ইচ্ছা ছিল না প্রার্থী হওয়ার। আর আমি তো নাচতে নাচতে প্রার্থী হতে যাইনি। সবাই বলল, তাই নমিনে’শন কা’গজে স্বা’ক্ষর করে

প্রার্থী হয়ে’ছিলাম। কিন্তু শরীর খা’রাপ থাকা’র কারণে ভো’ট করতে চাইনি। আমি আগেই জানিয়ে দিয়েছি’লাম ভো’ট ক’রছি না। শেষ দিন ১৬ জানু’য়ারি প্রা’র্থিতা প্রত্যা’হা’রের জন্য এই প্যানেলের এক’জন’কে বলে দিয়ে’ছিলা’ম। তিনি কাজ”টি করেননি। এ ব্যাপারে আ’মার কোনো দো’ষ নেই। তিনি বলেন, সকালে টেলি’ভিশ’নের খবর ও ফেস’বুকে নির্বা’চনী

ফু’টেজ থেকে আমি পুরোপুরি চমকে গেছি। দেখ’লাম কে’উই স্বাস্থ্য’বিধি মানছে না। কারও মু’খে মা’স্ক নেই। মানা হচ্ছে না স্বা’স্থ্য’বিধি। সবাই গা’দা’গাদি করে আড্ডা দিচ্ছেন। গায়ে গা লা’গিয়ে ভোট দিতে কে’ন্দ্রে ঢুক’ছেন। কী ভয়ং’কার পরি’বেশ। হতা’শার সুরে পরী’মনি আরও বলেন, মনে হচ্ছে মেকআপ ক’রা চে’হারা দেখা’নোর জন্য মা’স্ক

রা’খেননি। মেক’আপ দেখা’লে পর্দায় গিয়ে দেখান। ভো’টের মাঠে তো দেখা’নোর দর’কার নাই। আগে জী’বন নাকি আগে চে’হারা দেখানো নাকি আগে ভোট? ইলেকশনের মাঠ দেখে আ’মি পুরাই হতাশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *