Categories
Uncategorized

ছাত্রীদের হিজাব পরার বিষয়ে নতুন যে রায় ঘোষণা করলো ভারতের হাইকোর্ট

ভারতের কর্ণাটক রাজ্যে হিজাব ও বোরকা পরার কারণে হেনস্তার শিকার ও শ্রেণিকক্ষে ঢুকতে না দেওয়ার ঘটনায় বেশ আলোচনা-সমালোচনা

হচ্ছে। বিষয়টি আদালতেও গড়িয়েছে। এই পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের আপাতত ধর্মীয় পোশাক হিজাব পরতে নিষেধ করলেন কর্ণাটকের হাইকোর্ট।
হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, বিষয়টি আদালতে আলোচনাধীন। এ নিয়ে যে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে, তা আদালতে নিষ্পত্তি না হওয়া

পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের এমন পোশাক না পরার কথা বললেন আদালত। আগামী সোমবার এই ইস্যুতে আবারও শুনানি হবে। এর আগে গত বুধবার এ নিয়ে আদালতের শুনানি হয়। পরে এটিকে হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠানো হয়। পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে রয়েছেন প্রধান বিচারপতি রিতুরাজ অবস্থি, বিচারপতি কৃষ্ণা এস দীক্ষিত ও বিচারপতি

জে এম খাজি। গতকাল বৃহস্পতিবার হিজাব ইস্যুতে এই বেঞ্চে শুনানি হয়েছে। হিজাব ইস্যুতে কর্ণাটকের মুসলিম শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেছেন, শ্রেণিকক্ষে তাঁরা বৈষম্যমূলক আচরণের শিকার হচ্ছেন। শিক্ষার্থীদের এই মামলা লড়ছেন আইনজীবী সঞ্জয় হেগরে। তিনি গতকাল আদালতে বলেন, কর্ণাটকের শিক্ষা আইনের কোথাও স্কুলের পোশাক

নিয়ে কিছু বলা হয়নি। লাইভ ল-এর খবরে বলা হয়েছে, ওই আইনজীবী বলেন, শিক্ষার্থীদের পোশাক কী হবে, সেটা স্কুলের বিষয়। তবে কর্ণাটক সরকারে পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন অ্যাডভোকেট জেনারেল। তিনি বলেন, রাজ্য সরকার চায় আইন হোক। কিন্তু স্কুল বা কলেজে একদল মাথা ঢেকে আসবে, আরেক দল গেরুয়া উত্তরীয় পরে আসবে—এটা হতে পারে না।

পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের এমন পোশাক না পরার কথা বললেন আদালত। আগামী সোমবার এই ইস্যুতে আবারও

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *