Categories
Uncategorized

এবার শ্রাবন্তীর নতুন ইনিংস শুরু

টালিউড অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় সঙ্গে তার তৃতীয় স্বামী রোশন সিংয়ের সম্পর্ক নাকি তলানিতে। এমনই এক গুঞ্জন গত

কয়েক দিন ধরে শোনা যাচ্ছে। তাদের বিয়ে নাকি ভাঙার মুখে। শ্রাবন্তীর স্বামী রোশন সিং সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, তিনি ও
শ্রাবন্তী পূজার সময় থেকে আলাদা থাকছেন। এরই মধ্যে শ্রাবন্তীর ছেলের একটি ভিডিও দিন

দুয়েক আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছিল। শ্রাবন্তীর ছেলে অভিমন্যু নিজের ও মায়ের ছবি পোস্ট করে জানিয়েছিলেন, একটা
বড় কিছু আসতে চলেছে। এরপরে নেটিজেনরা সেখানে প্রশ্ন শুরু করেছিলেন তার মা শ্রাবন্তী কি এবার বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হতে চলেছেন।

কিন্তু এবার শ্রাবন্তী বিষয়টি বিস্তারিত জানালেন, তার নতুন ইনিংসের কথা। নিজের অফিসিয়াল সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়ে দিলেন,
রোববার তার জীবনের বড় বদলের দিন। শ্রাবন্তীর নতুন ইনিংসে স্বাগত জানিয়েছেন তার বন্ধু নুসরাত জাহান। তিনি শ্রাবন্তীর সাফল্য কামনা করেছেন।

নতুন খবর হলো- শ্রাবন্তী একটি জিমের প্রতিষ্ঠান খুলেছেন। তার তৃতীয় স্বামীর রোশনের উৎসাহেই এই জিমের কাজ শুরু। দুজনেরই স্বপ্নের প্রজেক্ট ছিল এটা। কিন্তু হঠাৎই দুজনের দুটি পথ দু দিকে বেঁকে যাওয়ায় শ্রাবন্তীর ভিডিওতে কোথাও রোশনের কথা বলেননি।

টালিউড অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় সঙ্গে তার তৃতীয় স্বামী রোশন সিংয়ের সম্পর্ক নাকি তলানিতে। এমনই এক গুঞ্জন গত

Categories
Uncategorized

উজবেকিস্তান এয়ারে এই প্রথমবারের মতো দেশটিতে গেল বাংলাদেশিরা

জীবিকার তাড়নায় এখন অসংখ্য মানুষ দেশ ছেড়ে ছুটে চলে প্রবাসে। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ ইচ্ছা থাকলেও যেতে পারে

না সব দেশে। তবে এবার নতুন একটি দেশ শ্রম বাজার খুলে দিল বাংলাদেশের জন্য। বাংলাদেশিদের জন্য নতুন শ্রম বাজার
হিসেবে আবির্ভূত হলো মধ্য এশিয়ার দেশ উজবেকিস্তান। প্রথমবারের মতো শনিবার দেশটিতে দুই শতাধিক বাংলাদেশি শ্রমিক গেছেন।

আগামীতে ধাপে ধাপে আরো শ্রমিক পাঠানো হবে বলে জানা গেছে। সংশ্লিষ্ট্র সূত্রে জানা যায়, ২৩৯ জন শ্রমিক নিয়ে
উজবেকিস্তান এয়ারের একটি বিশেষ ফ্লাইট শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর

ত্যাগ করে।এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন এ এইচ এম তৌহিদ-উল আহসান।

Categories
Uncategorized

বাংলাদেশ থেকে উচ্চ বেতনে সরকারি ভাবে শ্রমিক নিচ্ছে উজবেকিস্তান

বাংলাদেশের নতুন শ্রম বাজার মধ্য এশিয়ার দেশ উজবেকিস্তানে প্রথমবারের মতো গেল ২৩৯ শ্রমিক। গতকাল শনিবার (০৭ নভেম্বর) সকাল

সাড়ে ১০টায় ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ২৩৯ জন শ্রমিক নিয়ে উজবেকিস্তান এয়ারের একটি বিশেষ ফ্লাইট যাত্রা করে। এরমধ্য দিয়ে এশিয়ার এই দেশটিতে বাংলাদেশের নতুন আরেকটি শ্রমবাজার উন্মুক্ত হল। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের

পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন এ এইচ এম তৌহিদ-উল আহসান সংবাদমাধ্যমে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এ ব্যাপারে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে, “দক্ষ কর্মী রপ্তানির এই প্রক্রিয়ায় চারটি রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে মোট ৮৮৮ জন কর্মী পর পর তিনটি বিশেষ ফ্লাইটে উজবেকিস্তান যাবে। বাংলাদেশি কর্মীরা উজবেকিস্তানের রাজধানী তাসকন্দ থেকে প্রায় ৪৫০ কিলোমিটার দূরে কারশিতে ইন্টার ইঞ্জিনিয়ারিং

কোম্পানিতে কাজ করবেন।” বৈদেশিক শ্রম বাজার বিশেষজ্ঞরা দেশের বর্তমান অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে উজবেকিস্তানে দক্ষ কর্মী রপ্তানির নতুন
বাজারকে অত্যন্ত ইতিবাচকভাবে দেখছেন। তারা মনে করছেন, দক্ষ শ্রমিক রপ্তানি বাংলাদেশের অর্থনীতিতে নতুন বার্তা নিয়ে আসবে। এদিকে

বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ১ কোটির বেশি প্রবাসী বাংলাদেশির সমস্যা সমাধানে নতুন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। নানান পেশায় কর্মরত এই প্রবাসীরা জাতেকরে প্রবাস থেকেই তাদের সমস্যার কথা মন্ত্রণালয়ে জানাতে পারেন, সে জন্য একটি নাম্বার দেওয়া হয়েছে। গত শুক্রবার (৬ নভেম্বর) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজ থেকে জানানো হয়, প্রবাসীদের সমস্যা সমাধানের জন্য ও

সেবা প্রদান ত্বরান্বিত করবার জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে একটি ফোন নম্বর আছে। যেখানে প্রবাসীরাযেকোনো সমস্যায় রবিবার থেকে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় সকাল ৭ টা থেকে বিকাল ০৫ টা পর্যন্ত সরাসরি ০২-৯৫৬২৯২৩ নম্বরে (ওয়ালিদ ইসলাম, সহকারী সচিব, কল্যাণ) যোগাযোগ করতে পারবেন। দয়া করে দালাল ধরে কেউ প্রতারিত হবেন না। ভিসা সংক্রান্ত ইস্যুতে এই নাম্বার থেকে কোন সহায়তা প্রদান করা হবেনা বলে জানানো

হয়েছে। সেইসাথে অহেতুক বিষয়ে ফোন করে অফিসের কাজে বিঘ্ন ঘটানো থেকে অনুরোধ জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।

Categories
Uncategorized

র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলমকে বদলি

র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলমকে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব হিসেবে

বদলি করা হয়েছে। সোমবার (৯ নভেম্বর) রাতে তিনি নিজেই জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বদলির বিষয়ে নিশ্চিত
করে সারোয়ার আলম বলেন, ‘নতুন দায়িত্বে যেন সফল হতে পারি এজন্য দেশবাসীর

কাছে দোয়া প্রার্থনা করছি।’ উল্লেখ্য, ২৭তম বিসিএসের মাধ্যমে মো. সারোয়ার আলম যোগ দেন প্রশাসনে। এতদিন তিনি র‌্যাব
সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে কর্মরত ছিলেন।সারোয়ার আলম ২০১৫ সাল থেকে র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে

কর্মরত আছেন। তিনি দুর্নী;তি বি;রো;ধী শুদ্ধি অভিযানের সময় সাহসী ভূমিকা রাখেন। এছাড়াও গেল পাঁচ বছরে অনেক অনিয়ম
প্র;তা;রণার ;বি;রু;দ্ধে বিভিন্ন সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। বিশে;ষ করে ভে;জাল খাদ্য ও ভে;জাল প;ণ্য
উৎপা;দনের বিরু;দ্ধে সোচ্চার ছি;লেন এই নির্বাহী ম্যাজিসেট্রট।

র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলমকে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব হিসেবে

Categories
Uncategorized

গ’ভীর রাতে মাছ চু’রি করতে দিয়ে ধ’রা খে’লেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান !

বরগুনার আমতলী উপজেলা পরিষদের পুকুরে নারী ভাইস চেয়ারম্যান মোসা. তামান্না আফরোজ মনির নেতৃত্বে মাছ চু’রির অ’ভি’যোগ পাওয়া

গেছে। বৃহস্পতিবার গ’ভীর রাতে এ ঘট’না ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ রাতেই ঘ’টনাস্থলে এসে নারী ভাইস চেয়ারম্যান ও তার লোকজনকে আ’ট’ক এবং জা’ল জ’ব্দ করে। পরে ইউএনও মো. আসাদুজ্জামান নারী ভাইস চেয়ারম্যান ও তার লোকজনকে ছে’ড়ে দেন। এ ঘ’টনায়

এলাকায় চা’ঞ্চ’ল্যের সৃ’ষ্টি হয়েছে। জানা গেছে, আমতলী উপজেলা পরিষদের অভ্যন্তরে পাঁচটি পুকুর রয়েছে। ওই পুকুরগুলোতে দীর্ঘদিন ধরে উপজেলা পরিষদ নিজস্ব অর্থায়নে মাছ চাষ করে আসছে। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে উপজেলা নারী ভাইস চেয়ারম্যান তামান্না আফরোজ মনি, তার ভাই মতিয়ার রহমানসহ ১০-১২ জন লোক মাছ শি’কা’রের জন্য জাল নিয়ে উপজেলা পরিষদের অ’ভ্যন্তরে প্রবেশ করে।

তারা পুকুরে জাল ফে’লে মাছ শি’কা’র করছিল। পরিষদের অভ্য’ন্তরে লোকজনের উপস্থিতি দেখে উপজেলা শ্রমিক লীগ সাধারণ সম্পাদক মো. হাসান মৃধা, কবির হাওলাদার ও শাহ আলম ঘ’টনাস্থলে যান এবং নারী ভাইস চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে তার ভাই মতিয়ার রহমানসহ ১০-১২ জন লোককে পুকুরে মাছ শি’কা’র করতে দেখেন। পরে তারা পুলিশে খবর দেন। পুলিশ গিয়ে ঘ’টনাস্থল থেকে নারী ভাইস চেয়ারম্যান তামান্না আফরোজ মনি ও তার সহযোগী ১০-১২ জনকে আটক করে। মুহূর্তের মধ্যেই এ ঘটনা আমতলীতে ছড়িয়ে পড়ে এবং ঘ’টনাস্থলে অর্ধশতাধিক

লোক জ’ড়ো হয়ে এ ঘ’টনার বি’চার দা’বি করেন। খবর পেয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম সরোয়ার ফোরকান, ইউএনও মো. আসাদুজ্জামান, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমান ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোতাহার উদ্দিন মৃধা ঘট’নাস্থলে উপস্থিত হন। পরে ইউএনও আসাদুজ্জামান এ ঘট’নার সু’ষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দিয়ে নারী ভাইস চেয়ারম্যানসহ তার সহযোগীদের ছে’ড়ে দেন।

এ বিষয়ে নারী ভাইস চেয়ারম্যানের ভাই মো. মতিয়ার রহমান মাছ শিকারের কথা স্বীকার করে বলেন, উপজেলা পরিষদের সিদ্ধান্ত মতে মাছ শি’কা’র করতে গিয়েছিলাম। অ’ভিযু’ক্ত নারী ভাইস চেয়ারম্যান মোসা. তামান্না আফরোজ মনি মাছ চু’রির বিষয়টি অস্বী’কার করে বলেন, ইউএনও আসাদুজ্জামান ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ গোলাম সরোয়ার ফোরকানের সিদ্ধান্তে রাত সাড়ে ৩টার দিকে জে’লে নিয়ে মাছ শি’কা’র করতে গিয়েছিলাম। কিন্তু ইউপি চেয়ারম্যান মোতাহার উদ্দিন মৃধা পুলিশ নিয়ে এসেছেন।

এ বিষয়ে আমতলী থা’নার এসআই মো. দাদন মিয়া বলেন, খবর পেয়ে ঘ’টনাস্থলে গিয়ে নারী ভাইস চেয়ারম্যান ও ১০-১২ জন লোককে আ’ট’ক এবং মাছধ’রা জাল জ’ব্দ করি। পরে ইউএনও স্যারের নি’র্দেশে তাদের ছে’ড়ে দেয়া হয়েছে। আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আসাদুজ্জামান ঘট’নার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মান-সম্মানের তাগিদে উপজেলা নারী ভাইস চেয়ারম্যান ও তার লোকজনকে

ছে’ড়ে দেয়া হয়েছে। গভীর রাতে উপজেলা পরিষদের পুকুরে এভাবে মাছ শি’কা’র করা দুঃ’খজ’নক। আমতলী উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ গোলাম সরোয়ার ফোরকান চু’রির ঘট’না অস্বী’কার করে বলেন, উপজেলা পরিষদের পুকুরে মাছ শি’কা’রের কথা ইউএনও
নিজেও জানেন। উপজেলা পরিষদের সিদ্ধান্তমতে মাছ শি’কার করতে উপজেলা নারী ভাইস চেয়ারম্যান জেলে নিয়ে এসেছিলেন। কিন্তু উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমান ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান

মোতাহার উদ্দিন মৃধা প’রিক’ল্পিতভাবে পুলিশ এনে ঘ’টনাটি ভি’ন্ন খা’তে নিয়ে ফা’য়দা লো’টার চে’ষ্টা করছেন।

Categories
Uncategorized

আমার পরিণতিও বেগম জিয়ার মতো হতে পারে: নুর

ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন, ‘যেভাবে আমাকে টা’র্গেট করে একের পর এক মা-মলা দেওয়া হচ্ছে, ছাত্রলীগ-যুবলীগ দিয়ে

হাম-লা করছে, কিন্তু আমি তো থেমে যাইনি। যেভাবে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়াকে দুই বছর মি-থ্যা মা-মলায় কা-রাগা-রে রেখেছে, সেখানে আমি নুর কিছুই না। আমার তো খালেদা জিয়ার মতো লাখ লাখ নেতাকর্মী নেই। কিন্তু আমি জানি, আমার পরিণতিটাও বেগম জিয়ার

মতো হতে পারে।’ শনিবার (১৭ অক্টোবর) রাজধানীর ধানমন্ডিতে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভাষাসৈনিক আব্দুল মতিনের ষষ্ঠ মৃ-ত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় এ কথা বলেন নুর। এসময় তিনি আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নেতা মাকসুদ কামাল তো টকশোতে বলেছেন যে, ভিপি নুরের পরিণতিও খালেদা জিয়ার মতো হবে। কিন্তু আমি বলছি, আমার একটা জীবনের বিনিময়ে যদি এদেশের ১৮ কোটি মানুষ মুক্তি

পায়, তাহলে আমার জীবন আমি উৎসর্গ করলাম। কোনও গণআন্দোলন ত্যাগ ছাড়া সফল হয়নি। তাই জনগণের প্রতি অনুরোধ থাকবে, এখন আর বসে থাকার সময় নেই, খুব শিগগিরই ডাক আসবে গণআন্দোলনের।’ মধ্যবর্তী নির্বাচন প্রসঙ্গে সাবেক ভিপি নুর বলেন, ‘আপনারা

(সরকার) দেখেছেন সারাদেশ গর্জে উঠেছে। আপনারা চাইলেও জোর করে আর ক্ষমতায় থাকতে পারবেন না। কিন্তু যদি নিরাপদে ফিরতে চান, তাহলে নিজেরাই একটা মধ্যবর্তী নির্বাচনের ব্যবস্থা করেন। সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের জন্য যদি তত্ত্বাবধায়ক সরকারকে সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত করতে হয়, তবে তাই করুন। যদি নিরাপদে ফিরতে চান। আর যদি এরশাদের মতো,

কিংবা পৃথিবীর যে সব স্বৈরশাসকের করুণ পরিণতি হয়েছে, সেটা যদি চান তাহলে জনগণের গণআন্দোলনের জন্য অপেক্ষা করুন।’ ভাসানী অনুসারী পরিষদের প্রেসিডিয়াম সদস্য নঈম জাহাঙ্গীরের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরেও বক্তব্য রাখেন— গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. দিলারা চৌধুরী,

জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধের প্রজন্ম আহ্বায়ক কালাম ফয়েজী, মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক কাউন্সিলর মো. ফরিদ উদ্দিন প্রমুখ

Categories
Uncategorized

জমি দলিলের ৮ দিনের মধ্যেই অটো নামজারি

এখন থেকে কেউ জমি কিনলে রেজিস্ট্রি করার আট দিনের মধ্যেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে (অটোমেটিক) নামজারি হয়ে যাবে। এমন আইন করে জমি

রেজিস্ট্রেশন ও নামজারি কার্যক্রম সমন্বয় প্রস্তাব অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা। বর্তমানে ১৭টি উপজেলায় এই কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এক বছরের মধ্যে এটি সারা দেশে শুরু হবে। এর ফলে হয়রানি ও মামলার সংখ্যা কমবে। জমি রেজিস্ট্রেশন ও নামজারি বিষয়কে সহজ করে

দুর্ভোগ কমাতেই এই সমন্বয় করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। সোমবার (৯ নভেম্বর) সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়। প্রধানমন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে অংশ নেন। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, জমি নিয়ে

ঝামেলা কমাতে জমি রেজিস্ট্রেশন ও নামজারি কার্যক্রম সমন্বয় সাধনের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এর ফলে জমি রেজিস্ট্রেশনের আট দিনের মধ্যে স্বয়ংক্রিয়ভাবে নামজারি হয়ে যাবে। সরকারের এ উদ্যোগ যুগান্তকারী। এর ফলে মানুষের হয়রানি ও মামলার সংখ্যা কমে আসবে। দেশের মানুষ, সর্বসাধারণ, বিনিয়োগকারী সবার জন্য নতুন একটি অধ্যায় সৃষ্টি হলো। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব জানান, চলতি বছরের প্রথমদিকেই কীভাবে জমি রেজিস্ট্রেশন ও নামজারি এগুলোকে আরো কমফোর্ট করা যায়, সে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছিলেন। মানুষের যাতে

হয়রানি না হয়, সময় যেন না লাগে। এখনকার সিস্টেমটি হলো ভূমি রেজিস্ট্রেশন ও নামজারি আইন মন্ত্রণালয়ের অধীনে সাব-রেজিস্ট্রার অফিস এবং ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধীন উপজেলা সার্কেল ভূমি অফিস থেকে সম্পন্ন হতো। দুটি মন্ত্রণালয়ের অধীনে থাকার ফলে সব সময় নামজারি করা কঠিন ছিল। এ কারণে দীর্ঘসূত্রতা ছিল এবং রেজিস্ট্রেশনেও অস্পষ্টতা ছিল। যেকোনো জমি যে কেউ রেজিস্ট্রেশন করতে পারত।

খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানান, এখন থেকে সাব-রেজিস্ট্রার অফিস ও এসিল্যান্ড অফিসের মধ্যে একটা ইন্টারনাল সফটওয়্যার থাকবে। বাংলাদেশের সব এসিল্যান্ড অফিসে চার কোটি ৩০ লাখ রেকর্ড অনলাইনে চলে এসেছে। এখন থেকে সাব-রেজিস্ট্রার অফিস ও এসিল্যান্ড অফিস একজন অপরজনের সার্ভারে ঢুকতে পারবে। যখন কারো কাছে জমি রেজিস্ট্রেশনের জন্য যাবে, তখন সাব-রেজিস্ট্রার সঙ্গে সঙ্গে রেজিস্ট্রি করে দেবেন না। তিনি অনলাইনে এসিল্যান্ডের অফিস থেকে রেকর্ড অব রাইটস পরিসংখ্যান জানবেন।

‘এতদিন দুটি দলিল করতে হতো। এখন থেকে তিনটি দলিল করতে হবে। বাড়তি একটা এসিল্যান্ড অফিসও পাবে। যেহেতু এসিল্যান্ড দলিল অনলাইনে পেয়ে যাচ্ছেন এবং তাঁর কাছ থেকেই জমির ভেরিফিকেশন করে রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে। সুতরাং এসিল্যান্ডের আর বাড়তি কিছুই লাগবে না। তিনি অটোমেটিক্যালি সফটওয়্যার ম্যানেজমেন্টের মাধ্যমেই মিউটেশন (নামজারি) কমপ্লিট করবেন। এ ক্ষেত্রে কাউকে ডাকতে হবে না। এটা সর্বোচ্চ আট দিন সময় দেওয়া হয়েছে। তবে আট দিনও মময় লাগবে না।

এই আট দিনের মধ্যে অটোমেটিক্যালি নামজারি হয়ে যাবে। ১৭টি উপজেলায় ইতোমধ্যে কাজ শুরু হয়েছে।’ যোগ করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব।
খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, অনেকে জমি রেজিস্ট্রেশন করেন, মিউটেশন করেন, কিন্তু রেকর্ড করেন না। এখন থেকে রেকর্ডটাও করতে হবে। এসিল্যান্ডের দায়িত্ব থাকবে মাসিক রিপোর্ট দেবেন কতটা মিউটেশন হলো এবং কতটা রেকর্ড হলো। নইলে খাজনা দিতে গেলে সমস্যা হয় এবং অন্যান্য অনেক সমস্যা হয়। এ ছাড়া আজকের বৈঠকে ‘টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট : বাংলাদেশে অগ্রগতি প্রতিবেদন-২০২০’ সম্পর্কে অবহিতকরণ,

বাংলাদেশ গ্লোবাল সেন্টার অন অ্যাডাপটেশন-এর আঞ্চলিক অফিস স্থাপন সম্পর্কে মন্ত্রিসভাকে অবহিত করা হয়।

Categories
Uncategorized

হোটেলের মালিকের সাথে প্রতি’রাতে থাকতেন পাপিয়া

রাজনীতির আ’ড়ালে অ’স্ত্র, মা’দক ও দে’হব্যবসার সঙ্গে জ’ড়িত নরসিংদীর ব’হিস্কৃত যুব মহিলা লীগের নেত্রী শামীমা নূর পা’পিয়ার

ফোনের ভিডিও ডিলিট হয়েছে কিনা তা জানার চেষ্টা চলছে। এ ছাড়া পাপিয়াকে যারা আ’শ্রয়-প্রশ্রয় দিতেন, তাদের অ’নেকের
সম্পর্কে গোয়েন্দা সংস্থা জানতে পেরেছে। তাদের মধ্যে কয়েকজনকে শিগগির জি’জ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে।

একজন দায়ি’ত্বশীল ক’র্মক’র্তা জানান, মোবাইল ফোনসেটের ’চ্যাটিং লিস্টে অনেকের নাম পাওয়া যায়। গু’রু’ত্বপূর্ণ কোনো চ্যাটিং
কিংবা ভিডিও ডিলি,ট করা হয়েছে কিনা, তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য তার মোবাইল ফোনসহ অন্যান্য ইলেকট্র,নিক্স ডি’ভাইসের ফরে,
নসিক পরীক্ষাও করা হচ্ছে। তিনি আরও জানান, পাপিয়ার স,ঙ্গে ঘনি,ষ্ঠ সম্পর্ক ছিল-

এমন অনেকের নামের তালিকা বিভিন্ন সামাজিক যো’গাযোগমা’ধ্যমে দেখা যাচ্ছে। কে বা কারা কী উদ্দেশ্যে এ তালিকা সোশ্যাল
মিডি,য়ায় প্রকাশ করছে, তারও খোঁজ চলছে। এখন পর্যন্ত তালি’কাভুক্ত ব্যক্তিদের সঙ্গে পাপিয়ার কোনো সুনির্দিষ্ট ঘনিষ্ঠতার তথ্য পাওয়া
যায়নি।সূত্র জানায়, পাপিয়ার ঘনি,ষ্ঠদে,র খুঁজতে গুলশানের একটি পাঁচতারকা হোটেলের সিসিটিভির

ক্যামেরা ফুটে,জ পর্য,বেক্ষণ করা হচ্ছে। এ ছাড়া পাপিয়ার কাছে কারা যাওয়া-আসা করতেন, তা জানতে এরই মধ্যে ওই হো,টেলের এ,কাধিক ব্যক্তিকে জি’জ্ঞাসাবাদ করেছেন গো,য়েন্দারা। সূত্র আরও জানায়, পাপিয়া শুধু পাঁচতারকা হোটেলে নন, আরও অনেক
জায়গায় বিভিন্ন পার্টি দিতেন। সেই পার্টিতে অনেক ভি’আইপির আসা-যাওয়া ছিল। ওয়েস্টি,নের বারে নিয়মিত বিশেষ পার্টির আ’য়োজন

করতেন তিনি। ফার্মগেট ও নরসিংদীর বাসায় ডিজে ও ডিসকো পার্টির আয়োজন ছিল অনেকটা নিয়মিত।যারা পাপিয়াকে আ,শ্রয়-প্রশ্র,য় দিতেন, তাদের অনে,র সম্পর্কে গোয়ে,ন্দা সংস্থা জানতে পেরেছে। তাদের মধ্যে কয়েকজনকে শিগগির জি’জ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে বলে সংশ্নিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। প্রসঙ্গত ২২ ফেব্রুয়ারি হযরত শাহজালাল আ’ন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হয়ে থাইল্যান্ডে পাড়ি জমানোর সময় পাপিয়া ও

স্বামীসহ চারজনকে আটক করে র্যাব-১। প্রাথমিক জি’জ্ঞাসাবাদ শেষে র্যাব সদস্যরা ফা’র্মগেটের ইন্দিরা রোডে পাপিয়া- মফিজুরের বিলা,সবহুল ফ্ল্যা,টে অ’ভিযান চালিয়ে ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা, পাঁচ বোতল বিদেশি ম,দ, পাঁচটি পাসপোর্ট, তিনটি চেক বই, বিদেশি মুদ্রা ও বিভিন্ন ব্যাংকের ১০টি এটিএম কার্ড উ’দ্ধার করেন।এ সময় অ’বৈধ একটি বি,দেশি পিস্ত,ল এবং দুটি ম্যাগ’জিনে ২০ রাউ,ন্ড গু,লিও উ’দ্ধার করেন র্যাব সদস্যরা। এ ব্যাপারে পৃথক তিন

মা’মলায় জিজ্ঞা’সাবাদের জন্য পিউ দ’ম্পতি ছাড়াও তাদের দুই স,ঙ্গী বর্তমানে ১৫ দিনের পু’লিশ রি’মান্ডে রয়েছেন।

Categories
Uncategorized

র‌্যাব দেখে ‘কোটি টাকা’ জানালা দিয়ে ফেলে দিচ্ছিল রোহিঙ্গা দম্পতি

চট্টগ্রামে একটি বাসায় অ’ভিযা’ন চালিয়ে এক কোটি ১৭ লাখ টাকা এবং সোয়া পাঁচ হাজার ইয়াবাসহ এক রো’হিঙ্গা দম্পতিকে

গ্রে’প্তার করেছে র‌্যাব। রোববার নগরীর চান্দগাঁও আবাসিক এলাকায় অ’ভিযা’ন চালিয়ে তাদের গ্রে’প্তার করা হয় বলে র‌্যাব-৭
চান্দগাঁও ক্যাম্পের অধিনায়ক ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট আলী আশরাফ তুষার জানান। গ্রেপ্তার শওকত ইসলাম (৩২) ও মোরজিনা

বেগম (২৮) মিয়ানমার থেকে আসা রো’হি’ঙ্গা বলে জানিয়েছে র‌্যাব। গ্রেপ্তার শওকত ইসলামগ্রে’প্তার শওকত ইসলামবিডিনিউজ
টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তুষার বলেন, মা’দ’ক বে’চাকে’নার অ’ভিযো’গ পেয়ে রোববার চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার বি- ব্লকের
ওই বাসায় অ’ভিযা’নে যায় তাদের একটি দল। বাসার দরজা খুলতে বলার

সাথে সাথে তারা জানালা দিয়ে নিচে টাকা ফেলে দেওয়ার চেষ্টা করে। নিচে দাঁড়ানো র‌্যাব সদস্যরা বিষয়টি দেখে ফেলে। পরে ঘরে
ঢুকে আরো কিছু টাকা উ’দ্ধার করা হয়।” সব মিলিয়ে ওই বাসা থেকে এক কোটি ১৭ লাখ ১ হাজার ৫০০ টাকা উ’দ্ধার করা হয়
বলে জানান তুষার। তিনি বলেন, “টাকা নিচে ফেলে দেওয়ার পাশাপাশি তারা ই’য়া’বাগুলো নিজেদের শরীরে লুকিয়ে ফেলে।

পরে ত’ল্লা’শি করে ৫ হাজার ৩০০ ই’য়া’বা পাওয়া যায়।” গ্রে’প্তার মোরজিনা বেগমগ্রে’প্তার মোরজিনা বেগম এই রো’হিঙ্গা দম্পতি
দীর্ঘদিন ধরে চট্টগ্রামে ইয়া’বা বিক্রি করে আসছিল জানিয়ে তুষার বলেন, “মিয়ানমারে তাদের একটি চ’ক্র আছে, সেখান থেকে
শওকত বাংলাদেশে ইয়া’বা এনে বি’ক্রি করে। যে টাকা সেখানে পাওয়া গেছে, তা ই’য়া’বা বিক্রি থেকে পাওয়া বলে তারা জানিয়েছে।

গ্রে’প্তার রোহিঙ্গা দম্পতির বি’রু’দ্ধে চান্দগাঁও থানায় মা’দক এবং অ’বৈধ অনুপ্রবেশ আ’ইনে মা’মলা হয়েছে।

Categories
Uncategorized

খুলনায় মাস্ক না পরায় আ’টক অর্ধশতাধিক

মাস্ক না পরে বাইরে বের হওয়া ব্যক্তিদের আটক ও জরিমানা করা হচ্ছে-করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় পর্যায়ের সংক্রমণ ঠেকাতে

কঠোর অবস্থান নিয়েছে খুলনা জেলা প্রশাসন। মাস্ক না পরে বাইরে বের হওয়া ব্যক্তিদের আটক ও জরি;মা;না করা হচ্ছে। সোমবার
(৯ নভেম্বর) সকাল ১০টা থেকে খুলনা মহানগরের দুটি স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে।

প্রথম এক ঘণ্টাতেই অর্ধশতাধিক ব্যক্তিকে আ;ট;ক করা হয়েছে। এছাড়াও আটজনকে সাড়ে ৬ হাজার টাকা জ;রি;মা;না করেছেন
ভ্রাম্যমাণ আদালত। খুলনার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইউসুপ আলী বলেন, করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় পর্যায়ের সংক্রমণ
ঠেকাতে কঠোর অবস্থান নেয়া হয়েছে। জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির বৈঠক

অনুযায়ী মাস্ক না পরে ঘর থেকে বের হওয়া ব্যক্তিদের কারাদণ্ড দেয়া হবে। এর আগে প্রথম পর্যায়ে সংক্রমণ ঠেকাতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে অনেক ব্যক্তিকে জরিমানা করা হয়েছিল কিন্তু তাতে মানুষের মধ্যে সচেতনতা আসেনি। এ কারণেই এমন কঠিন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

মাস্ক না পরে বাইরে আসা ব্যক্তিদের প্রাথমিকভাবে আটক করা হচ্ছে। পরবর্তীতে তাদের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।